ঢাকা, বাংলাদেশ || বৃহস্পতিবার, ১৭ অক্টোবর ২০১৯ || ২ কার্তিক ১৪২৬
শিরোনাম: ■ জাসদ নেতা মিন্টু গ্রেফতার ■ ফের নির্বাচনের দাবিতে ইসিকে স্মারকলিপি দেবে ঐক্যফ্রন্ট ■ নতুন মন্ত্রীদের শপথ গ্রহণ রোববার ■ বিবিসি’র সেই ভিডিও নিয়ে যা বললেন প্রধানমন্ত্রী ■ বিদেশিদের বিএনপির ভরাডুবির কারণ জানালেন শেখ হাসিনা ■ বিশ্ব গণমাধ্যমে বাংলাদেশের নির্বাচন ■ সংবিধান লঙ্ঘনে ইসির বিচার দাবি খোকনের ■ শপথ গ্রহণে যাচ্ছে না ঐক্যফ্রন্টের সংসদ সদস্যরা! ■ আ’ লীগের দুই গ্রুপের কোন্দলে যুবলীগ নেতা নিহত ■ বিদেশি পর্যবেক্ষক ছিল একেবারেই আইওয়াশ ■ নির্বাচন প্রশ্নবিদ্ধ হওয়ায় গভীর উদ্বেগ টিআইবি’র ■  আ’লীগের জয়জয়কার, মুছে গেল বিরোধীরা
সোনায় হেরফের হয়নি, ভুলে ৪০ হয়ে গেছে ৮০
দেশসংবাদ ডেস্ক :
Published : Tuesday, 17 July, 2018 at 9:22 PM, Update: 21.07.2018 11:53:06 AM

বাংলাদেশ ব্যাংকের ভল্টে রক্ষিত স্বর্ণ হেরফের হওয়ার কোনো সুযোগ নেই বলে জানিয়ে ব্যাংকের নির্বাহী পরিচালক মো. রবিউল হুসাইন বলেন, দেশের একটি জাতীয় দৈনিক সংবাদপত্রে প্রকাশিত প্রতিবেদন ‘এটা আসলে যথাযথ নয়।’

আজ মঙ্গলবার বাংলাদেশ ব্যাংকের কনফারেন্স হলে আয়োজিত এক সংবাদ সম্মেলনে রবিউল হুসাইন ও এবং ভল্টের দায়িত্বে থাকা কারেন্সি অফিসার আওলাদ হোসেন চৌধুরী বিষয়টি নিয়ে কথা বলেন। 

মঙ্গলবার একটি জাতীয় দৈনিকে বাংলাদেশ ব্যাংকের ভল্ট থেকে স্বর্ণ চুরির বিষয়ে একটি প্রতিবেদন প্রকাশিত হয়। এরই পরিপ্রেক্ষিতে সংবাদ সম্মেলন করে কেন্দ্রীয় ব্যাংক।

“প্রতিবেদন বলছে, জমা রাখা হয়েছিল তিন কেজি ৩০০ গ্রাম ওজনের সোনার চাকতি ও আংটি, তা হয়ে আছে মিশ্র বা সংকর ধাতু। ২২ ক্যারেট সোনা, হয়ে আছে ১৮ ক্যারেট। ভল্টে থাকা সোনার চাকতি এবং আংটি পরীক্ষার পর দেখা গেল এগুলো সোনার নয়, অন্য ধাতুর মিশ্রনে তৈরি। এতে সরকারের ১ কোটি ১১ লাখ ৮৭ হাজার ৮৬ টাকা ৫০ পয়সা ক্ষতি হয়েছে বলে প্রতিবেদনে বলা হয়।”

এর জবাবে আওলাদ হোসেন বলেন, শুল্ক গোয়েন্দা বিভাগের দেওয়া সোনা জমা রাখার সময় খাঁটি সোনা ৪০ শতাংশই ছিল।

“কিন্তু ইংরেজি বাংলার হেরফেরে সেটা ৮০ শতাংশ লিখে ভুলবশত নথিভুক্ত করা হয়েছিল। বাংলাদেশ ব্যাংকের তালিকাভুক্ত শখ জুয়েলার্সের স্বর্ণকার এই ভুলটি করেছিলেন।”

নির্বাহী পরিচালক রবিউল বলেন, “কেন্দ্রীয় ব্যাংকের ভল্টে ছয় স্তরের কঠোর নিরাপত্তা ব্যবস্থা রয়েছে। এমনকি গভর্নর ও ডেপুটি গভর্নরকেও সেখানে প্রবেশ করতে অনুমতি নিতে হয়। ইচ্ছাকৃতভাবে কেউ কোনোভাবে এখানে প্রবেশ করতে পারে না।

“নথিভূক্ত করার সময় ইংরেজি-বাংলার ত্রুটি ছাড়া কোনো ধরনের ভুল বাংলাদেশ ব্যাংকের নাই।”

রবিউল হুসাইন বলেন, ‘শুল্ক গোয়েন্দা দপ্তরের নিজস্ব রিপোর্টের সঙ্গে বাংলাদেশ ব্যাংকের কোনো সম্পর্ক নেই। জাতীয় রাজস্ব বোর্ডের মেশিনের সঙ্গে বাংলাদেশ ব্যাংকের মেশিনের মাপের পার্থক্য হয়। এই মেশিন নিয়ে সন্দেহ রয়েছে।’

রবিউল হুসাইন আরো বলেন, ‘শাহজালাল আন্তর্জাতিক বিমানবন্দরের যে কর্মকর্তা এটি জমা রেখেছিলেন উনি একটি প্রত্যয়নপত্র আমাদের দিয়েছেন যে কালো প্রলেপযুক্ত যে স্বর্ণের চাকতি এবং রিং তা যথাযথ আছে; উনি যেভাবে রেখেছিলেন, যেমনটি রেখেছিলেন। তা লিখিত প্রত্যয়নপত্রে আমাদের জানিয়েছেন।

ওই সংবাদপত্রের প্রতিবেদনের ভিত্তিতে রবিউল বলেন, ‘২২ ক্যারেট সোনা হয়ে গেল ১৮ ক্যারেট। প্রতিবেদনে এটাও বলা হয়েছে। এটাও আসলে যথাযথ নয়।’

যেসব স্বর্ণ নিয়ে অভিযোগ তোলা হয়েছে, তা তৃতীয় পক্ষের মাধ্যমে যাচাই করার আবেদন করা হয়েছে বলে জানান রবিউল হুসাইন।

ওই সংবাদ প্রতিবেদনে বলা হয়, শুল্ক গোয়েন্দা ও তদন্ত অধিদপ্তরের এক অনুসন্ধান প্রতিবেদনেই ওই অনিয়মের তথ্য উঠে আসে। বাংলাদেশ ব্যাংকের ভল্টে রাখা ৯৬৩ কেজি স্বর্ণ পরীক্ষা করে বেশিরভাগের ক্ষেত্রে অনিয়ম ধরা পড়ে।

প্রতিবেদনে আরো বলা হয়, ২০১৭ সালের জানুয়ারি থেকে এপ্রিল পর্যন্ত বাংলাদেশ ব্যাংকের ভল্টে পরিদর্শন কার্যক্রম পরিচালনা করে শুল্ক গোয়েন্দা।

দেশসংবাদ/এসএম


আরও সংবাদ   বিষয়:  সোনার হেরফের   ভুল   ৪০   ৮০   বাংলাদেশ ব্যাংক  



মতামত দিতে ক্লিক করুন
আরো খবর
সর্বশেষ সংবাদ
আরো খবর >>
সর্বাধিক পঠিত
ফেসবুকে আমরা
English Version
More News...
সম্পাদক ও প্রকাশক
এম. হোসাইন
উপদেষ্টা সম্পাদক
ব্রি. জে. আবদুস সবুর মিঞা (অব.)
যোগাযোগ
ফোন : ০২ ৪৮৩১১১০১-২
মোবা : ০১৭১৩ ৬০১৭২৯, ০১৮৪২ ৬০১৭২৯
ইমেইল : [email protected]
Developed & Maintenance by i2soft