ঢাকা, বাংলাদেশ || মঙ্গলবার, ১৭ সেপ্টেম্বর ২০১৯ || ২ আশ্বিন ১৪২৬
শিরোনাম: ■ জাসদ নেতা মিন্টু গ্রেফতার ■ ফের নির্বাচনের দাবিতে ইসিকে স্মারকলিপি দেবে ঐক্যফ্রন্ট ■ নতুন মন্ত্রীদের শপথ গ্রহণ রোববার ■ বিবিসি’র সেই ভিডিও নিয়ে যা বললেন প্রধানমন্ত্রী ■ বিদেশিদের বিএনপির ভরাডুবির কারণ জানালেন শেখ হাসিনা ■ বিশ্ব গণমাধ্যমে বাংলাদেশের নির্বাচন ■ সংবিধান লঙ্ঘনে ইসির বিচার দাবি খোকনের ■ শপথ গ্রহণে যাচ্ছে না ঐক্যফ্রন্টের সংসদ সদস্যরা! ■ আ’ লীগের দুই গ্রুপের কোন্দলে যুবলীগ নেতা নিহত ■ বিদেশি পর্যবেক্ষক ছিল একেবারেই আইওয়াশ ■ নির্বাচন প্রশ্নবিদ্ধ হওয়ায় গভীর উদ্বেগ টিআইবি’র ■  আ’লীগের জয়জয়কার, মুছে গেল বিরোধীরা
ভাইকে তুলে নিয়ে হত্যা, পালিয়ে বেড়াচ্ছেন অপর দুই ভাই
আব্দুল্লাহ আল জামিল, চট্টগ্রাম :
Published : Monday, 19 November, 2018 at 7:30 PM, Update: 19.11.2018 8:09:08 PM

পুলিশ পরিচয়ে এক ভাইকে তুলে নিয়ে হত্যার পর মামলা আর পুলিশি নির্যাতনের ভয়ে বিগত এক বছর ধরে পালিয়ে বেড়াচ্ছেন আনোয়ার ও দেলোয়ার হোসেন নামের অপর দুই ভাই। 
  
ঢাকা ওয়ারি এলাকার বাসিন্দা ইলেক্ট্রিক ব্যবসায়ী বিএনপি কর্মী আনোয়ার হোসেন ও দেলোয়ার হোসেন বর্তমানে দেশ ছাড়া । তাদের একজন আনোয়ার হোসেন দক্ষিণ আফ্রিকায় আর দেলোয়ার ফ্রান্সে বসবাস করছেন।  ২০১৪ সালের ৫ জানুয়ারির নির্বাচনের পর তাদের পুরা পরিবারের উপর নেমে আসে এক অবর্ননীয় নির্যাতনের করুন চিত্র। বিএনপি’র কর্মী হওয়াই যেন কাল হয়েছে তাদের জীবনে। দুই ভাই সরাসরি বিএনপি’র রাজনীতি করতেন। কিন্তু নিজে রাজনীতির সাথে জড়িত না থাকলেও পরিবারের কারণে শেষ রক্ষা হয়নি দেলোয়ারের। স্ত্রী সন্তান আর পরিবারের অন্যান্য সদস্যদের সাথে দেখা করারও যেন কোন সুযোগ নেই তাঁর।
 
২০১৭ সালের ৫ মার্চ রাতে সাদা পোশাকে পুলিশ পরিচয়ে আনোয়ারের ভাই কামরুল হোসেনকে ওয়ারির দোকান থেকে তুলে নিয়ে যায়। প্রথমে ওয়ারি থানা পুলিশ কামরুলকে গ্রেফতারের কথা বললেও পরে তা অস্বীকার করে। এর পর দীর্ঘ খোজাখুজি করে অবশেষে ২ এপ্রিল শীতলক্ষা নদীতে ভাসমান অবস্থায় কামরুলের মরদেহ পাওয়া যায়।  বর্তমানে ফ্রান্সে অবস্থানকারী দেলোয়ার হোসেন বলেন, ভাইকে হারানোর পরেও আমরা চেষ্টা করেছিলাম কোন মতে নিজেদের ব্যবসা প্রতিষ্ঠান চালিয়ে এলাকায় অবস্থান করবো। কিন্তু তাও আর ভাগ্যে জোটেনি। ভাইয়ের লাশ পাওয়ার কয়েকদিন পর গত বছরের ১৮ এপ্রিল সাদা পোশাকে পুলিশ পরিচয়ে কিছু লোক তাদের ওয়ারির বাসায় হামলা করে। পুলিশ পরিচয়দানকারী এসব লোক জোর করে দেলোয়ারদের বাসায় প্রবেশ করার চেষ্টা করে। এসময় বাড়ীর মহিলাদের আত্মচিৎকারে আশপাশের লোকজন এগিয়ে আসলে পুলিশ পরিচয়দানকারী লোকগুলো চলে যায়।
 
এর পর ভয়ে পালিয়ে নিজের শশুরবাড়ী নোয়াখালী চলে আসে দেলায়ার হোসেন ও তার অপর ভাই আনোয়ার। জীবন বাঁচাতে পরে তারা দালালের মাধ্যমে চলে যান ফ্রান্সে। দীর্ঘ এক বছর প্রবাসে জীবন যাপন করলেও পুলিশের নির্যাতন আর মামলার ভয়ে দেশে ফিরতে পারছেনা দেলোয়ার। নাগরিকত্ব আর ভিসা না থাকায় সেখানেও থাকতে পারছেননা তিনি।

দেলোয়ার বলেন, ২০১৪ সালের নির্বাচনের পর হাজি সেলিম এবং মেয়র সাঈদ খোকনের লোকজন তাদের কাছে ১০ লাথখ টাকা চাঁদা দাবি করে। চাঁদা না দিলে ব্যবসা করতে পারবেনা বলে জানিয়ে দেয়। নিজে সরাসরি রাজনীতি না করলেও বাবা এবং অপর দু ভাই বিএনপি’র সক্রিয় কর্মী ছিলেন। এর পর চাঁদা না দেয়ায় তাদেরকে মিথ্যা মামলায় জড়ানোর হুমকি দেয়া হয়। তখন দোকানের দায়িত্বে ছিলেন দেলোয়ার বড় ভাই কামরুল এবং আনোয়ার। বিষয়টি তারা ওয়ারি মডেল থানাকে জানালেও পুলিশ কোন প্রকার সহযোগিতা করেনি। উল্টো বলে তাদেরকে কোন প্রকার সাহায্য না করতে উপরের নির্দেশ রয়েছে। এর পর একদিন রাতে তারা দোকান বন্ধ করে বাসায় যাওয়ার সময় সাদা পোশাকে একদল পুলিশ এসে বলে দোকানে তল্লাশি করবে। প্রথমে বাধা দিলেও পরে জোর করে পুলিশ তাদের দোকানে তল্লাশি করে । এসময় পুলিশ দেলোয়ারদের দোকানে ৫ পিস ইয়াবা পেয়েছে দাবি করে তাদের তিন ভাইকে থানায় নিয়ে যায়। এর পর সেখানে অমানুষিক নির্যাতন চলে তাদের উপর। নির্যাতনের এক পর্যায়ে দেলোয়ারের হাতের আঙ্গুলের নখ উপড়ে ফেলে। কয়েক দিন ধরে মিথ্যা শিকারোক্তি আদায়ের চেষ্টায় ব্যর্থ হয়ে পুলিশ তাদেরকে রিমান্ডে নেয়। রিমান্ডেও চলে আরেক দফা নির্যাতন। তাতের ব্যর্থ পুলিশ অবশেষে তাদের তিন ভাইকে জেল হাজতে প্রেরণ করে। 

দেলোয়ার জানান, জেল থেকে বের হয়ে পুনরায় ব্যবসা চালু করতে চাইলে এর পর তার ভাই কামরুলকে সাদা পোশাকে পুলিশ তুলে নিয়ে যায়। এক মাস পর শীতলক্ষা নদীতে ভাসমান লাশ মিলে কামরুলের। দেলোয়ার বলেন, দীর্ঘ এক বছর ধরে দেশের বাইরে অবস্থান করছেন জীবনের নিরাপত্তার অভাবে। 

এ বিষয়ে কথা বলতে ওয়ারি মডেল থানায় একাধিকবার ফোন করলেও ওসি সাংবাদিক পরিচয় জেনে ফোন রেখে দেন।

দেশসংবাদ/প্রতিনিধি/এসএম

মতামত দিতে ক্লিক করুন
আরো খবর
সর্বশেষ সংবাদ
আরো খবর >>
সর্বাধিক পঠিত
ফেসবুকে আমরা
সম্পাদক ও প্রকাশক
এফ. হোসাইন
উপদেষ্টা সম্পাদক
ব্রি. জে. আবদুস সবুর মিঞা (অব.)
যোগাযোগ
ফোন : ০২ ৪৮৩১১১০১-২
মোবা : ০১৭১৩ ৬০১৭২৯, ০১৮৪২ ৬০১৭২৯
ইমেইল : [email protected]
Developed & Maintenance by i2soft