ঢাকা, বাংলাদেশ || শনিবার, ২৪ আগস্ট ২০১৯ || ৯ ভাদ্র ১৪২৬
শিরোনাম: ■ বিআরটিসির লাভের গুড় পিঁপড়ায় খায় ■ বঙ্গবন্ধুর নাম ব্যবহার করে ভোটাধিকার কেড়ে নেয়া হয়েছে ■ দেশে দরিদ্র সীমার হার অর্ধেকে নেমেছে ■ রোহিঙ্গাদের নিজ দেশে ফেরত পাঠাতে যুক্তরাষ্ট্র সবই করবে ■ সড়ক দুর্ঘটনায় ফরিদপুরে নিহত ৯ ■ ভাগ্নিকে শ্লীলতাহানিতে বাধা দেয়ায় মামা খুন, গণপিটুনিতে বখাটে নিহত ■ শনিরআখড়ায় ব্রিজ ভেঙে খাদে ট্রাক, বন্ধ যান চলাচল ■ মারা গেলেন অরুণ জেটলি ■ অধ্যাপক মোজাফফরের মরদেহে শ্রদ্ধা জানালেন প্রধানমন্ত্রী ■ সর্বোচ্চ শাস্তি পাবে গ্রেনেড হামলার মূলপরিকল্পনাকারীরা ■ কাশ্মিরজুড়ে ব্যাপক বিক্ষোভ-সংঘর্ষ ■ তিস্তায় গোসলে নেমে ২ শিশুর মৃত্যু
যাবজ্জীবন মানে আমৃত্যু কারাবাস: রিভিউ’র রায় যেকোন দিন
দিদারুল আলম, ঢাকা
Published : Thursday, 11 July, 2019 at 2:13 PM

যাবজ্জীবন মানে আমৃত্যু কারাবাস আপিল বিভাগের এমন অভিমত বিষয়ে পুন:বিবেচনা  (রিভিউ) চেয়ে করা আবেদনের শুনানি শেষ হয়েছে।

এ বিষয়ে রায় যেকোন দিন ঘোষণার জন্য তা  সিএভি (অপেক্ষমান) রেখেছে সুপ্রিমকোর্টের আপিল বিভাগ। প্রধান বিচারপতি সৈয়দ মাহমুদ হোসেনের নেতৃত্বে আপিল বিভাগের পূর্নাঙ্গ বেঞ্চ বিষয়টি শুনানি শেষে রায়টি অপেক্ষমান (এিসএভি) রেখে আদেশ দেয়।

এর আগে গত ১১ এপ্রিল এ বিষয়ে আইনি মতামত নেয়ার জন্য চার আইনজীবীকে এমিকাস কিউরি (আদালতে আইনি মতামত প্রদানকারী) নিয়োগ দেয় আপিল বিভাগ। এমিকাস কিউরিগন তাদের মত দেন।
আদালতে আবেদনের পক্ষে শুনানি করেন সিনিয়র আইনজীবী খন্দকার মাহবুব হোসেন ও শিশির মুহাম্মদ মনির। রাষ্ট্রপক্ষের শুনানিতে ছিলেন এটর্নি জেনারেল মাহবুবে আলম ও ডেপুটি এটর্নি জেনারেল বিশ্বজিৎ দেবনাথ।

মামলার বিবরণে জানা যায়, ২০০১ সালে সাভারে জামান নামের এক ব্যক্তিকে গুলি করে হত্যা করা হয়। একটি হত্যা মামলায় দুই আসামিকে মৃত্যুদন্ড দিয়ে ২০০৩ সালের ১৫ অক্টোবর রায় দেয় বিচারিক আদালত। এই রায়ের বিরুদ্ধে আসামিরা হাইকোর্টে আপিল করেন। তাঁদের মৃত্যুদন্ড অনুমোদনের জন্য ডেথ রেফারেন্স (মৃত্যুদন্ড অনুমোদন) শুনানির জন্য হাইকোর্টে আসে। শুনানি নিয়ে ২০০৭ সালের ৩০ অক্টোবর হাইকোর্টও দুজনের মৃত্যুদন্ড বহাল রাখে। এই রায়ের বিরুদ্ধে আসামিরা আপিল করেন। এরপর ২০১৭ সালের ১৪ ফেব্রুয়ারি আপিল বিভাগের দেয়া রায়ে দুই আসামির মৃত্যুদন্ড কমিয়ে যাবজ্জীবন কারাদন্ড দেয়া হয়। একই সঙ্গে আদালত যাবজ্জীবন মানে আমৃত্যু কারাবাসসহ সাত দফা পর্যবেক্ষন দেয়। আপিল বিভাগের দেয়া এই রায়ের বিরুদ্ধে আসামি আতাউর মৃধা পুনর্বিবেচনার (রিভিউ) আবেদন করেন। এ রিভিউ শুনানিকালে আদালত বিষয়টি নিয়ে মতামত জানতে চার বিশিষ্ট আইনজীবীকে এমিকাস কিউরি হিসেবে নিয়োগ দেয়।

রিভিউ আবেদনের পক্ষে আইনজীবী খন্দকার মাহবুব হোসেন বলেন, যাবজ্জীবন সাজার একটি নির্দিষ্ট মেয়াদ থাকতে হবে। আমাদের আইনে যাবজ্জীবন কারাদন্ড হিসাবে ৩০ বছর বলা আছে। যা রেয়াত পাওয়ার পর সাড়ে ২২ বছর হয়। উন্নত বিশ্বেও সাজার মেয়াদ বলে দেয়া হয়।

দেশসংবাদ/প্রতিনিধি/জেএ

মতামত দিতে ক্লিক করুন
আরো খবর
সর্বশেষ সংবাদ
আরো খবর >>
সর্বাধিক পঠিত
ফেসবুকে আমরা
সম্পাদক ও প্রকাশক
এফ. হোসাইন
উপদেষ্টা সম্পাদক
ব্রি. জে. আবদুস সবুর মিঞা (অব.)
যোগাযোগ
ফোন : ০২ ৪৮৩১১১০১-২
মোবা : ০১৭১৩ ৬০১৭২৯, ০১৮৪২ ৬০১৭২৯
ইমেইল : [email protected]shsangbad.com
Developed & Maintenance by i2soft