ঢাকা, বাংলাদেশ || মঙ্গলবার, ২৩ জুলাই ২০১৯ || ৮ শ্রাবণ ১৪২৬
শিরোনাম: ■ খালেদা জিয়ার মুক্তির দাবিতে বিএনপি’র গণমিছিল ■ সার্জেন্ট গোলাম কিবরিয়ার মৃত্যুতে ১০ কোটি টাকা ক্ষতিপূরণ ■ প্রস্তুতি ম্যাচে দুর্দান্ত শুরু টাইগারদের ■  আদালতে মিন্নির জামিন চেয়ে আবেদন ■ হাসতে হাসতে হাসপাতালে ২৫ শিক্ষার্থী ■ সংকট কাটাতে পুঁজিবাজারে আসছে ৮৫ কোটি টাকা ■ আ.লীগ নেতা শূন্য হলো ঢাকা ■ শান্তিরক্ষা মিশনে বাংলাদেশি সৈনিক নিহত ■ মেহেরপুরে গোলাগুলিতে মাদক কারবারি নিহত ■ ময়মনসিংহে সড়কে প্রাণ দিলেন এএসআই ■ এনামুল বাছির গ্রেফতার ■ দেশব্যাপি ত্রাণ বিতরণে বিএনপি’র ৫ টিম
ইসলামী পর্যটন বিপুল সম্ভাবনাময় একটি খাত
দেশসংবাদ ডেস্ক
Published : Thursday, 11 July, 2019 at 2:48 PM, Update: 11.07.2019 4:02:26 PM

প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা ইসলামী পর্যটন প্রসঙ্গে বলেছেন, ইসলামী পর্যটনের আকার বিশাল। এটা বিপুল সম্ভাবনাময় একটি খাত। ওআইসির ২০১৮ সালের এক প্রতিবেদন অনুযায়ী বিশ্বে মুসলিম ট্যুরিস্টের সংখ্যা ১৫৬ মিলিয়ন; যা ২০২০ সালে বেড়ে দাঁড়াবে ১৮০ মিলিয়ন। একই বছর সারাবিশ্বের জনসংখ্যার ২৬ শতাংশ হবে মুসলিম।

আজ (বৃহস্পতিবার) সকালে রাজধানীর ইন্টারকন্টিনেন্টাল হোটেলে ‘ঢাকা অ্যাজ দ্য ওআইসি সিটি অব ট্যুরিজম-২০১৯’ উদযাপন উপলক্ষে দু’দিনব্যাপী অনুষ্ঠানের উদ্বোধনকালে তিনি এসব কথা বলেন। অনুষ্ঠানে সভাপতিত্ব করেন বেসরকারি বিমান চলাচল ও পর্যটন প্রতিমন্ত্রী মো. মাহবুব আলী। অন্যদের মধ্যে পররাষ্ট্রমন্ত্রী ড. এ কে আব্দুল মোমেন, বেসরকারি বিমান চলাচল ও পর্যটন মন্ত্রণালয় সংক্রান্ত সংসদীয় স্থায়ী কমিটির সভাপতি ওবায়দুল মুক্তাদির এবং ওআইসির সহকারি মহাসচিব মুসা ইলিকায়া বক্তব্য রাখেন। স্বাগত বক্তব্য রাখেন মন্ত্রণালয়ের সচিব মো. মহিবুল হক।

প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা বলেন, ইসলামী পর্যটনকে ‘বিশ্ব বাণিজ্য ব্র্যান্ড’ হিসেবে গড়ে তুলতে হবে। এ জন্য রোডম্যাপ প্রণয়নের প্রয়োজন। এ বিষয়ে রোডম্যাপ তৈরি করতে তিনি ওআইসিভুক্ত রাষ্ট্রের নেতাদের প্রতি আহ্বান জানান। তিনি বলেন, ইসলামী পর্যটনের বিকাশে আন্তঃওআইসি পর্যটক প্রবাহ বৃদ্ধি করার লক্ষ্যে ভিসা সহজীকরণ, বিনিয়োগ বৃদ্ধি, ব্র্যান্ডিং ও মানোন্নয়নের প্রয়োজনীয় উদ্যোগ নিতে হবে।

প্রধানমন্ত্রী বলেন, আমি দৃঢ়ভাবে বিশ্বাস করি যে, ওআইসি সদস্যভুক্ত রাষ্ট্রগুলো পর্যটন খাতের অবকাঠামো ও উন্নয়নমূলক প্রকল্প বাস্তবায়নের জন্য তাদের বেসরকারি খাতকে একক ও যৌথভাবে অংশগ্রহণের জন্য উৎসাহ প্রদান করবে। থমসন-রয়টার্সের এক প্রতিবেদন অনুযায়ী ২০১৫ সালে ইসলামী পর্যটনের বাজার ছিল ১৫১ মিলিয়ন মার্কিন ডলারের, যার মধ্যে ওআইসিভুক্ত দেশগুলোর বাজার ছিল প্রায় ১০৯ বিলিয়ন মার্কিন ডলারের। ইসলামী পর্যটনের বাজার বার্ষিক ৮ দশমিক ৩ শতাংশ হারে বেড়ে ২০২১ সাল নাগাদ ২৪৩ বিলিয়ন মার্কিন ডলারে দাঁড়াবে।

বিকাশমান ইসলামী অর্থনীতির কথা তুলে ধরে প্রধানমন্ত্রী বলেন, ‘ইসলামী অর্থনীতি’ বর্তমানে নবরূপে বিকাশ লাভ করছে। হালাল ফুডস, ইসলামী ফাইন্যান্স, হালাল ফার্মাসিউটিক্যালস এবং প্রসাধনী, হালাল পর্যটন ইত্যাদি ইসলামিক অর্থনীতির ক্রমবর্ধমান খাত।

এ খাতগুলো বিকাশের জন্য ওআইসি সদস্যভুক্ত রাষ্ট্রগুলোর সরকারি ও বেসরকারি উভয় খাতের সহযোগিতা ও অংশীদারিত্ব একান্ত প্রয়োজন।

দেশসংবাদ/এনকে

মতামত দিতে ক্লিক করুন
আরো খবর
সর্বশেষ সংবাদ
আরো খবর >>
সর্বাধিক পঠিত
ফেসবুকে আমরা
সম্পাদক ও প্রকাশক
এফ. হোসাইন
উপদেষ্টা সম্পাদক
ব্রি. জে. আবদুস সবুর মিঞা (অব.)
সম্পাদকীয় কার্যালয়
৮০/২ ভিআইপি রোড, কাকরাইল, ঢাকা-১০০০, বাংলাদেশ।।
ফোন : ০২ ৪৮৩১১১০১-২
মোবা : ০১৭১৩ ৬০১৭২৯, ০১৮৪২ ৬০১৭২৯
ইমেইল : [email protected]
Developed & Maintenance by i2soft