ঢাকা, বাংলাদেশ || মঙ্গলবার, ১৯ নভেম্বর ২০১৯ || ৫ অগ্রহায়ণ ১৪২৬
শিরোনাম: ■ দাম কমতে শুরু করেছে পেঁয়াজের ■ বিদিশাকে নিয়ে প্রেসিডেন্ট পার্কে থাকতে এরিকের জিডি ■ লিবিয়ায় বিমান হামলায় ৫ বাংলাদেশি নিহত, আহত ১৫ ■ রাঙ্গামাটিতে জেএসএস’র দু’গ্রুপের গোলাগুলি, নিহত ৩ ■ কুষ্টিয়ায় মা-ছেলেকে শ্বাসরোধে হত্যা ■ লিফট ছিঁড়ে নিচে আমীর খসরুসহ ১২ বিএনপি নেতা ■ প্রথম দিনেই সংসদে তোপের মুখে বিজেপি (ভিডিও) ■ উপজেলা পর্যায় পর্যন্ত শুদ্ধি অভিযান চলতে থাকবে ■ যশোরে ১৮ রুটে বাস চলাচল বন্ধ, ভোগান্তিতে যাত্রীরা ■ সাবেক ছাত্রলীগ নেতাদের সম্পদ অনুসন্ধান শুরু ■ জব্দই থাকছে মোরশেদ খান ও তার ছেলের ব্যাংক হিসাব ■ সড়ক আইন প্রয়োগে বাড়াবাড়ি না করার নির্দেশ
রংপুরের বদরগঞ্জে সীমাহীন ভোগান্তিতে ভূমি মালিকরা
আফরোজা বেগম, রংপুর
Published : Thursday, 11 July, 2019 at 4:31 PM

রংপুরের বদরগঞ্জে সীমাহীন ভোগান্তিতে ভূমি মালিকরা

রংপুরের বদরগঞ্জে সীমাহীন ভোগান্তিতে ভূমি মালিকরা

রংপুরের বদরগঞ্জ উপজেলা সহকারী কমিশনার (ভূমি)’র কার্যালয় কার্যত অচল হয়ে পড়েছে। ওই কার্যালয়ে মোট ১৬টি পদ থাকলেও ৯টি পদই ফাঁকা রয়েছে। ফলে নামজারিসহ ভূমি সংক্রান্ত অন্যান্য কাজ করতে হিমশিম খেতে হচ্ছে অবশিষ্ট কর্মচারিদের। ফলে সীমাহীন ভোগান্তিতে রয়েছেন ভূমি মালিকরা।

অফিস সুত্রে জানা গেছে- ওই কার্যালয়ে মোট ১৬টি পদ রয়েছে। পদগুলো হলো- সহকারী কমিশনার(ভূমি) একজন, সার্টিফিকেট পেশকার একজন, অফিস সহকারী একজন, প্রসেস সার্ভার দু’জন, অফিস সহায়ক দু’জন, কানুনগো একজন, সার্ভেয়ার একজন, প্রধান সহকারী একজন, নাজির কাম ক্যাশিয়ার একজন, সার্টিফিকেট সহকারী একজন, ক্রেডিট চেকিং কাম সায়রাত সহকারী দু’জন এবং চেইনম্যান দু’জন। ২০১৭সালের ১৩আগস্ট থেকে সহকারী কমিশনার(ভূমি)’র পদটি শূন্য রয়েছে।

এছাড়া কানুনগো, সার্ভেয়ার, প্রধান সহকারী, অফিস সহকারী, নাজির কাম ক্যাশিয়ার, সার্টিফিকেট সহকারী এবং ক্রেডিট চেকিং কাম সায়রাত সহকারীর পদ শূন্য রয়েছে। তবে সার্ভেয়ার ও অফিস সহকারী পদে অন্য উপজেলা থেকে দু’জন অতিরিক্ত দায়িত্ব পালন করছেন। এছাড়া উপজেলা নির্বাহী অফিসার সহকারী কমিশনার(ভূমি)’র অতিরিক্ত দায়িত্ব পালন করছেন। ভুক্তভোগি জমির মালিকরা জানান- অধিকাংশ পদ শূন্য থাকার কারণে নামজারিসহ অন্যান্য কাজে বছরের পর বছর ঘুরতে হচ্ছে।

কারণ নামজারির জন্য সকল প্রক্রিয়া শেষ হলেও দেখা যায় সার্ভেয়ার নেই। আবার সার্ভেয়ার থাকলেও নাজিরের খোঁজ মেলেনা। আবার সার্ভেয়ার ও নাজির থাকলে উপজেলা নির্বাহী অফিসার না থাকার কারণে সকল কাজ আটকে থাকে। কথা হয় উপজেলার মধুপুর ইউনিয়নের জাকির হোসেন ও দামোদরপুর ইউনিয়নের রুহুল আমিনের সাথে। তারা দু’জনই জানান- নামজারির কাজে ঘুরতে ঘুরতে ক্লান্ত হয়েছি আর ঘুরতে ইচ্ছে করছেনা। তারা ক্ষোভ প্রকাশ করে বলেন, এখানে এসে মনে হয় জমি না থাকলেই ভাল হত। একই কথা বলেন নামজারির কাজে আসা অন্যরাও।

বদরগঞ্জ দলিল লেখক সমিতির সভাপতি আব্দুল কুদ্দুস সরকার বলেন, সঠিক সময়ে নামজারি না হওয়ায় দলিল লেখালেখির কাজ অর্ধেকে নেমে এসেছে। এ বিষয়ে জানতে চাইলে উপজেলা নির্বাহী অফিসার নবীরুল ইসলাম বলেন, আমি এই উপজেলায় যোগদান করার পর অনেক কাঠখড় পুড়িয়ে একজন এসিল্যা- পেয়েছি। কিন্তু তিনি যোগদান করেই পাঁচ মাস মেয়াদী  প্রশিক্ষণে চলে গেছেন। তিনি নিয়মিত অফিসে বসতে পারলেই লোকজনের ভোগান্তি অনেকটাই কমে যাবে। এক প্রশ্নের জবাবে তিনি বলেন, জনবল সঙ্কটের কারণে অন্য পদগুলো আপাততঃ পুরণের কোন সম্ভাবনা নেই।

দেশসংবাদ/প্রতিনিধি/জেএ


আরও সংবাদ   বিষয়:  রংপুর   বদরগঞ্জ   উপজেলা   সহকারী   কমিশনার   ভূমি   অচল  



মতামত দিতে ক্লিক করুন
আরো খবর
সর্বশেষ সংবাদ
আরো খবর >>
সর্বাধিক পঠিত
ফেসবুকে আমরা
English Version
More News...
সম্পাদক ও প্রকাশক
এম. হোসাইন
উপদেষ্টা সম্পাদক
ব্রি. জে. আবদুস সবুর মিঞা (অব.)
যোগাযোগ
ফোন : ০২ ৪৮৩১১১০১-২
মোবা : ০১৭১৩ ৬০১৭২৯, ০১৮৪২ ৬০১৭২৯
ইমেইল : [email protected]
Developed & Maintenance by i2soft