ঢাকা, বাংলাদেশ || বৃহস্পতিবার, ১৭ অক্টোবর ২০১৯ || ২ কার্তিক ১৪২৬
শিরোনাম: ■ তুরস্কের কাছে যুক্তরাষ্ট্রের ৫০ পরমাণু বোমা! ■ একটু পানি চেয়েছিল মৃত্যু যন্ত্রনায় ছটফট করতে থাকা আবরার ■ রিমান্ডের প্রথম দিনেই র‍্যাবের কাছে সম্রাট ■ যুবলীগের কোন দুর্নীতিবাজ যেন গণভবনে না আসে ■ টেকনাফে বন্দুকযুদ্ধে ২ মাদক কারবারি নিহত ■ মদিনায় বাসে আগুন, ৩৫ ওমরাহ যাত্রী নিহত ■ সন্ত্রাসীদের আত্মসমর্পণ করতে বললেন স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী ■ বড় ভাইয়ের নির্দেশে আবরারকে ডেকে এনে মারা হয় ■ কুষ্টিয়ায় কৃষক হত্যার দায়ে স্ত্রীসহ চারজনের ফাঁসি ■ সোহরাওয়ার্দীতে সমাবেশ ডেকেছে ঐক্যফ্রন্ট ■ ‘কুড়িগ্রাম এক্সপ্রেস’ উদ্বোধন করলেন প্রধানমন্ত্রী ■ ফের কাশ্মীরে গোলাগুলি, ৩ সন্ত্রাসী নিহত
আমাদের ধর্ষিত সমাজ
জান্নাত আক্তার শ্রাবণী
Published : Sunday, 21 July, 2019 at 2:42 PM, Update: 21.07.2019 4:59:04 PM

জানুয়ারি জানুয়ারি থেকে জুলাই (২০১৯) মাত্র সাত মাস।


এই সাত মাসে ধর্ষনের শিকার আনুমানিক ৫০৩ জন। যার থেকে বাদ পড়ছে না চার মাসের ছোট্ট শিশুটিও।
এটা কোন গল্প নয়, এটা আমাদের স্বাধীন বাংলাদেশের একটি কলঙ্কময় পৃষ্ঠা।

কেন হচ্ছে এই ধর্ষন?
এর উত্তর কি?


খুব সহজ ভাষায় আমাদের সাধু সমাজ উওর দিবে যে উশৃংখল চলাচল, ছোট পোশাক, বেপর্দা চলাচল ধর্ষনের কারন।
তাহলে প্রশ্ন হচ্ছে সায়মার মতন বাচ্চা শিশুটির কোন পোশাকে ধর্ষকের নজর কেড়েছিল?  তার কোন জিনিসটা দেখে ধর্ষকের ফিলিংস জেগে উঠেছিল? সে কি ঠোঁট কামড়িয়ে,  চোখ টিপে, অঙ্গভঙ্গী করে তার কাম ভাষনা প্রকাশ করেছিল? যার জন্য তাকেও ধর্ষিত হতে হয়েছিল, এই অল্প সময়েই পৃথিবী সকল সৌন্দর্যের মায়া ত্যাগ করতে হয়েছে।

আমরা কি আদৌ স্বাধীন? আমরা কি আদৌ নিরাপদ?

না। আমরা স্বাধীন নই, নিরাপদ ও নই, আমরা এক ভয়ংকর সময় পাড় করছি যার প্রতিটা মুহূর্তেই আমাদেরকে আতঙ্কে থাকতে হয় এই বুঝি আমার পালা, এইবার হয়ত আমি ধর্ষিত হব, আমার বেঁচে থাকার মুহূর্ত হয়ত এখানেই শেষ।

ধর্ষকের এত সাহস কোথা থেকে?

ধর্ষকের সাহস বাড়াটাই স্বাভাবিক।  ধর্ষন করে দিব্যি ঘুরে বেড়াচ্ছে না হচ্ছে কোন বিচার না হচ্ছে কোন আইন প্রয়োগ। শুধু মাত্র গুটি কয়েক ধর্ষককে আইনের আওতায় আনা হয় তাও হচ্ছে সোশ্যাল মিডিয়াতে ভাইরাল হওয়ার ফল। কিন্তু প্রতিদিনই প্রতিনিয়ত যে ধর্ষনের শিকার হচ্ছে তার কোন হিসাবই নেই, তা প্রকাশ হওয়ার আগেই মিলিয়ে যায়।
যেখানে ধর্ষকের সর্বোচ্চ শাস্তি হওয়া উচিত সেখানে ধর্ষক দিব্যি আয়াশের সাথে জীবন যাপন করে।
আর ধর্ষিতা সারাজীবন কলঙ্ক বয়ে বেড়ায়, আর প্রতিনিয়তই শাস্তি ভোগ করতে থাকে।যেখানে সমাজ তাকে কিট ভাবে।মত্যুর আগ পর্যন্ত থাকে এই কলঙ্ক বয়ে বেড়াতে হয়।

আমরা কোথাও নিরাপদ নই।
কেন আমরা কি পারি না আমাদের সমাজে নিরাপদে বাস করতে?
আমরা পারি না সম্মানের সাথে জীবন কাটাতে।

কিভাবে মুক্তি পাব এই ধর্ষন নামক অভিশাপ থেকে?

এর উওর এর জন্য, এর সমাধনের জন্য খুব বেশি কষ্ঠ করার প্রয়োজন নেই, শুধু মাত্র আমাদের প্রত্যেকের ঘুমন্ত ও অসচেতন বিবেকবোধ কে জাগ্রত করাই যথেষ্ট।

চলুন আমরা সকলে মিলে একটু নতুন সমজ গড়ি। আমরা আমাদের কুৎসিত ও নোংরা চিন্তা থেকে বের হয়ে একটা সুস্থ ধর্ষনমুক্ত  সমাজ গড়ি।

দেশসংবাদ/জেএ


আরও সংবাদ   বিষয়:  জানুয়ারি   জুলাই   ধর্ষন  



মতামত দিতে ক্লিক করুন
আরো খবর
সর্বশেষ সংবাদ
আরো খবর >>
সর্বাধিক পঠিত
ফেসবুকে আমরা
English Version
More News...
সম্পাদক ও প্রকাশক
এম. হোসাইন
উপদেষ্টা সম্পাদক
ব্রি. জে. আবদুস সবুর মিঞা (অব.)
যোগাযোগ
ফোন : ০২ ৪৮৩১১১০১-২
মোবা : ০১৭১৩ ৬০১৭২৯, ০১৮৪২ ৬০১৭২৯
ইমেইল : [email protected]
Developed & Maintenance by i2soft