ঢাকা, বাংলাদেশ || সোমবার, ২৬ আগস্ট ২০১৯ || ১১ ভাদ্র ১৪২৬
শিরোনাম: ■ ভিটেবাড়ি ফেরত না দিলে মিয়ানমারে যাবে না রোহিঙ্গারা ■ সৌদির বিমান ঘাঁটিতে ড্রোন হামলা ■  রাষ্ট্রায়ত্ত ব্যাংকগুলোকে আর মূলধন দেবে না সরকার ■  পাবলিক বিশ্ববিদ্যালয়ে শিক্ষক নিয়োগ-পদোন্নতির নীতিমালা চূড়ান্ত ■ জাতীয় মহিলা পার্টির সভানেত্রী সালমা, সম্পাদিকা নাজমা ■ রাখাইনে তুমুল সংঘর্ষ, সেনাবাহিনীর বিমান হামলা ■ ২৫ দিনে হাসপাতালে ৪৫ সহস্রাধিক ডেঙ্গু রোগী ■ খেলাপি ঋণ এখনই কমার সুযোগ নেই ■ রাতের অন্ধকারে জামালপুর ত্যাগ করেছেন ডিসি ■ কেড়ে নেয়া হচ্ছে সেই ডিসির শুদ্ধাচার সনদ ■ কিশোর গ্রুপ স্টার বন্ডের ১৭ সদস্যের কারাদণ্ড ■ দুদকে এসে ব্যর্থতার দায় নিলেন সৈয়দ ইফতেখার
বরগুনায় ধর্ষণ মামলায় তিনজনের যাবজ্জীবন কারাদণ্ড
মো:সাগর আকন, বরগুনা :
Published : Tuesday, 6 August, 2019 at 12:07 AM, Update: 06.08.2019 12:09:25 AM

গার্মেন্টস কর্মিকে বিয়ের প্রলোভন দেখিয়ে ধর্ষণ করার অভিযোগ প্রমানিত হওয়ায় তিনজনকে যাবজ্জীবন কারাদণ্ড দিয়েছে আদালত। এর মধ্যে দন্ডপ্রাপ্ত আসামী হাসিবকে যাবজ্জীবন সশ্রম কারাদন্ড ২০ হাজার টাকা জরিমানা অনাদায়ে আরও এক মাসের বিনাশ্রম কারাদন্ড। তার সহযোগী আসামী ইদ্রিস ও হায়দারকে যাবজ্জীবন সশ্রম কারাদন্ডের আদেশ দিয়েছে আদালত। সোমবার দুপুরে বরগুনার নারী ও শিশু নির্যাতন দমন ট্রাইব্যুনালের বিচারক ও জেলা ও দায়রা জজ মো. হাফিজুর রহমান এ রায় ঘোষনা করেন। আসামীরা হল, বরগুনা জেলার পাথরঘাটা উপজেলার মানিকখালী গ্রামের মো. এনছের আলীর ছেলে হাসিব। 

তার সহযোগী একই গ্রামের হায়াত আলীর ছেলে ইদ্রিস ও সোনা মিয়ার ছেলে হায়দার। রায় ঘোষনার সময় আসামী হাসিব ও ইদ্রিস আদালতে উপস্থিত ছিল। অপর আসামী হায়দার পলাতক। আদালত সূত্রে জানা যায়, দন্ডপ্রাপ্ত আসামীদের বাড়ীর পাশে ১৭ বছরের নাবালিক এক গার্মেন্টস কর্মি চট্রগ্রামে কাজ করে। আসামী হাসিবের সঙ্গে মোবাইল ফোনে তার পরিচয়। হাসিব তাকে বিয়ে করার প্রস্তাব দেয়। একই সঙ্গে আসামী ইদ্রিস ও হায়দারও ওই গার্মেন্টস কর্মিকে নিশ্চিত করে ইদ্রিস তাকে বিয়ে করবে। 

আসামীদের আশ্বাসে ওই নাবালিকা তার বাড়ীতে আসে। নাবালিকাকে ২০০৭ সালের ১০ জুলাই রাত ১১ টায় আসামী হাসিবের সঙ্গে বিয়ের আয়োজন করে। ওই রাতে আসামী ইদ্রিস ও হায়দার নাবালিকাকে বাহিরে আসতে বলে। তাদের কথা মত ওই নাবালিকা বাহিরে গেলে অসামী ইদ্রিস ও হায়দারের সহযোগিতায় হাসিব নাবালিকার ঘরের পিছনে নিয়ে তাকে জোর পূর্বক ধর্ষন করে। অন্য দুই আসামী ইদ্রিস ও হায়দার পাহাড়া দেয়। বাদী ওই নাবালিকা ২০০৭ সালের ১৫ জুলাই ওই ট্রাইব্যুনালে মামলা করে। মামলাটি পুলিশ তদন্ত করে দন্ডপ্রাপ্ত তিনজনের বিরুদ্ধে ২০০৭  সালের ২৮ নভেম্বর আদালতে অভিযোগ পত্র দাখিল করেন। আসামী হাসিব বলেন, এই রায়ের বিরুদ্ধে আমরা উচ্চ আদালতে আপীল করবো। রাষ্ট্র পক্ষে মামলা পরিচালনা করেছে বিশেষ পিপি মোস্তাফিজুর রহমান বাবুল।  আসামী পক্ষে মামলা পরিচালনা করেছে কামরুল আহসান মহারাজ।

দেশসংবাদ/প্রতিনিধি/এসআই

মতামত দিতে ক্লিক করুন
আরো খবর
সর্বশেষ সংবাদ
আরো খবর >>
সর্বাধিক পঠিত
ফেসবুকে আমরা
সম্পাদক ও প্রকাশক
এফ. হোসাইন
উপদেষ্টা সম্পাদক
ব্রি. জে. আবদুস সবুর মিঞা (অব.)
যোগাযোগ
ফোন : ০২ ৪৮৩১১১০১-২
মোবা : ০১৭১৩ ৬০১৭২৯, ০১৮৪২ ৬০১৭২৯
ইমেইল : [email protected]
Developed & Maintenance by i2soft