ঢাকা, বাংলাদেশ || সোমবার, ১৬ সেপ্টেম্বর ২০১৯ || ১ আশ্বিন ১৪২৬
শিরোনাম: ■ ভারত মহাসাগরে চীনের ৭ যুদ্ধজাহাজ ■ কতগুলো লক্ষ্য স্থির করে এগিয়ে যাচ্ছি ■ যে কারণে পেঁয়াজের বাজার অস্থিতিশীল ■ ১০ হাজার স্থাপনায় অভিযান চালিয়ে ২৬ টিতে পওয়া গেছে এডিস মশা ■ রংপুর সদর আসন জাপাকে ছেড়ে দিলো আ.লীগ ■ সিনেট থেকে পদত্যাগ চেয়ে শোভনের আবেদন ■ মেট্রোরেলের নিরাপত্তায় পুলিশ ইউনিট গঠনের নির্দেশ ■ ফেরাউন-নমরুদ-হিটলার টিকতে পারেনি, আপনারাও পারবেন না ■ যত বড় নেতাই হোক অপকর্ম করলে ছাড় নেই ■ ছাত্রলীগের নতুন সভাপতি-সম্পাদকের আনুষ্ঠানিক যাত্রা শুরু ■ এবার যুবলীগের পালা ■ নিজ দেশে ফিরতে চীনের সহযোগিতা চাইলেন রোহিঙ্গারা
আত্মকথন ও সাতকাহন
হাসান আল বান্না:
Published : Thursday, 15 August, 2019 at 1:15 AM, Update: 15.08.2019 2:39:02 PM

১. "ওরে হত্যা নয় আজ 'সত্যাগ্রহ' শক্তির উদ্বোধ!"–জাতীয় কবি কাজী নজরুল ইসলামের ঐতিহাসিক কুরবানী কবিতার মর্মকথা দিয়ে শুরু করছি। উৎসব মুখর মধ্য দিয়ে পালিত হলো পবিত্র ঈদ উল আযহা (কোরবানির ঈদ)। সবাইকে কোরবানী পরবর্তী শুভেচ্ছা। ঈদের দিন সকালেই ঈদের সালাত আদায় করে হসপিটালে যাই প্রিয়তমা স্ত্রী ডাক্তার সুমাইয়াকে আনতে। ডেঙ্গু মহামারীতে অস্বাভাবিক রোগী ও ঈদ উপলক্ষে অনেক ডাক্তারদের ছুটি থাকায় ঈদের দিন সকাল পর্যন্ত হসপিটালে ছিলো সে। সাধারণত বন্ধ ও ছুটির দিনগুলোতে প্রিয়তমা স্ত্রীকে পাশে নিয়ে রিকশায় ঘুরতে ভালো লাগে। তাই ঈদের দিন সকালে তাকে হসপিটাল থেকে রিসিভ করে পুরো ফাঁকা শহরে ৭/৮ কিলোমিটার ঘুরে বাসায় ফিরলাম। এবং নিজ হাতে পশু জবাই করার মাধ্যমে ঈদ শুরু করি।

২. পবিত্র ঈদ আযহার দিনেও ভারত শাসিত জম্মু-কাশ্মীরে গুলি চালিয়েছে দেশটির সেনাবাহিনী। বড় বড় কোনো মসজিদ বা প্রধান রাস্তায় দেয়া হয়নি ঈদের জমায়াতের অনুমতি। ঈদের আগে দু’দিন ধরে বলা হচ্ছে ঈদের আগেই কারফিউ শীতল থাকবে। ধীরে ধীরে পরিস্থিতি স্বাভাবিক অবস্থায় আনা হবে। আসলে হয়েছে তার উল্টোটা। রাস্তায় দেখা গেছে পুলিশের গাড়ি মাইকিং করে বেড়াচ্ছে, কেউ যেন কারফিউতে বাড়ি থেকে না বেরোয়। জামিয়া মসজিদ বা হজরতবালের মতো প্রধান মসজিদগুলোতে কোনো বড় ঈদ জামাতের অনুমতি দেয়া হয়নি। মানুষকে বলা হয়েছে, নিজেদের মহল্লার ছোট মসজিদেই যেন তারা ঈদের নামাজ আদায় করেন। নিজস্ব সূত্রের বরাত দিয়ে এমন খবর দিয়েছে বিবিসি। পবিত্র ঈদের দিনে মুসলমানদের উপর এমন আচরণ ক্ষত বিক্ষত করেছে বিশ্ব মুসলমানদের।

৩. বাংলাদেশের কোরবানীতে একটি নির্মম আরেকটি হাস্যকর ঘটনা ঘটেছে। মাদারীপুরে গরু কোরবানির সময় অসাবধানবশত কসাইয়ের হাত থেকে ছুরি ছুটে গিয়ে পেটে ঢুকে এক শিশুর মৃত্যু হয়েছে। ঈদের দিন সোমবার সকালে সদর উপজেলার দুধখালী ইউনিয়নে এ ঘটনা ঘটে। মারা যাওয়া মৌমিতা আক্তার (১০) দুধখালী ইউনিয়নের উত্তর দুধখালী বড়কান্দি গ্রামের আনোয়ার বেপারীর মেয়ে। সে দুধখালী সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের ৪র্থ শ্রেণির ছাত্রী ছিল। এবার হাস্যকর ঘটনাটি হলো টাঙ্গাইল ঘাটাইলে একটি তাগড়া মহিষ জবাই দেওয়ার পূর্বে ছুটে গিয়ে মানুষদের উপর হামলে পড়ে। ফলে ১১ জন গুরুতর আহত হয়। এবং তাগড়া মহিষটি নিয়ন্ত্রণে আনতে পুলিশ কয়েকরাউন্ড গুলি চালায়। অবশ্য ২৬ ঘণ্টা পর চেতনানাশক ওষুধ ছিটিয়ে ধরা হয় সেই মহিষটিকে। 

৪. এবার কোরবানির গরুর দাম খুব বেশি দরপতন হয়নি। ফলে ক্রেতারাও ন্যায্য দামে গরু পায় আর বিক্রেতারাও ন্যায্য দামেও মোটামুটি লাভে গরু বিক্রি করেছে। সাধারণত কোনো বছর গরুর দাম ব্যাপক বৃদ্ধি পায় আবার কোনো বছর গরুর দাম অর্ধেকে নামে। কিন্তু এবারের পশু বেচা কেনায় ভিন্নতা দেখা যায় তা হলো বাজারের ভারসাম্যতা।

৫. পবিত্র কোরবানির ঈদে বাংলাদেশের জাতীয় অর্থনীতিতে একটি বড় ভূমিকা পালন করে কুরবানি পশুর চামড়া। সারাদেশের এই চামড়াগুলো সংগ্রহ করে তা প্রক্রিয়াজাত করে বিদেশে রপ্তানি করে প্রচুর বৈদেশিক মুদ্রা অর্জন করে বাংলাদেশ। কিন্তু গেলো কয়েকবছর ধরে এই শিল্পে ধস নামে। এবার ঈদে কেউ কেউ চামড়া মাটিতে পুঁতে রাখে, কেউ কেউ নদীতে ভাসায়। পাট-শিল্পের ন্যায় চামড়া শিল্পেরও ধ্বংসের পাঁয়তারা চলছে। বিশেষজ্ঞ কেউ কেউ বলতে চান, এর পেছনে বিদেশি ষড়যন্ত্র আছে, তারাই বাংলাদেশের স্থানীয় সিন্ডিকেটের মাধ্যমে এই চামড়া শিল্পের ধ্বংসের মহাযজ্ঞ চলাচ্ছে।

চামড়া শিল্পের ধসের পিছনে আরও নানাকারণ: 
হাজারীবাগ হতে সাভারে শিল্প নগরী স্থানান্তর নিয়ে জটিলতা আর বিশ্ব বাজারের দরপতনে দেশের চামড়া শিল্পের অবস্থান দুর্বল হচ্ছে আর্ন্তজাতিক বাজারে। টানা কয়েক বছর ধরে কমছে রপ্তানি আয়। দীর্ঘমেয়াদী পরিকল্পনা না নিলে ২০২১ সালের মধ্যে ৫ হাজার কোটি টাকা রপ্তানি আয়ের সরকারি লক্ষ্যমাত্রা পূরণের সম্ভাবনা কম বলে শঙ্কা চামড়া খাত সংশ্লিষ্টদের। নানা ধরণের রাসায়নিক পদার্থ মিশিয়ে প্রক্রিয়াজাত করা হয় চামড়া। যার বেশিরভাগই প্রস্তুত করা হয় বিদেশে রপ্তানির জন্য। তবে রপ্তানি উন্নয়ন ব্যুরোর হিসেবে, গত কয়েক বছরে দুর্বল হয়েছে দেশের দ্বিতীয় বৃহত্তম রপ্তানি খাত হিসেবে বিবেচিত চামড়া শিল্প। 
২০১৭-১৮ অর্থবছরে চামড়া ও চামড়াজাত পণ্য থেকে রপ্তানির লক্ষ্যমাত্রা ১৩৮ কোটি ডলারের বিপরীতে আয় হয়েছে ১০৮ কোটি ডলার। যা লক্ষ্যমাত্রার চেয়ে সাড়ে ২২ শতাংশ কম। আর এর আগের অর্থবছরের তুলনায় এ হার ছিল ১২ শতাংশ কম। চলতি অর্থবছরে এই খাত থেকে লক্ষ্যমাত্রা ধরা হয়েছে ১২৮ কোটি ডলার। জানা গেছে,পরিবেশ দূষণের অভিযোগে হাজারি বাগ থেকে ট্যানারি শিল্পকে সাভারে স্থানান্তর করা হয়। কিন্তু সাভারে কেন্দ্রীয় বর্জ্য শোধনাগার নির্মাণের কাজ শেষ না করে কারখানা স্থনান্তর করে। এখনও গ্যাস সংযোগ সময় মত পায়নি তারা। শুধু তাই নয় হাজারিবাগে ২০৫টি কারখানা থাকলেও সাভারে প্লট পেয়েছে মাত্র ১৫০ টি। বাকি ৫৫ টি কারখানার মালিক কোন প্লট পায়নি। এতে করেও এসব কারখানার শ্রমিকরা বেকার হয়ে পড়ে। নির্ধারিত সময়ে ঋণ না পাওয়া এবং নির্মাণ কাজ শেষ না হওয়াতে কারখানা স্থনান্তরের পরেও অনেক প্রতিষ্ঠান উৎপাদনে যেতে পারেনি। এতে করে কয়েক হাজার কোটি টাকা রফতানি অর্ডার বাতিল হয়ে যায়। এতে করে এ খাতে রফতানি অনেক কমে যায়।

৬. পশ্চিমা দেশগুলো সহ সারা পৃথিবীর মুসলমানরা উৎসব মুখর মধ্য দিয়ে পালন করেছে ঈদ। কিন্তু মুসলিম দেশ সিরিয়া ও ইয়েমেনের জনগণের উপর আন্তর্জাতিক বহুজাতিক সাম্রাজ্যবাদীর নগ্ন হামলায় ঈদের আনন্দ ম্লান। এছাড়া অর্ধশতবছর ধরে ফিলিস্তিন ও আরাকানের রোহিঙ্গাদের জীবনেও ঈদ কখনই আসেনা। এবারও পবিত্র কোরবানির ঈদের নামাজে নগ্ন হামলা চালিয়েছে ইসরাইলি বাহিনী। ভারত নিয়ন্ত্রিত কাস্মীরেও এবার থেকে নতুন করে ম্লান হয়েছে ঈদের আনন্দ। শান্তিকামী বিশ্বের রাষ্ট্রসমূহ, জাতিসংঘ আন্তর্জাতিক সংস্থা ও ওআইসি সহ বিশ্বের সকল শান্তিকামী মানবতাকে ঐক্যবদ্ধ হতে হবে ফিলিস্তিন, রোহিঙ্গা, সিরিয়া, ইয়েমেন ও কাশ্মীর ইস্যুতে।

৭. আবারো নতুন পৃথিবীর স্বপ্ন দেখি যে পৃথিবীর সকল মানবতা পাবে শান্তি!  আবারো নতুন ভোরের স্বপ্ন দেখি যে ভোর হবে পৃথিবীর সকল জুলুমবাজ ও সাম্রাজ্যবাদী আগ্রাসন মুক্ত! নতুন একটি বসুন্ধরা আঁকি যে বসুন্ধরায় থাকবেনা কোন সন্ত্রাস আর উগ্রবাদ, সেটা কোন উগ্র ধর্মীয় গোষ্ঠীর ছ্দ্মাবরণে হোক অথবা কোন রাষ্ট্রীয় সন্ত্রাসের প্রশ্রয়ে হোক। বেলাশেষে চাই সুন্দর এক বসুন্ধরা।

লেখক: কথা সাহিত্যিক ও সাংবাদিক 

দেশসংবাদ/এসএস

মতামত দিতে ক্লিক করুন
আরো খবর
সর্বশেষ সংবাদ
আরো খবর >>
সর্বাধিক পঠিত
ফেসবুকে আমরা
সম্পাদক ও প্রকাশক
এফ. হোসাইন
উপদেষ্টা সম্পাদক
ব্রি. জে. আবদুস সবুর মিঞা (অব.)
যোগাযোগ
ফোন : ০২ ৪৮৩১১১০১-২
মোবা : ০১৭১৩ ৬০১৭২৯, ০১৮৪২ ৬০১৭২৯
ইমেইল : [email protected]
Developed & Maintenance by i2soft