ঢাকা, বাংলাদেশ || রবিবার, ২২ সেপ্টেম্বর ২০১৯ || ৭ আশ্বিন ১৪২৬
শিরোনাম: ■ ফাইনালের আগে দুর্দান্ত জয় পেলো বাংলাদেশ ■ শেখ হাসিনার অ্যাকশন শুরু হয়েছে ■ সেই জিকে শামীম ১০ দিনের রিমান্ডে ■ ভূতের আড্ডায় বাতি জ্বালিয়ে যা দেখলেন অভিযানকারী! ■ সব ধরনের মানুষের জন্য পার্ক ও মাঠের ব্যবস্থা করা হচ্ছে ■ খালেদাকে দেশের সর্বোচ্চ চিকিৎসা দেয়া হচ্ছে ■ যুবলীগের চেয়ারম্যান-সম্পাদকের পদত্যাগ দাবি ■ সাত বডিগার্ডসহ যুবলীগ নেতা শামীমকে গুলশান থানায় হস্তান্তর ■ মিসরজুড়ে একনায়ক সিসির বিরুদ্ধে বিক্ষোভ ■ ক্যাসিনো অভিযানে কেঁচো খুঁড়তে সাপ বেরোচ্ছে ■ অন্যায়-দুর্নীতির বিরুদ্ধে অভিযান চলবে ■ রূপপুর বালিশকাণ্ডে সবচেয়ে বেশি অর্থ হাতিয়ে নেন জিকে শামীম
দলীয় শৃঙ্খলাভঙ্গকারীদের শিগগিরই চিঠি পাঠাবে আ.লীগ
দেশসংবাদ, ঢাকা :
Published : Tuesday, 3 September, 2019 at 11:03 PM, Update: 04.09.2019 10:11:09 AM


উপজেলা নির্বাচনে দলীয় শৃঙ্খলাভঙ্গকারী বিদ্রোহী ও তাদের মদদদাতাদের বিরুদ্ধে আগামী ৮ সেপ্টেম্বর থেকে চিঠি পাঠানো শুরু হবে বলে জানিয়েছেন আওয়ামী লীগ সাধারণ সম্পাদক এবং সড়ক পরিবহন ও সেতুমন্ত্রী ওবায়দুল কাদের।

তিনি বলেন, আমাদের কিছু সিদ্ধান্ত আছে, শোকের মাসে যা বাস্তবায়ন স্থগিত রাখি। এর মধ্যে সবচেয়ে গুরুত্বপূর্ণ বিষয় হল- আমাদের কার্যনির্বাহী কমিটির মিটিংয়ের উপজেলা নির্বাচনে বিদ্রোহী ও তাদের মদদদাতাদের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা গ্রহণের সিদ্ধান্ত নিয়েছিলাম। সেই সিদ্ধান্ত আগস্ট মাসে স্থগিত রেখেছিলাম। আমরা সিদ্ধান্ত তো নিয়েই রেখেছি, এর বাস্তবায়নের কার্যক্রম ৮ সেপ্টেম্বর থেকে শুরু হবে।

মঙ্গলবার সন্ধ্যায় আওয়ামী লীগ সভাপতির ধানমণ্ডির রাজনৈতিক কার্যালয়ে দলের সম্পাদকমণ্ডলীর সভা শেষে সংবাদ সম্মেলনে তিনি এ সব কথা বলেন।

ওবায়দুল কাদের আরও বলেন, ৮ তারিখের আগে আমরা বিভাগীয় দায়িত্বপ্রাপ্ত সাংগঠনিক সম্পাদক ও যুগ্ম-সাধারণ সম্পাদকদের নিয়ে আলোচনা করব। কোনো ভুল হচ্ছে কিনা, কেউ বাদ পড়ছে কিনা? বা নতুন কোনো সংযোজনের প্রয়োজন আছে কিনা? এই বিষয়গুলো খতিয়ে দেখব। যাতে এই শাস্তিমূলক ব্যবস্থাটা নিখুঁত হয়। সে জন্যই আমরা বিষয়গুলো ভালোভাবে খতিয়ে দেখার সিদ্ধান্ত নিয়েছি। তবে ৮ তারিখ থেকে আমরা চিঠি দেয়া শুরু করব।

আগামী ১৪ সেপ্টেম্বর আওয়ামী লীগের পরবর্তী কার্যনির্বাহী কমিটির বৈঠক অনুষ্ঠিত হবে জানিয়ে দলটির সাধারণ সম্পাদক বলেন, ১৪ সেপ্টেম্বর আমাদের দলের কার্যনির্বাহী কমিটির মিটিং অনুষ্ঠিত হবে। আমাদের দলের প্রধান প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার সঙ্গে এই বিষয়ে আমার আলোচনা হয়েছে। কিন্তু সময়টা এখন নির্দিষ্ট করে বলতে পারছি না। সেদিন আমরা আমাদের পরবর্তী সাংগঠনিক করণীয় বিস্তারিত আলোচনা করব। কার্যনির্বাহী কমিটির মিটিংয়ের পরে আমরা আবার সারা দেশে আমাদের সাংগঠনিক সফর শুরু করব।

তিনি আরও বলেন, ৭ তারিখে রংপুর উপ-নির্বাচনের মনোনয়ন বোর্ডের সভা হবে। এ ছাড়া সামনে ৭টি উপজেলা, তিনটি পৌরসভা নির্বাচন হবে। ওই দিন এ সব নির্বাচনে আমাদের দলীয় প্রার্থীদের বিষয়ে সিদ্ধান্ত নেয়া হবে এবং প্রার্থী ঘোষণা করা হবে।

আওয়ামী লীগের জাতীয় সম্মেলনের পর প্রায় তিন বছর পেরিয়ে গেছে, এর মধ্যে মাত্র একটি সাংগঠনিক জেলার সম্মেলন হয়েছে- এটা সাংগঠনিক স্থবিরতা কিনা সাংবাদিকদের এমন প্রশ্নের জবাবে ওবায়দুল কাদের বলেন, আমাদের যে সব জেলার মেয়াদ উত্তীর্ণ সেগুলো নিয়ে আমাদের কার্যনির্বাহী কমিটির মিটিংয়ে আলাপ-আলোচনা হবে এবং চূড়ান্ত সিদ্ধান্ত নেয়া হবে।

সে ক্ষেত্রে আওয়ামী লীগের পরবর্তী জাতীয় কাউন্সিল অক্টোবরেই হবে কিনা এমন প্রশ্নের জবাবে তিনি বলেন, সেটাও কার্যনির্বাহী কমিটির মিটিংয়ে আলোচনা হতে পারে। আমি এই মুহূর্তে কিছু বলতে পারছি না। সম্মেলন করার জন্য আমাদের নেত্রী যখনই সিদ্ধান্ত নেবেন তখনই সম্মেলন হবে।

সব শেষ উপজেলা নির্বাচনে যারা বিদ্রোহী তাদের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেয়া হবে। কিন্তু এর আগেও যারা বিদ্রোহী ছিল তাদের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেয়া হবে কিনা- এমন প্রশ্নের জবাবে তিনি বলেন, তখন জাতীয় সংসদ নির্বাচনকে সামনে রেখে আমাদের নেত্রী (শেখ হাসিনা) সাধারণ ক্ষমা করেছিলেন। সে কারণে এই বিষয়গুলো বাদ দেয়া হয়েছিল। কিন্তু পরবর্তীত সময়ে আমরা সিদ্ধান্ত নিয়েছি। `ডিসিপ্লিন ব্রেক’ করলে, তার বিরুদ্ধে ব্যবস্থা না নিলে এই প্রবণতা বাড়ে। সে কারণে আমরা সিদ্ধান্ত নিয়েছি। কেউ `ডিসিপ্লিন ব্রেক’করলে তাদের বিরুদ্ধে সাংগঠনিক ব্যবস্থা নেয়া হবে।

আওয়ামী লীগের কেন্দ্রীয় নেতাদের বিরুদ্ধে বিদ্রোহীদের মদদ দেয়ার অভিযোগ রয়েছে- তাদের বিরুদ্ধে আওয়ামী লীগ কী ভাবছে? এমন প্রশ্নের জবাবে দলের সাধারণ সম্পাদক বলেন, কে কী করেছে, এটা তো বিচ্ছিন্নভাবে ব্যবস্থা নেয়া যাবে না। যাদের বিরুদ্ধে অভিযোগ আছে, তাদের শোকজ করা হবে। সেখানে তারা তো অভিযোগের জবাব দেবে।

অভিযুক্তদের বিরুদ্ধে কী ধরনের শাস্তিমূলক ব্যবস্থা নেয়া হবে জানতে চাইলে তিনি বলেন, শোকজের জবাবগুলো আগে আমাদের হাতে আসুক। তারপর কে কী অপরাধ করেছে তা দেখে ব্যবস্থা নেয়া হবে।

অপর এক প্রশ্নের জবাবে সেতুমন্ত্রী বলেন, আসাম দিয়ে আমরা বিচার করছি না। `সেন্ট্রালি ইন্ডিয়ান গভর্নমেন্টের’যে সিদ্ধান্ত সে সিদ্ধান্তে আমাদের সঙ্গে তাদের যে `এক্সচেঞ্জ’ হয়েছে, তাতে আমরা যেটা পেয়েছি সেটা হচ্ছে যে, তারা আগামী চার মাসে যাদেরকে `স্ট্রেটলেস’ হিসেবে `ডিক্লেয়ার’করা হয়েছে তাদের অ্যাপিল করার সুযোগ আছে। আমরা সাধারণভাবে জানি `সেভেনটি ওয়ানের’পর বাংলাদেশের কোনো লোক ইন্ডিয়াতে যায়নি বা `মাইগ্রেট’ করেনি।

তিনি আরও বলেন, কাজেই আমাদের এখনই নিজেদের ঘাড়ে নিজেরা দোষ চাপানোর কোনো কারণ নেই। এ নিয়ে আমাদের তারা আশ্বস্ত করেছেন আমাদের উদ্বিগ্ন হওয়ার কোনো বিষয় এখন পর্যন্ত নেই। কারণ বিষয়টির `লিগ্যাল প্রসেস কমপ্লিট করে' সিদ্ধান্ত আকারে আসতে আরও সময় নেবে। সে পর্যন্ত কী দাঁড়ায় সেটা আমাদের চিন্তা-ভাবনা করেই সিদ্ধান্ত নিতে হবে। এ সময় মিয়ানমারের রোহিঙ্গা পরিস্থিতি ও আসামের অনাগরিক পরিস্থিতি একইভাবে দেখার সুযোগ নেই বলেও মন্তব্য করেন তিনি।

কাদের আরও বলেন, রোহিঙ্গাদের সঙ্গে এই বিষয়টা এক করে দেখার কোনো সুযোগ নেই। যাদের `স্ট্রেটলেস’ হিসেবে `ডিক্লেয়ার’ করা হয়েছে, তারা তো ভারতেই বাস করছিল। তারা ভারতেরই নাগরিক। এদেরকে ভারত এখনই ড্রপ আউট করবে এমন সিদ্ধান্ত ভারত সরকার করেনি। কাজেই আমরা আগেই কেন অহেতুক উদ্বেগের মধ্যে থাকব। রোহিঙ্গা ইস্যুর সঙ্গে এর কোনো সম্পর্কও নেই। মিয়ানমার রোহিঙ্গাদের তাড়িয়ে দিয়েছে। আমরা একটা প্রক্রিয়ার মধ্যে দিয়ে তাদের প্লেইজ করছি। আমরা এই বিষয়টাকে `চ্যালেঞ্জ্য’ হিসেবে নিয়েছি। এতে আমরা আন্তর্জাতিকভাবে মিয়ানমারকে যতটা `পেসার’ দেয়ার যত উপায় আছে সব পথেই আমরা অগ্রসর হচ্ছি। অনেক সময় অনেক কৌশলও আছে। মিয়ানমারের ওপর চাপ আরও জোরদার হবে।

সংবাদ সম্মেলনের আওয়ামী লীগের যুগ্ম-সাধারণ সম্পাদক মাহবুবউল আলম হানিফ, জাহাঙ্গীর কবির নানক, আবদুর রহমান, সাংগঠনিক সম্পাদক আফম বাহাউদ্দিন নাসিম, বিএম মোজাম্মেল, একেএম এনামুল হক শামীম, মুহিবুল হাসান চৌধুরী নওফেল, শ্রমবিষয়ক সম্পাদক হাবিবুর রহমান সিরাজ, বিজ্ঞান ও প্রযুক্তিবিষয়ক সম্পাদক প্রকৌশলী আবদুস সবুর, দফতর সম্পাদক ড. আবদুস সোবহান গোলাপ, ধর্মবিষয়ক সম্পাদক শেখ মোহাম্মদ আবদুল্লাহ, কৃষিবিষয়ক সম্পাদক ফরিদুন্নাহার লাইলীসহ সম্পাদক মণ্ডলীর অন্য সদস্যরা উপস্থিত ছিলেন।

দেশসংবাদ/এসআই

মতামত দিতে ক্লিক করুন
আরো খবর
সর্বশেষ সংবাদ
আরো খবর >>
সর্বাধিক পঠিত
ফেসবুকে আমরা
সম্পাদক ও প্রকাশক
এফ. হোসাইন
উপদেষ্টা সম্পাদক
ব্রি. জে. আবদুস সবুর মিঞা (অব.)
যোগাযোগ
ফোন : ০২ ৪৮৩১১১০১-২
মোবা : ০১৭১৩ ৬০১৭২৯, ০১৮৪২ ৬০১৭২৯
ইমেইল : [email protected]
Developed & Maintenance by i2soft