ঢাকা, বাংলাদেশ || শনিবার, ২৯ ফেব্রুয়ারী ২০২০ || ১৬ ফাল্গুন ১৪২৬
শিরোনাম: ■ যেভাবে ব্যবসায়ীদের ফাঁদে ফেলতেন পাপিয়া (ভিডিও) ■ দিল্লির সমস্যা সমাধান করুন ■ নোয়াখালীতে সড়ক দূর্ঘটনায় শিক্ষা অফিসার নিহত ■ ৬ দেশকে পর্যটন ভিসা দিচ্ছে না সৌদি আরব ■ ইউরোপমুখী শরণার্থীদের সীমান্ত খুলে দিল তুরস্ক ■ করোনা সতর্কতায় ইরানে জুমার জামাত বাতিল ■ মোদিকে কোনভাবেই বাংলাদেশে ঢুকতে দেয়া হবে না ■ তুরস্কের পাল্টা হামলায় ১৬ সিরীয় সেনা নিহত ■ আপনারা কী ডাক্তার, ট্রিটমেন্টের কী বুঝেন? ■ পাপিয়ার ককটেল পার্টিতে নিয়মিত আসতো রুশ-থাই সুন্দরীরা ■ পাপিয়ার গডফাদারদের খুঁজছে গোয়েন্দারা ■ দিল্লির বিক্ষোভ-সহিংসতায় নিহত বেড়ে ৪২
রেডিও রোশনি
আফগান নারীদের বাতিঘর
দেশসংবাদ ডেস্ক
Published : Monday, 9 September, 2019 at 10:03 AM, Update: 09.09.2019 10:10:21 AM

আফগান নারীদের বাতিঘর

আফগান নারীদের বাতিঘর

বুলেটের বদলে কথা। না, কোনো সমঝোতা বা আলোচনার কথা নয়। মুক্তির গান, জাগরণের গল্প। ভয়-কুসংস্কারে ডুকরে মরা আফগান নারী সমাজের আলোর পথের দিশারী। সন্ত্রাসবাদীদের রক্তচক্ষু, খুনের হুমকি উপেক্ষা করে বুকে অদম্য সাহস নিয়ে টানা দশ বছরের সংগ্রাম এক আফগান নারীর।

পর্দাপ্রথার বাইরে বেরিয়ে শুধু পুরুষের কাঁধে কাঁধ মিলিয়ে কাজই নয়, একটি রেডিও স্টেশন তৈরি করে ফেলেছেন সাদিকা শেরজাই। তার হাতে তৈরি ‘রেডিও রোশনি’ এখন আলো ছড়াচ্ছে উত্তর আফগানিস্তানের তালেবান অধ্যুষিত কুন্দুজ শহরে।

২০০৮ সালে তালেবান সন্ত্রাসের ভয়ে কাঁটা গোটা আফগানিস্তান। এমনকি প্রশাসনও তাদের সমঝে চলে। নারীদের বাড়ির বাইরে যাওয়া নিষেধ। নিজের মতামত ব্যক্ত করাও প্রায় একটা অপরাধের পর্যায়ে পড়ে। পুরুষের হাতের পুতুল হয়ে ঘরকুনো দিন কাটানোর মতো অবস্থা আফগান নারীদের। এমনই সময়ে যেন শিকল ছিঁড়ে আবির্ভূত হলেন সাদিকা শেরজাই। বিবিসি।

নারীদের চিরবঞ্চনার কথা প্রকাশ করে তাদের মুক্তিপথের সন্ধান দেবে বলে তৈরি করলেন একটি রেডিও স্টেশন। নাম রাখলেন- ‘রেডিও রোশনি’। সেখানে নারীদের অধিকারের কথা প্রচার করতেন তিনি। এ কাজ যে সহজ হবে না, সে বিষয়ে ধারণা ছিল সাদিকার।

তাই রেডিও স্টেশন সম্প্রচার হওয়ার প্রায় সঙ্গে সঙ্গে তালেবান জঙ্গিরা তাকে প্রথম রেডিও স্টেশন বন্ধ, তারপর হত্যার হুমকি দিতে থাকে। এমনও বলা হয় যে, সাদিকা এতটাই খারাপ কাজ করছেন যে, আমেরিকা ধ্বংস করার আগেও জঙ্গিদের কর্তব্য তাকে খুন করা।

সাদিকা নিরাপত্তার জন্য আফগান সরকারের দ্বারস্থ হন এবং ফেরেন ব্যর্থ হয়ে। বুঝতে পারেন, সরকার তাকে নিরাপত্তা দিতে পারবে না। এক বছরের মধ্যেই বিপর্যয়টা নেমে আসে।

২০০৯ সালে রকেট লঞ্চার ছুড়ে রেডিও স্টেশন উড়িয়ে দেয়ার চেষ্টা করে তালেবানরা। তখনকার মতো বন্ধ হয়ে যায় সাদিকার রেডিও রোশনি। কিন্তু ওই কিছুদিন মাত্র। তারপর আবারও ফিরে আসেন অসম সাহসী এই নারী।

রেকর্ডিং স্টুডিও থেকে মাইক্রোফোন হাতে কণ্ঠ ছেড়ে বলেন, ‘আমরা হুমকি দিই না। স্বাধীন হওয়ার পাঠ দিই।’ তারপর থেকে বেশ চলছিল রেডিও রোশনি। স্থানীয় পুরুষদের কটাক্ষ, হুমকি, একঘরে করে দেওয়া- এসবের মাঝেও রেডিও রোশনি পৌঁছে গিয়েছিল কুন্দুজের নারীমহলে।

প্রথমবার কবজা করতে না পেরে ২০১৫ সালে কুন্দুজ দখলের পর রেডিও রোশনি স্টেশনে ফের বড়সড় হামলা চালায় তালেবান। সাদিকাকে ফোন করে হুমকি দেয়া হয়। তিনি কর্মীদের নিয়ে কর্মস্থল থেকে পালিয়ে যান। এরপর জঙ্গিরা রেডিও স্টেশনে ঢুকে সব যন্ত্রপাতি চুরি করে, মাইন পুঁতে দিয়ে যায়, যাতে স্টেশনটিই উড়ে যায়। সব জানতে পেরে সাদিয়া বিস্ফোরক বিশেষজ্ঞদের সাহায্য নেন। তারা মাইন নিষ্ক্রিয় করে স্টেশনটি বাঁচান। তবে ততক্ষণে সম্প্রচার করার পরিকাঠামো নষ্ট হয়ে গেছে।

তারপর শুরু হয় আরেক সংগ্রাম। এখন রেডিও রোশনি পুরোপুরি নারীদের দখলে। কর্মীরাও নারী। সম্প্রচারিত অনুষ্ঠানের সিংহভাগই নারীদের জন্য। কুন্দুজের রেডিও রোশনি এখন শুধু একমাত্র বিনোদনমূলক শ্রাব্য মাধ্যমই নয়, আফগান নারীদের মুক্তির পথ, স্বাধীন হওয়ার ঠিকানা।

দেশসংবাদ/এনকে


আরও সংবাদ   বিষয়:  রেডিও রোশনি   বুলেট   আফগান নারী  



মতামত দিতে ক্লিক করুন
আরো খবর
সর্বশেষ সংবাদ
আরো খবর >>
সর্বাধিক পঠিত
ফেসবুকে আমরা
English Version
More News...
সম্পাদক ও প্রকাশক
এম. হোসাইন
উপদেষ্টা সম্পাদক
ব্রি. জে. (অব.) আবদুস সবুর মিঞা
এনামুল হক
যোগাযোগ
ফোন : ০২ ৪৮৩১১১০১-২
মোবা : ০১৭১৩ ৬০১৭২৯, ০১৮৪২ ৬০১৭২৯
ইমেইল : [email protected]
Developed & Maintenance by i2soft