ঢাকা, বাংলাদেশ || বুধবার, ১৬ অক্টোবর ২০১৯ || ১ কার্তিক ১৪২৬
শিরোনাম: ■ বালিশকাণ্ডে গণপূর্তের ১৬ কর্মকর্তা বরখাস্ত ■ ফেনীতে ‘বন্দুকযুদ্ধে’ ৩৭ মামলার আসামি নিহত ■ বিশ্বকাপ বাছাইপর্বে ভারতের সাথে বাংলাদেশের ড্র ■ ডিসেম্বরে বহুল প্রত্যাশিত ই-পাসপোর্ট উদ্বোধন ■ সম্রাট মারা গেলে দায় নেবে কে? ■ আবরার হত্যাকাণ্ডে কূটনীতিকদের বিবৃতি ‘অহেতুক’ ■ মেডিকেল ভর্তি পরীক্ষার ফল প্রকাশ ■ আন্দোলনের সমাপ্তি টানল বুয়েটের শিক্ষার্থীরা ■ থমথমে বুয়েট, আন্দোলন নিয়ে সিদ্ধান্ত বিকাল ৫ টায় ■ মিয়ানমারকে ৫০ হাজার রোহিঙ্গার তালিকা হস্তান্তর ■ ১০ দিনের রিমান্ডে সম্রাট ■ মানবতাবিরোধী অপরাধে ৫ জনের মৃত্যুদণ্ড
যে কারণে পেঁয়াজের বাজার অস্থিতিশীল
দেশসংবাদ ডেস্ক
Published : Monday, 16 September, 2019 at 6:48 PM, Update: 16.09.2019 8:52:54 PM

পেঁয়াজের বাজার ভারতের নিয়ন্ত্রণে থাকায় দেশের বৃহত্তম স্থলবন্দর সোনামসজিদে পেঁয়াজের দাম অস্থিতিশীল অবস্থা বিরাজ করছে। এতে করে বাংলাদেশি ব্যবসায়ীরা দাম পড়ে যাওয়ার ভয়ে আমদানি কমিয়ে দিয়েছে।

এদিকে, বন্দরে গত শনিবার (১৪ সেপ্টেম্বর) থেকে এলসি ভ্যালু বেড়ে ৮৫২ ডলার নির্ধারিত হওয়ায় পেঁয়াজের আমদানি ব্যয় বেড়ে গেছে। এতে করে বন্দরে প্রতি কেজি পেঁয়াজের দাম পড়ছে ৭৩ টাকা করে। এলসি ভ্যালুর প্রভাবে গত শনিবার ১৫টি, রোববার ৩৪টি পেঁয়াজ ভর্তি ট্রাক বন্দরে প্রবেশ করায় পেঁয়াজের দাম ৩৬-৪০ টাকা থেকে বেড়ে ৫৫-৬০ টাকায় বৃদ্ধি পায়। তবে রোববার ভারত থেকে ৮৬টি পেঁয়াজের ট্রাক বন্দরে প্রবেশ করায় সোমবার পেয়াঁজের দাম কেজি প্রতি ১০ টাকা কমে যায়।

খাদিজা এন্টারপ্রাইজের স্বত্বাধিকার আজিজুল ইসলাম বলেন, পেঁয়াজের সরবরাহ ঠিক থাকলে দাম বাড়বে না। কিন্তু পেঁয়াজের বাজার ভারতীয়রা নিয়ন্ত্রণ করায় এবং আকস্মিকভাবে রপ্তানি কমিয়ে দেওয়ায় বাংলাদেশে দাম অস্থিতিশীল থাকছে। এতে করে ব্যবসায়ীরা পেঁয়াজ আমদানিতে লসের আশঙ্কায় আতঙ্কিত থাকছেন। পাশাপাশি আগের দেওয়া এলসিগুলোর বিপরীতে ভারতের কাস্টমস কর্তৃপক্ষ পেঁয়াজ রপ্তানির অনুমতি না দেওয়ায় বিপাকে পড়েছে পেঁয়াজ আমদানিকারকরা।

পেঁয়াজ আমদানিকারকরা জানান, আগে ৩০০ ইউএস ডলারে প্রতি টন পেঁয়াজ আমদানি হলেও শনিবার থেকে প্রতি মেট্রিকটন পেঁয়াজ ৮৫২ মার্কিন ডলারে আমদানি করতে হবে বলে জানায় ভারতীয় কৃষিপণ্য মূল্য নির্ধারণকারী সংস্থ্যা ‘ন্যাপিড’। তবে আগের এলসি করা পেঁয়াজ নতুন রেটের পেঁয়াজের সঙ্গে সমন্বয় করে আমদানি করার সুযোগ দেওয়া হবে বলে জানায় ভারতীয় ওই সংস্থাটি।

এদিকে, স্থানীয় পেঁয়াজ বিক্রেতারা জানান, রপ্তানিমূল্য বাড়িয়ে দেওয়ায় দেশের মধ্যে প্রভাব পড়তে শুরু করেছে। গত সপ্তাহে স্থানীয় ব্যবসায়ীরা বন্দরে প্রতিকেজি পেঁয়াজ ৩৬-৪০ টাকা পাইকারি মূল্যে কিনলেও সে পেয়াঁজ রোববার বেড়ে হয় ৫৫-৬০ টাকা। এতে করে চাঁপাইনবাবগঞ্জের বাজারেও প্রভাব পড়েছে আমাদানি করা পেঁয়াজের দাম। জেলার অধিকাংশ হাট বাজারে খুচরা পেঁয়াজ বিক্রি হচ্ছে ৭০-৭৫ টাকা কেজি দরে। তবে বন্দরে রোববার আমদানিকরা পেয়াঁজের দাম কেজি প্রতি ১০ টাকা কমার দাবি করলেও খুচরা বাজারে এর কোনো প্রভাব পড়েনি।

শুক্রবার (১৩ সেপ্টেম্বর) ভারত এলসি ভ্যালু বাড়িয়ে দেওয়ার আগে গত সপ্তাহের শেষ তিন দিনে সোনামসজিদ স্থলবন্দর দিয়ে ভারত থেকে ১৮৯ ট্রাক ভর্তি পেঁয়াজ আমদানি হয় বলে জানান সোনামসজিদ স্থলবন্দর পানামা পোর্ট লিঙ্কের ডেপুটি পোর্ট ম্যানেজার মাইনুল ইসলাম।

দেশসংবাদ/এসআই


আরও সংবাদ   বিষয়:  পেঁয়াজ   চাঁপাইনবাবগঞ্জ   ভারত  



মতামত দিতে ক্লিক করুন
আরো খবর
সর্বশেষ সংবাদ
আরো খবর >>
সর্বাধিক পঠিত
ফেসবুকে আমরা
English Version
More News...
সম্পাদক ও প্রকাশক
এম. হোসাইন
উপদেষ্টা সম্পাদক
ব্রি. জে. আবদুস সবুর মিঞা (অব.)
যোগাযোগ
ফোন : ০২ ৪৮৩১১১০১-২
মোবা : ০১৭১৩ ৬০১৭২৯, ০১৮৪২ ৬০১৭২৯
ইমেইল : [email protected]
Developed & Maintenance by i2soft