ঢাকা, বাংলাদেশ || মঙ্গলবার, ১৫ অক্টোবর ২০১৯ || ৩০ আশ্বিন ১৪২৬
শিরোনাম: ■ মেক্সিকোতে মাদক মাফিয়াদের হামলায় ১৪ পুলিশ নিহত ■ হাইপ্রোফাইল দুর্নীতিবাজদের বিরুদ্ধে অভিযানে নামছে দুদক ■ তুরস্কের ওপর যুক্তরাষ্ট্রের নিষেধাজ্ঞা আরোপ ■ সুন্দরবনে র‌্যাবের সঙ্গে ‘বন্দুকযুদ্ধে’ ৪ বনদস্যু নিহত ■ হবিগঞ্জে ‘বন্দুকযুদ্ধে’ ১৩ মামলার আসামি নিহত ■ আ.লীগের দু’গ্রুপের সংঘর্ষে নিহত ১ ■ আজ থেকে আবারও আন্দোলনে নামছে বুয়েট শিক্ষার্থীরা ■ আবরারের হত্যাকারীদের সর্বোচ্চ শাস্তি নিশ্চিতের আশ্বাস ■ ছাত্রদল সভাপতি-সম্পাদকসহ অর্ধশতাধিক নেতা-কর্মীর বিরুদ্ধে মামলা ■ যুবলীগের নতুন নের্তৃত্বে আলোচনায় যারা ■ ড. ইউনূসের গ্রেফতারি পরোয়ানা হাইকোর্টে স্থগিত ■ দুদক চেয়ারম্যানের পদত্যাগ চাইলেন তাপস
ভারতে পেঁয়াজের রপ্তানিমূল্য বৃদ্ধি প্রভাব পড়েছে দেশীয় বাজারে
আহম্মদ আলী শাহিন, বেনাপোল
Published : Thursday, 19 September, 2019 at 6:06 PM

ভারতীয় কৃষিপণ্য মূল্য নির্ধারণকারী সংস্থা 'ন্যাপেড' শুক্রবার হঠাৎ করে পেঁয়াজের রপ্তানিমূল্য বাড়িয়ে ৮৫৫ মার্কিন ডলার নির্ধারণ করায় বেনাপোল বন্দর দিয়ে পেয়াজ আমদানী বন্ধের পথে। যার প্রভাব পড়েছে দেশীয় বাজারে।

দেশের বৃহত্তম স্থলবন্দর বেনাপোল। এ বন্দর দিয়ে প্রতিদিন অন্যান্য পন্যের সাথে পেয়াজও আমদানী হয়ে থাকে। প্রতিদিন এ বন্দর দিয়ে ৬০ থেকে ৭০ ট্রাক পেয়াজ আমদানী হতো। এখন যে পেয়াজ আমদানী হয়ে আসছে সেটা অনেক আগের এলসি খোলা ছিল।  এতদিন প্রতি মেট্রিক টন পেঁয়াজ ৩০০ থেতে ৪১০ মার্কিন ডলারে আমদানি করা হলেও এখন থেকে প্রতি মেট্রিক টন পেঁয়াজ ৮৫৫ মার্কিন ডলারে ব্যবসায়ীদের আমদানি করতে হবে। হঠাৎ করে ভারতে পেয়াজের রফতানী মুল্য বৃদ্ধি করায় বেনাপোল বন্দর দিয়ে পেয়াজ আমদানী বন্ধের পথে।

এখন প্রতিদিন ১ থেকে ২ ট্রাক পেয়াজ আমদানী হচ্ছে। বর্তমানে প্রতি কেজি পেঁয়াজ আমদানিতে খরচ পড়ছে ৫২ থেকে ৫৩ টাকা। আর পাইকারী বাজারে সেটা বিক্রি হচ্ছে ৫৪ থেকে ৫৫ টাকা দরে। আর খুচরা বাজারে সেই পেঁয়াজ বিক্রি হচ্ছে ৬০ টাক। ভারত সরকার পেঁয়াজের রপ্তানিমূল্য বাড়িয়ে দেওয়ায় দেশের খোলাবাজারে পেঁয়াজের দাম কয়েক দিনের ব্যবধানে কেজিতে বেড়েছে প্রায় ১৫ টাকা।

১২ সেপ্টেম্বর পর্যন্ত প্রতি মেট্রিক টন পেঁয়াজ আমদানি হয়েছে ৪১০ মার্কিন ডলারে। সে সময় কেজি প্রতি পেঁয়াজের দাম ছিল ৪০ থেকে ৪২ টাকা। ভারতের স্থানীয় বাজারে পেঁয়াজ সঙ্কট থাকায় বাংলাদেশে পেঁয়াজ রফতানি বন্ধ করতেই পেঁয়াজ আমদানিতে মূল্য দ্বিগুণ করা হয়েছে বলে দাবি করছেন ভারতীয় ব্যবসায়ীরা। তবে বাংলদেশী ব্যবসায়ীদের অভিযোগ পেঁয়াজ মৌসুমে প্রতিবারেই ভারত এ কাজ করে থাকে। শুধু পেঁয়াজ না প্রতিটি খাদ্যদ্রব্যে এ কাজটি করে ভারত।

ভারতের পেট্রাপোল বন্দরের রফতানিকারক প্রতিষ্ঠান মা স্বরশতি এজেন্সির স্বত্বাধিকারী বাপ্পা মজুমদার জানান, বন্যার কারণে গত এক মাসের ব্যবধানে ভারতে পেঁয়াজের দাম বৃদ্ধি পেয়েছে। সে সময় পেঁয়াজ রফতানিতে কোনো নিষেধাজ্ঞা না থাকায় ভারতের বাজারে পেঁয়াজের মূল্য আরও বৃদ্ধি পেয়েছে। এখন বাজারে পেঁয়াজের মূল্য সহনশীল রাখতেই ভারত সরকারের কৃষিপণ্য মূল্য নির্ধারণকারী সংস্থা 'ন্যাপেড রফতানি মূল্য বাড়িয়ে দিয়েছে।

বেনাপোলের পেয়াজ আমদানী কারক ও সিএন্ডএফ ব্যবসায়ীরা বলেন, ভারত সরকার বাংলাদেশে পেঁয়াজ রফতানি বন্ধ করতেই কৌশল হিসাবে রফতানি মূল্য দ্বিগুণ করেছে। এমন চলতে থাকলে দেশে পেঁয়াজের দাম বাড়তে থাকবে। তবে সে দেশের সরকার যদি তাদের সিদ্ধান্ত পরিবর্তন করে তবে বাজার মূল্য আবার আগের জায়গায় ফিরে আসবে।

গত ১ সেপ্টেম্বর থেকে ১৬ সেপ্টেম্বর পর্যন্ত ভারত থেকে মাত্র ১ হাজার ২০২ মেট্রিক টন পেঁয়াজ আমদানি হয়েছে। মূল্য বৃদ্ধির পর পেঁয়াজ আমদানি কিছুটা কমে গেছে। তবে বাংলাদেশী অনেক আমদানিকারকের এলসি ভারতের রপ্তানীকারকদের কাছে পড়ে আছে। অনেকে বাড়তি মূল্য এ্যমানমেন্ড করে পেঁয়াজ আমদানি করছেন। বেনাপোল স্থলবন্দর দিয়ে ভারত থেকে পেঁয়াজ আমদানি অনেক কম হচ্ছে। পেঁয়াজের আমদানি গতিশীল রাখতে বন্দর ও  কাস্টম হাউজ ২৪ ঘন্টা খোলা আছে।

দেশসংবাদ/এসকে


আরও সংবাদ   বিষয়:  প্রভাব   পড়েছে   দেশীয়   বাজারে  



মতামত দিতে ক্লিক করুন
আরো খবর
সর্বশেষ সংবাদ
আরো খবর >>
সর্বাধিক পঠিত
ফেসবুকে আমরা
English Version
More News...
সম্পাদক ও প্রকাশক
এম. হোসাইন
উপদেষ্টা সম্পাদক
ব্রি. জে. আবদুস সবুর মিঞা (অব.)
যোগাযোগ
ফোন : ০২ ৪৮৩১১১০১-২
মোবা : ০১৭১৩ ৬০১৭২৯, ০১৮৪২ ৬০১৭২৯
ইমেইল : [email protected]
Developed & Maintenance by i2soft