ঢাকা, বাংলাদেশ || বুধবার, ১৬ অক্টোবর ২০১৯ || ১ কার্তিক ১৪২৬
শিরোনাম: ■ বালিশকাণ্ডে গণপূর্তের ১৬ কর্মকর্তা বরখাস্ত ■ ফেনীতে ‘বন্দুকযুদ্ধে’ ৩৭ মামলার আসামি নিহত ■ বিশ্বকাপ বাছাইপর্বে ভারতের সাথে বাংলাদেশের ড্র ■ ডিসেম্বরে বহুল প্রত্যাশিত ই-পাসপোর্ট উদ্বোধন ■ সম্রাট মারা গেলে দায় নেবে কে? ■ আবরার হত্যাকাণ্ডে কূটনীতিকদের বিবৃতি ‘অহেতুক’ ■ মেডিকেল ভর্তি পরীক্ষার ফল প্রকাশ ■ আন্দোলনের সমাপ্তি টানল বুয়েটের শিক্ষার্থীরা ■ থমথমে বুয়েট, আন্দোলন নিয়ে সিদ্ধান্ত বিকাল ৫ টায় ■ মিয়ানমারকে ৫০ হাজার রোহিঙ্গার তালিকা হস্তান্তর ■ ১০ দিনের রিমান্ডে সম্রাট ■ মানবতাবিরোধী অপরাধে ৫ জনের মৃত্যুদণ্ড
নন্দীগ্রামে গাছে গাছে মাল্টা, মনে নতুন স্বপ্ন
মো: ফিরোজ কামাল ফারুক, নন্দীগ্রাম (বগুড়া)
Published : Tuesday, 24 September, 2019 at 2:41 PM

মাল্টা ভালো লাগে না এমন মানুষ পাওয়া কঠিন। মাল্টা চাষের সাফল্যে রঙিন কৃষকের মন। সবুজ পাতার ফাঁকে ফাঁকে ঝুলছে ফিকে সবুজ বর্ণের এসব লোভনীয় মাল্টা ও কমলা। দুই বছরেই পান সফলতা। আর এতেই তিনি নতুন করে স্বপ্ন দেখছেন।

ভিটামিন‘সি’ সমৃদ্ধ একটি রসালো ফল হচ্ছে মাল্টা। ফলটি এক সময় বাংলাদেশের পাহাড়ি অঞ্চলে চাষ হলেও এখন আর পাহাড়ে সীমাবদ্ধ নেই। ইতিমধ্যে এ দেশের আবহাওয়ায় মাল্টা চাষ করে সফলতা পেয়েছেন বগুড়ার নন্দীগ্রাম উপজেলার ৩নং ভাটরা ইউনিয়নের টাকুরাই গ্রামের আবু বক্কর সিদ্দিক।

নন্দীগ্রাম উপজেলার মাটি অনেক উর্বর এর করণে মাল্টা চাষের উজ্জল সম্ভবনা রয়েছে বলে কৃষি বিভাগ জানিয়েছেন। আবু বক্কর সিদ্দিকের বাগানে মাল্টায় নেই কোনো ফরমালিন, নেই কোন ঝুঁকি। তাই এই উপজেলায় মাল্টাও হতে পারে অধিক জনপ্রিয়। কৃষক প্রশিক্ষণ ও উদ্ধুব্ধকরণের মাধ্যমে মাল্টা চাষের ব্যাপক সম্ভাবনা দেখা দিয়েছে। মাল্টা ব্যাপকহারে চাষ হলে নন্দীগ্রাম উপজেলায় অর্থনৈতিকভাবে বিপ্লব সাধিত হবে বলে কৃষি বিভাগসহ উদ্যোক্তারা আশা করছেন।

চাষি আবু বক্কর সিদ্দিক জানান, মাটি চাষ উপযোগী ও লাভজনক হওয়ার কারণে মাল্টা চাষ শুরু হয়েছে। আর এ মাল্টা চাষে উদ্বুদ্ধ করেছে কৃষি বিভাগ। মাল্টা বাগানে ফল ধরেছে। ২০১৭ সালে নিজ গ্রামে ৫৪ শতক জমির উপর গড়ে তোলেন তার মাল্টা বাগান। এটাই এই উপজেলার সর্বপ্রথম মাল্টার বাগান বলে তার দাবি। তার বাগানে পাকিস্থানী জাতের ২১৫ টি মাল্টা গাছ লাগানো হয়েছে।

ওই একই জমিতে সাথী ফসল হিসেবে রয়েছে ২৩৫ টি থাই পিয়ারা, ২২০ টি থাই লেবু, ২০টি আম গাছ, ৫ টি কমলা, ১২০০ টি লিচু গাছসহ বিভিন্ন প্রজাতির ফলের গাছ। চারা রোপণের দুই বছরেই মাল্টা ধরা শুরু করেছে। মাল্টার ২১৫ টি গাছেই ফল এসেছে। এ ছাড়া একটি কমলা গাছে শতাধিক কমলা ধরেছে। সেই সব গাছে ৫ টা থেকে ৫০ টি পর্যন্ত মাল্টা ধরেছে। এরই মধ্যে পাকতে শুরু করেছে, যা এলাকায় ব্যাপক সাড়া জাগিয়েছে। ইতিমধ্যে এক লাখ টাকার মাল্টা ও কমলা বিক্রি করেছেন বলে মাল্টা চাষী আবু বক্কর জানান।

এ প্রসঙ্গে উপজেলা কৃষি অফিসার মুহা: মশিদুল হক বলেন, ‘আবু বক্কর সিদ্দিক একজন মডেল চাষি। মাল্টা চাষ করে সে তাক লাগিয়ে দিয়েছে।’ মাল্টা চাষের এই সফলতা আগামীতে কৃষককে আরো অনুপ্রেরণা যোগাবে এমনটাই মনে করি আমরা।

দেশসংবাদ/প্রতিনিধি/এনকে


আরও সংবাদ   বিষয়:  নন্দীগ্রামে গাছে গাছে মাল্টা  



মতামত দিতে ক্লিক করুন
আরো খবর
সর্বশেষ সংবাদ
আরো খবর >>
সর্বাধিক পঠিত
ফেসবুকে আমরা
English Version
More News...
সম্পাদক ও প্রকাশক
এম. হোসাইন
উপদেষ্টা সম্পাদক
ব্রি. জে. আবদুস সবুর মিঞা (অব.)
যোগাযোগ
ফোন : ০২ ৪৮৩১১১০১-২
মোবা : ০১৭১৩ ৬০১৭২৯, ০১৮৪২ ৬০১৭২৯
ইমেইল : [email protected]
Developed & Maintenance by i2soft