ঢাকা, বাংলাদেশ || সোমবার, ১৭ ফেব্রুয়ারী ২০২০ || ৫ ফাল্গুন ১৪২৬
শিরোনাম: ■ পুলিশের যখন যেটা প্রয়োজন প্রধানমন্ত্রী সেটাই দিয়েছেন ■ বিএনপির ঘাড়ে সওয়ার হওয়া ড. কামাল বিচ্ছিন্ন হয়ে পড়েছে ■ টাওয়ার রেডিয়েশন বেঁধে দেয়া মানদণ্ডের নিচে আছে ■ করোনাভাইরাসের প্রথম প্রতিষেধক পেল যুক্তরাষ্ট্র! ■ বাংলাদেশ-মিয়ানমারের বিরোধ স্বামী-স্ত্রীর ঝগড়ার মতো ■ কাতারে বাণিজ্য ও শ্রমবাজারের নতুন সম্ভাবনা ■ ডাকসুতে আর নির্বাচন করবেন না ভিপি নুর ■ ট্রাম্পের ভারত সফরের আগে ইমরান খানের প্রশংসায় যুক্তরাষ্ট্র ■ করোনাভাইরাসে মৃতের সংখ্যা বেড়ে ১৭৭০ ■ ব্যাংক ঋণ নিয়ে পলাতকদের শান্তিতে ঘুমাতে দেব না ■ মুজিববর্ষে বাড়ি পাবেন ১৪ হাজার অস্বচ্ছল মুক্তিযোদ্ধা ■ ইরাকে মার্কিন দূতাবাসের কাছে সামরিক ঘাঁটিতে হামলা
রামপাল বিদ্যুৎ প্রকল্প বন্ধসহ সুন্দরবন রক্ষায় ৫ দাবি
দেশসংবাদ ডেস্ক
Published : Saturday, 5 October, 2019 at 8:43 PM, Update: 05.10.2019 9:51:28 PM

রামপাল বিদ্যুৎ প্রকল্প বন্ধসহ সুন্দরবন রক্ষায় ৫ দাবি

রামপাল বিদ্যুৎ প্রকল্প বন্ধসহ সুন্দরবন রক্ষায় ৫ দাবি

অবিলম্বে সুন্দরবন বিধ্বংসী রামপাল বিদ্যুৎ প্রকল্প বন্ধের দাবি জানিয়েছে সুন্দরবন রক্ষা জাতীয় কমিটি।

কমিটি বলছে, বিশ্বব্যাপী অধিক তাপমাত্রা, বরফ গলা, ঝড়, বন্যার প্রেক্ষাপটে জাতিসংঘের মহাসচিব বর্তমান পরিস্থিতিকে ‘জলবায়ু জরুরি অবস্থা' বলে অভিহিত করেছেন। সারা বিশ্ব যখন জলবায়ু পরিবর্তনজনিত মহা সংকট নিয়ে ব্যস্ত তখন খোঁড়া যুক্তির ভিত্তিতে দেশে তথাকথিত বিদ্যুৎ ঘাটতি নিরসনের নামে কয়লা বিদ্যুৎকেন্দ্র স্থাপন করে চলেছে। অথচ কয়লা হচ্ছে সবচেয়ে নিকৃষ্ট জ্বালানি, আর ভালো কয়লা একটি নিকৃষ্ট মিথ্যাচার।

‘ইউনেস্কোর ৪৩তম সভার সব সুপারিশ বাস্তবায়ন, সুন্দরবনের পাশে রামপালসহ সব শিল্প নির্মাণ প্রক্রিয়া বন্ধ ও সমগ্র দক্ষিণ-পশ্চিমাঞ্চলের কৌশলগত পরিবেশ সমীক্ষা সম্পন্নের’ দাবিতে আয়োজিত সংবাদ সম্মেলনে রামপপাল বিদ্যুৎ প্রকল্প বাতিলসহ মোট পাঁচ দফা দাবি উত্থাপন করা হয়।

শনিবার (৫ অক্টোবর) সকাল সাড়ে ১০টায় রাজধানীর ডিআরইউর সাগর-রুনি মিলনায়তনে এ সংবাদ সম্মেলন করে সুন্দরবন রক্ষা জাতীয় কমিটি।

সংবাদ সম্মেলনে লিখিত বক্তব্য পাঠ ও দাবি উত্থাপন করেন সুন্দরবন রক্ষা জাতীয় কমিটির আহ্বায়ক অ্যাডভোকেট সুলতানা কামাল।

দাবিগুলো হচ্ছে:
১. অবিলম্বে রামপাল বিদ্যুৎ প্রকল্প বাতিল ও দেশের সমুদ্র উপকূলজুড়ে পরিকল্পিত কয়লা বিদ্যুৎকেন্দ্র বাতিলের মাধ্যমে বিকল্প জ্বালানীর পরিকল্পনা গ্রহণ

২. সুন্দরবনের বাফার জোন, কোর জোন ও বনের নিকটবর্তী সব কল-কারখানা ও এলপিজি কারখানা বন্ধ

৩. লাল ক্যাটাগরির শিল্পকে কলমের খোঁচায় সবুজ করণের অবৈজ্ঞানিক, অসৎ ও বেআইনি কাজ বন্ধ

৪. ইউনেস্কোর সব নির্দেশনার পূর্ণ বাস্তবায়ন নিশ্চিত এবং

৫. সমগ্র দক্ষিণ পশ্চিম বাংলাদেশের কৌশলগত পরিবেশ সমীক্ষার কার্যসীমা নির্ধারণ এবং সমীক্ষার সব স্তরে নৈতিক ও বৈজ্ঞানিক স্বচ্ছতা নিশ্চিত করা।

এ সুলতানা কামাল বলেন, বাংলাদেশ হচ্ছে বিশ্ব নিন্দিত কয়লার ভাগাড়। উন্নয়ন বা বিদ্যুতের জন্য কয়লা এমনকি কোনো জীবাশ্ম জ্বালানিরই প্রয়োজন নেই। রাষ্ট্র পরিচালকদের মন পরিষ্কার থাকলেই বিকল্প জ্বালানি চোখে পড়বে। ইচ্ছে করলেই সুন্দরবনসহ সারা দেশের অন্য বনরাজি, নদী, উপকূল, জলাশয়, বাতাস সব কিছুকে বাঁচিয়েই উন্নয়নের পথে এগুতে পারি। দেশ হতে পারে অনিন্দ্য প্রকৃতির মধ্যে এক উন্নয়নের মডেল। সরকার এ মডেল গ্রহণ করলে সুন্দরবনসহ সব বন ও পরিবেশ রক্ষার মাধ্যমে উন্নয়ন কাজে আমরা সরকারের পাশে থাকবো।

সংবাদ সম্মেলনে অন্যান্যের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন, সুন্দরবন রক্ষা জাতীয় কমিটির সদস্য রুহিন হোসেন প্রিন্স, বাংলাদেশ পরিবেশ আন্দোলনের (বাপা) সাধারণ সম্পাদক ড. মো. আব্দুল মতিন এবং ওয়াটার কিপারস বাংলাদেশের সমন্বয়কারী ও বাপার যুগ্ম সম্পাদক শরীফ জামিল।

দেশসংবাদ/এসকে


আরও সংবাদ   বিষয়:  রামপাল   বিদ্যুৎ   প্রকল্প   



মতামত দিতে ক্লিক করুন
আরো খবর
সর্বশেষ সংবাদ
আরো খবর >>
সর্বাধিক পঠিত
ফেসবুকে আমরা
English Version
More News...
সম্পাদক ও প্রকাশক
এম. হোসাইন
উপদেষ্টা সম্পাদক
ব্রি. জে. (অব.) আবদুস সবুর মিঞা
এনামুল হক
যোগাযোগ
ফোন : ০২ ৪৮৩১১১০১-২
মোবা : ০১৭১৩ ৬০১৭২৯, ০১৮৪২ ৬০১৭২৯
ইমেইল : [email protected]
Developed & Maintenance by i2soft