ঢাকা, বাংলাদেশ || বৃহস্পতিবার, ১৭ অক্টোবর ২০১৯ || ২ কার্তিক ১৪২৬
শিরোনাম: ■ সন্ত্রাসীদের আত্মসমর্পণ করতে বললেন স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী ■ বড় ভাইয়ের নির্দেশে আবরারকে ডেকে এনে মুখে কাপড় দিয়ে মারা হয় ■ সোহরাওয়ার্দীতে সমাবেশ ডেকেছে ঐক্যফ্রন্ট ■ ‘কুড়িগ্রাম এক্সপ্রেস’ উদ্বোধন করলেন প্রধানমন্ত্রী ■ ফের কাশ্মীরে গোলাগুলি, ৩ সন্ত্রাসী নিহত ■ জাপানে টাইফুন হাগিবিসে মৃতের সংখ্যা বেড়ে ৭৩ ■ বালিশকাণ্ডে গণপূর্তের ১৬ কর্মকর্তা বরখাস্ত ■ ফেনীতে ‘বন্দুকযুদ্ধে’ ৩৭ মামলার আসামি নিহত ■ বিশ্বকাপ বাছাইপর্বে ভারতের সাথে বাংলাদেশের ড্র ■ ডিসেম্বরে বহুল প্রত্যাশিত ই-পাসপোর্ট উদ্বোধন ■ সম্রাট মারা গেলে দায় নেবে কে? ■ আবরার হত্যাকাণ্ডে কূটনীতিকদের বিবৃতি ‘অহেতুক’
হালুয়াঘাটে ধর্ষণের ঘটনা আড়াল করতে গিয়ে ধর্ষক ধরা
মোঃ আজিজুর রহমান ভূঁঞা বাবুল, ময়মনসিংহ
Published : Thursday, 10 October, 2019 at 5:15 PM

ময়মনসিংহের হালুয়াঘাটে চতুর্থ শ্রেনির এক শিশু শিক্ষার্থীকে পঁয়ষট্টি বছরের বৃদ্ধ তোফাজ্জল হোসেন আরবী পড়ানোর সময় বাড়িতে একা পেয়ে ধর্ষণের পর এ ঘটনা আড়াল করতে ধর্ষিতা ও তার পরিবারের বিরুদ্ধে মিথ্যা অভিযোগ করতে এসে হালুয়াঘাট থানা পুলিশের হাতে ধরা পড়ে আটক হয়েছেন।

সোমবার (০৭ অক্টোবর) দুপুরে হালুয়াঘাট উপজেলার বোয়ালমারা গ্রামে ওই বৃদ্ধের ধর্ষণের শিকার হয় নয় বছর বয়সের চতুর্থ শ্রেনির শিক্ষার্থী ওই শিশুটি। পুলিশ পরে ধর্ষককে গ্রেফতার দেখিয়ে ময়মনসিংহ আদালতে প্রেরণ করে।

পুলিশ ও স্থানীয় সূত্রে জানা যায়,চলতি মাসের শুরু থেকে হালুয়াঘাট উপজেলার বোয়ালমারা গ্রামের মৃত আব্দুল জব্বার মুন্সির ছেলে পঁয়ষট্টি বছরের বৃদ্ধ তোফাজ্জল হোসেন একই গ্রামের ঔই শিশুটিকে কায়দা পড়ানোর (আরবী) জন্য শিশুটির বাড়িতে আসতেন।

সোমবার (০৭ অক্টোবর) দুপুরে তোফাজ্জল আরবী পড়াতে ওই শিশুটির বাড়িতে যান। এ সময় শিশুটির মা-বাবা বাড়িতে না থাকার সুযোগে ঘরের দরজা বন্ধ করে জোর করে শিশুটিকে ধর্ষণ করে তোফাজ্জল। পরে শিশুটির ডাকচিৎকারে তার বোন ও পাশের বাড়ির লোকজন এসে ধর্ষক তোফাজ্জলকে হাতে-নাতে ধরে আটক করেন। তারপর এলাকার মাতাব্বরদের সহায়তায় পাঁচ লক্ষ টাকা দেওয়ার আশ্বাসে ধর্ষণের ঘটনাটি ধামাচাপা দেয়ার চেষ্টা করেছিলেন ধর্ষক তোফাজ্জল।

কিন্তু নতুন বুদ্ধি এঁটে ধর্ষিতা শিশু ও তার পরিবারের বিরুদ্ধে উল্টো মিথ্যা অভিযোগ দিয়ে ফাঁসাতে ধর্ষক তোফাজ্জল হোসেন মঙ্গলবার (০৮ অক্টোবর) দুপুরে হালুয়াঘাট সার্কেলের সিনিয়র সহকারী পুলিশ সুপার কার্যালয়ে এসে সিনিয়র সহকারী পুলিশ সুপার আলমগীর পিপিএম এর নিকট ধর্ষিতা শিশু ও তার পরিবারের বিরুদ্ধে পাঁচ লক্ষ টাকার মিথ্যা আভিযোগ করেন।

এ অভিযোগটি শুনার পর তাৎক্ষণিক সিনিয়র সহকারী পুলিশ সুপার আলমগীর পিপিএম ঘটনাস্থলে দুইজন পুলিশ পরির্দশককে ঘটনার সত্যত্যা যাচাই করতে পাঠান। কিন্তু পরে পুলিশ পরির্দশকদ্বয় ধর্ষণের ঘটনার তথ্য পাওয়ায় ধর্ষক তোফাজ্জল হোসেনকে আটক করেন। পরে এ ঘটনায় ধর্ষিতা শিশুর বাবা বাদী হয়ে হালুয়াঘাট থানায় মামলা দায়ের করেন।

এ ব্যাপারে সিনিয়র সহকারী পুলিশ সুপার মোঃ আলমগীর (পিপিএম) জানান, ‘ধর্ষক তোফাজ্জল নিজের অপরাধ ডাকতে তার কাছে অভিযোগ করতে এসেছিলেন। বিষয়টি সন্দেহ হওয়ায় দ্রুত তদন্তের মাধ্যমে সত্য ঘটনা উদ্ঘাটন করা হয়েছে।’

হালুয়াঘাট থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) বিপ্লব কুমার বিশ্বাস জানান, ‘এ ঘটনায় মেয়ের বাবা বাদি হয়ে থানায় মামলা করেছেন। আটককৃত ব্যক্তির বিরুদ্ধে মামলার পর গ্রেফতার দেখিয়ে ময়মনসিংহ আদালতে প্রেরণ করা হয়েছে। এছাড়াও শিশুটিকে স্বাস্থ্য পরীক্ষার জন্য ময়মনসিংহ মেডিকেল কলেজ (মমেক)হাসপাতালে পাঠানো হয়েছে বলে আরো জানান তিনি।

দেশসংবাদ/প্রতিনিধি/এনকে


আরও সংবাদ   বিষয়:  হালুয়াঘাট   ধর্ষণের ঘটনা   ধর্ষক ধরা  



মতামত দিতে ক্লিক করুন
আরো খবর
সর্বশেষ সংবাদ
আরো খবর >>
সর্বাধিক পঠিত
ফেসবুকে আমরা
English Version
More News...
সম্পাদক ও প্রকাশক
এম. হোসাইন
উপদেষ্টা সম্পাদক
ব্রি. জে. আবদুস সবুর মিঞা (অব.)
যোগাযোগ
ফোন : ০২ ৪৮৩১১১০১-২
মোবা : ০১৭১৩ ৬০১৭২৯, ০১৮৪২ ৬০১৭২৯
ইমেইল : [email protected]
Developed & Maintenance by i2soft