ঢাকা, বাংলাদেশ || শুক্রবার, ২১ ফেব্রুয়ারী ২০২০ || ৯ ফাল্গুন ১৪২৬
শিরোনাম: ■ ময়মনসিংহে সড়ক দুর্ঘটনায় নিহত ৪ ■ জাতীয় হ্যান্ডবল দলের গোলরক্ষক সোহান নিহত ■ পদ্মা সেতুতে ২৫তম স্প্যান, দৃশ্যমান ৩৭৫০ মিটার ■ হুবেইতে এক দিনেই ১১৫ জনের মৃত্যু ■ খালেদা জিয়ার সঙ্গে স্বজনদের সাক্ষাৎ ■ চীনে চলছে নির্বিচারে পোষা প্রাণী হত্যা ■ যুক্তরাষ্ট্রের ইতিহাসে ১ম মুসলিম পুলিশ প্রধান (ভিডিও) ■ নারায়ণগঞ্জ জেলা বিএনপি’র কমিটি বিলুপ্ত ■ কাশিমপুর কারাগারে হাজতির মৃত্যু ■ রূপগঞ্জে বন্দুকযুদ্ধে মাদক ব্যবসায়ী নিহত ■ শহীদ মিনারে জনতার ঢল ■ ট্রাম্পের উপদেষ্টা রজার স্টোনকে ৪০ মাসের কারাদণ্ড
ভেড়ামারায় নদীতে খাঁচায় মাছ চাষীদের প্রশিক্ষণ কর্মশালা
ইসমাইল হোসেন বাবু, কুষ্টিয়া
Published : Sunday, 19 January, 2020 at 8:02 PM

ভেড়ামারায় নদীতে খাঁচায় মাছ চাষীদের প্রশিক্ষণ কর্মশালা

ভেড়ামারায় নদীতে খাঁচায় মাছ চাষীদের প্রশিক্ষণ কর্মশালা

জায়কার অর্থায়নে ভেড়ামারা উপজেলায় উন্নয়ন প্রকল্পের (ইউ জি ডি পি) আওতায় সিনিয়র উপজেলা মৎস্য কর্মকর্তা ভেড়ামারা কর্তৃক আয়োজিত জিকে ক্যানাল ও পদ্মা নদী প্রবাহিত পানিতে ভাসমান খাঁচায় মাছ চাষ কার্যক্রমের এক মনোজ্ঞ প্রশিক্ষণ কর্মসূচি গত ১৩ জানুয়ারি থেকে শুরু হয়। শেষ হয় ২০ জানুয়ারী।

৭দিন ব্যাপী প্রশিক্ষণের ৬টি গ্রুপ অংশগ্রহণ করে। প্রতিগ্রুপে ২৫ জন করে মোট ১৫০জন মৎস্য চাষীর  ও প্রশিক্ষণ সভা গতকাল শেষ হয়। ভেড়ামারা উপজেলার অডিটোরিয়ামের নতুন ভবনে এই প্রশিক্ষণ সভা অনুষ্ঠিত হয়। প্রশিক্ষণের উদ্বোধনী দিনে প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন জায়কার প্রতিনিধি ডঃ মোল্লা মাহমুদ হাসান উপসচিব ( লিয়েন )ফিল্ড গর্ভন্যস এক্সপার্ট (ইউজিডিপি)। এই সময় উপস্থিত ছিলেন, ভেড়ামারা উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান আলহাজ্ব আক্তারুজ্জামান মিঠু, উপজেলা নির্বাহী অফিসার মোঃ সোহেল মারুফ। উপজেলার ভাইস চেয়ারম্যান বুলবুল হাসান পিপুল ও মহিলা ভাইস চেয়ারম্যান মিসেস ইন্দোনেশিয়া ও ভেড়ামারা উপজেলার সিনিয়র মৎস্য কর্মকর্তা আবুল কালাম আজাদ ও ক্ষেত্র সহকারীসহ দপ্তরের কর্মচারীবৃন্দ উপস্থিত ছিলেন।

প্রশিক্ষণ কর্মশালায় বক্তাগণ বলেন প্রবাহিত পানির সঠিক ব্যবহার নিশ্চিত করা সহ মৎস্য চাষী ও উদ্যোক্তাদের আর্থসামাজিক উন্নয়ন ও প্রাণীজ আমিষের রফতানি বৃদ্ধিতে ইতিবাচক ভূমিকা রাখতে পারবে বলে মনে করেন।

আমাদের দেশে প্রচুর খাচায় মাছ চাষের উপযোগী নদী রয়েছে। সারা বছর খাঁচায় মাছ চাষ করে মাছের উৎপাদন বাড়ানো সম্ভব। আমাদের দেশে এবং বিদেশেও তেলাপিয়া মাছের প্রচুর চাহিদা রয়েছে। আমাদের দেশের নদী কিনারায় বসবাসরত জনগণ বিশেষ করে দরিদ্র জেলেগোষ্ঠি শুধুমাত্র নদী থেকে প্রাকৃতিক মাছ আহরণ করে জীবিকা নির্বাহ করে।

এসব মৎসজীবীকে সংগঠিত করে মাছের উৎপাদন বাড়ানোর সাথে সাথে এশিয়ার অন্যান্য দেশের ন্যায় আমাদের দেশেও খাঁচায় উৎপাদিত মানসম্পন্ন তেলাপিয়া রপ্তানি করে প্রচুর বৈদেশিক মুদ্রা অর্জন করা সম্ভব।

আমাদের দেশে সাম্প্রতিক সময়ে খাঁচায় মাছ চাষ নতুন আঙ্গিকে শুরু হলেও বিশ্ব অ্যাকুয়াকালচারে খাঁচায় মাছ চাষের ইতিহাস অনেক পুরোনো। খাঁচায় মাছ চাষ শুরু হয় চীনের ইয়াংঝি নদীতে আনুমানিক ৭৫০ বছর আগে। প্রযুক্তিগত উৎকর্ষতার কারণে আধুনিক কালে খাঁচায় মাছ চাষ ক্রমাগতভাবে জনপ্রিয় হয়ে উঠছে। বিভিন্ন ধরনের জলাশয়ে নিয়ন্ত্রিত পরিবেশ উপযোগী আকারের খাঁচা স্থাপন করে অধিক ঘনত্বে বাণিজ্যিক ভাবে মাছ উৎপাদনের প্রযুক্তি হলো খাঁচায় মাছ চাষ।

জলাশয়ে উপযুক্ত পরিবেশে প্রয়োজনীয় আকারের খাঁচা যথাযথভাবে স্থাপন করে মাছ চাষ করা যায়। এটাই হলো মূলত খাঁচায় মাছ চাষ প্রযুক্তি। এভাবে বাণিজ্যিক উদ্দেশ্যে মাছ চাষ করা যায়।

প্রশ্ন হতে পারে যে, আমরা খাঁচায় মাছ চাষ কেন করবো। এ প্রশ্নের উত্তর খুবই সহজ। এই পদ্ধতিতে খাঁচাকে পুকুরের মতো ব্যবহার করা যায়। খাঁচায় মাছ চাষের মাধ্যমে বিভিন্ন জলাশয়ে অতিরিক্ত মাছ উৎপাদন করা যায়।

নদীর পানিকে যথাযথভাবে ব্যবহার করে মাছ চাষ করা যায়। আবার মাছের বর্জ্য প্রবহমান নদীর পানির সাথে চলে যাওয়ায় নদীর পানি দূষিত হয় না। পানি প্রবহমান থাকায় খাঁচার ভেতরের পানি অনবরত পরিবর্তিত হতে থাকে এবং সে কারণে খাঁচায় অধিক ঘনত্বে মাছ চাষ করা যায়। খাঁচার মাছের উচ্ছিষ্ট খাবার খেয়ে নদ-নদীতে প্রাকৃতিক প্রজাতির মাছের উৎপাদন বেড়ে যায়।

ইন্দোনেশিয়ায়ও খাঁচায় মাছ চাষ জনপ্রিয়, তবে জাভা অঞ্চলে এই প্রযুক্তির প্রচলন অনেক বেশি। জাভা অঞ্চলের ‘সিরাতা’ থেকে প্রায় ৩০,০০০ খাঁচায় মাছ চাষ করা হচ্ছিল।

দেশসংবাদ/প্রতিনিধি/আইশি


আরও সংবাদ   বিষয়:  ভেড়ামারা   নদী   মাছ   চাষী   প্রশিক্ষণ   কর্মশালা  



মতামত দিতে ক্লিক করুন
আরো খবর
সর্বশেষ সংবাদ
আরো খবর >>
সর্বাধিক পঠিত
ফেসবুকে আমরা
English Version
More News...
সম্পাদক ও প্রকাশক
এম. হোসাইন
উপদেষ্টা সম্পাদক
ব্রি. জে. (অব.) আবদুস সবুর মিঞা
এনামুল হক
যোগাযোগ
ফোন : ০২ ৪৮৩১১১০১-২
মোবা : ০১৭১৩ ৬০১৭২৯, ০১৮৪২ ৬০১৭২৯
ইমেইল : [email protected]
Developed & Maintenance by i2soft