ঢাকা, বাংলাদেশ || সোমবার, ১ জুন ২০২০ || ১৮ জ্যৈষ্ঠ ১৪২৭
Desh Sangbad
শিরোনাম: ■ স্ত্রী-পুত্রসহ আক্রান্ত নজরুল ইসলাম মজুমদার ■ আগামি ১ মাসে আক্রান্ত হবে দেশের ৮০ ভাগ মানুষ ■ ধেয়ে আসছে আরেক ঘূর্ণিঝড় ■ ফল ভাল করেও পছন্দের কলেজে ভর্তি অনিশ্চিত ■ জুলাইয়ে খুলছে মালয়েশিয়ার শ্রম বাজার ■ স্বাস্থ্যবিধি মেনে লঞ্চে চলাচল করতে হবে ■ উবার-পাঠাওসহ সব রাইড শেয়ারিং সেবা বন্ধ ■ মাস্ক না পরলে ১ লাখ টাকা জরিমানা, ৬ মাসের জেল ■ জুন মাস পর্যন্ত বিদ্যুৎ বিলের বিলম্ব মাশুল নেয়া হবে না ■ ঢাকার বাইরে যাওয়াদের সংসদে প্রবেশ বারণ ■ যুক্তরাষ্ট্রে বিক্ষোভ অব্যাহত, সাংবাদিক গ্রেপ্তারে ক্ষমা প্রার্থনা ■ শেয়ারবাজারে লেনদেন চালু, সূচকের বড় উত্থান
মালয়েশিয়ায় লকডাউন, স্বপরিবারে কেমন আছে বাংলাদেশিরা
কায়সার হামিদ হান্নান, মালয়েশিয়া
Published : Tuesday, 7 April, 2020 at 11:48 PM, Update: 08.04.2020 12:39:24 AM
Zoom In Zoom Out Original Text

মালয়েশিয়ায় লকডাউনে পরিবারসহ বাংলাদেশিরা

মালয়েশিয়ায় লকডাউনে পরিবারসহ বাংলাদেশিরা

পুরোবিশ্ব আজ স্তব্ধ, নেই কোন সাড়া শব্দ, খবরের পাতায়, টিভির পর্দায় শুধু করোনা ভাইরাস আর করোনা ভাইরাস। সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম সমূহে শুধু লাশের ছবি ছাড়া আর কিছুই দেখতে পাইনা। আজ প্রাণঘাতি করোনা ভাইরাসে ক্রমশই বাড়ছে আক্রান্তের সংখ্যা। ০৭ এপ্রিল মঙ্গলবার মালয়েশিয়ায় প্রাণঘাতী করোনা ভাইরাসে আজ ০১ জন মারা গেছেন। নতুন আক্রান্ত হয়েছেন ১৭০ জন। সর্বমোট মৃত্যু ৬৩ জন, আক্রান্ত ৩৯৬৩ জন।

আক্রান্তের সংখ্যা ঠেকাতে দক্ষিণ-পূর্ব এশিয়ার পর্যটন নগরী মালয়েশিয়ায় চলছে লকডাউন। সরকার ঘোষিত লকডাউনও চলছে। ১৮ মার্চ থেকে ৩১ মার্চ বেঁধে দেয়া এ আদেশ বাড়িয়ে তা চলবে ১৪ এপ্রিল পর্যন্ত। মরণঘাতি করোনার প্রাদুর্ভাব মোকাবিলায় সর্বসাধারণের চলাফেরা নিয়ন্ত্রণে আনতে নেয়া হয়েছে পর্যাপ্ত ব্যবস্থা। বিনা কারণে ঘর থেকে বের হলেই করা হচ্ছে জেল জরিমানা। সরকারের দেয়া নিয়ন্ত্রণ অমান্য করায় অনেক প্রবাসী ও স্থানীয় লোকজনকে আটক করেছে মালয়েশিয়া পুলিশ।
 
এ অবস্থায় বাংলাদেশী প্রবাসী যারা পরিবার পরিজন নিয়ে মালয়েশিয়ায় থাকেন। মালয়েশিয়া সরকার ঘোষিত লকডাউনে কেমন কাটছে তাদের দৈনন্দিন জীবন। এই কয়দিনের অভিজ্ঞতা, ভালো লাগা, মন্দলাগা নিয়ে বাংলাদেশের শীর্ষস্থানীয় জনপ্রিয় অনলাইন দেশসংবাদ সঙ্গে শেয়ার করেছেন তাদের কয়েকজন। নিম্নে তাদের বক্তব্য তুলে ধরা হলো:

ডাঃ লুবনা আলম

ডাঃ লুবনা আলম


মালয়েশিয়া বর্তমানে দক্ষিণ-পূর্ব এশিয়ায় একটি অন্যতম ধনী এবং উন্নত দেশ, যেখানে বর্তমানে এ অঞ্চলের সবচেয়ে বেশি করোনা ভাইরাসের সংক্রমণ বিস্তার লাভ করেছে। আমরা মালয়েশিয়ার একটি শহর কাজাং এ থাকি। এই শহরটি কুয়ালামপুর থেকে ৩০ কিলোমিটার দূরে এবং সেলাঙ্গর প্রদেশে অবস্থিত। বর্তমানে মালয়েশিয়াতে সর্বমোট করোনা ভাইরাসে আক্রান্ত রোগীর সংখ্যা ৩৪৮৩ জন, এর মধ্যে  শুধুমাত্র সেলাঙ্গর প্রদেশে পাওয়া গেছে ৮৯০ জন যা অন্য সকল প্রদেশের থেকে বেশি।

করোনা ভাইরাসের সংক্রমণ রুখতে ১৮ মার্চ থেকে ১৪ ই এপ্রিল পর্যন্ত দেশজুড়ে  মুভমেন্ট কন্ট্রোল অর্ডারের ঘোষণা করে মালয়েশিয়ার সরকার। এই মুভমেন্ট কন্ট্রোল নির্দেশনার আওতায় নির্দিষ্টি কিছু প্রতিষ্ঠান ছাড়া দেশটির সকল সরকারি, বেসরকারি এবং শিক্ষা প্রতিষ্ঠান বন্ধ ঘোষণা করা হয়েছে। একই সাথে সব ধরনের জনসমাগম নিষিদ্ধ করা হয়েছে। শুধুমাত্র সুপারমার্কেট, ব্যাংক, গ্যাস স্টেশন ও ওষুধের দোকান খোলা রাখার নির্দেশনা আছে। এর ফলে কাউকে অফিস, স্কুল, কলেজ বা ইউনিভার্সিটিতে যেতে হচ্ছে না। এতে করোনা ভাইরাস সংক্রমণ এর যে চেইন সেটা ব্যাহত হচ্ছে এবং ইতিমধ্যে যারা আক্রান্ত তাদের কে সনাক্ত করা সহজ হচ্ছে।

যদিও বা আমাদের অফিস বন্ধ এর মানে এই না যে আমরা ছুটিতে আছি, প্রকৃতপক্ষে আমরা সবাই বাসা থেকে কাজ করছি। আমি এখানে ন্যাশনাল ইউনিভার্সিটি তে সিনিয়র লেকচারার হিসাবে কর্মরত আছি এবং আমার যে অফিসিয়াল কাজ সেটা আমি বাসায় বসে অনলাইন এর মাধ্যমে করছি। ইউনিভার্সিটির ছাত্র-ছাত্রীরা তাদের নিজ নিজ হোস্টেলে অবস্থান করছে এবং ইউনিভার্সিটি কতৃপক্ষ  তাদেরকে বিনামূল্যে তিনবেলা খাবার  সরবরাহ করছে। এতে করে ছাত্র-ছাত্রীদেরও কোথাও বের হতে হচ্ছে না।

সত্যিকার অর্থে আমাদের এখানে কিছুই তেমন থেমে নেই, আমার সাড়ে চার বছরের ছোট একটা ছেলে আছে, যে এখানে কেজি-২ এ পড়াশোনা করে। প্রতিদিন সকালে ওদের স্কুল টিচাররা হোয়াটস্যাপ গ্রূপের মাধ্যমে সবাইকে কাজ দিচ্ছেন। আমরা বাসায় ছেলেকে সেগুলো করিয়ে ছবি বা ভিডিও আপলোড করে দিচ্ছি এবং টিচাররা তা দেখছে।

আমাদের কন্ডোমিনিয়াম কর্তৃপক্ষও করোনা মোকাবেলায় বিশেষ ভূমিকা পালন করছে। কন্ডোমিনিয়ামের কমন ফ্যাসিলিটিগুলো যেমন সুমিং পুল, বাচ্চাদের খেলার পার্ক, জিমনেসিয়াম এগুলো সব বন্ধ করে দেওয়া হয়েছে এবং বাসায় সকল ধরণের জনসমাগমের প্রতি নিষেধাজ্ঞা আরোপ করা হয়েছে।
 
আমরা চেষ্টা করছি সকল ধরণের নির্দেশনা মেনে চলার। আলহামদুলিল্লাহ আমরা এখন পর্যন্ত সুস্থ, স্বাভাবিক জীবন যাপন করছি। চিরচেনা মালয়েশিয়ার চারিদিকে  সুনসান নীরবতা। মাঝে মাঝে আকাশের উড়ন্ত প্লেনের দিকে তাকিয়ে মনে হয়, আর কোনোদিন দেশে ফিরা  হবে কি না!

আমরা মানসিকভাবে খুব দুশ্চিন্তাগ্রস্থ বাংলাদেশের জন্য, আমাদের বাবা-মা, ভাই-বোন,  স্বজন যারা বাংলাদেশে আছেন তাদের জন্য। সবসময় তাদের সুস্থতা কামনা করছি। বাংলাদেশের সবাইকে একটা অনুরোধই  করতে  চাই, আমরা প্রবাসীরা আপনাদের জন্য দেশে না ফেরার চেষ্টা করবো যতদিন না পরিস্থিতি স্বাভাবিক হয়, দয়া করে আপনারা নিজেদের মাত্র কিছুদিনের জন্য  লকডাউন করুন, আপনাদের পরিবার-পরিজন এবং প্রবাসীদের বাবা মা ভাই বোনদের জন্য। সর্বশক্তিমান আল্লাহ যেন আমাদের সবাইকে রক্ষা করেন, এই বিপদ থেকে দ্রুত মুক্তি দেন।

-ডাঃ লুবনা আলম
সিনিয়র লেকচারার
মালয়েশিয়ার জাতীয় বিশ্ববিদ্যালয়

প্রণয় কুমার চৌধুরী অংশু

প্রণয় কুমার চৌধুরী অংশু


সারা পৃথিবীর মানুষ আজ ঘরে বন্দী। করোনাক্রান্ত ধরনীর সমাজ-সংসারে একমাত্র সুরক্ষার রক্ষাকবচ। অদৃশ্য অনু-জীবাণু ছড়িয়ে পড়েছে গোলকময়। ব্যক্তির শরীর ছুঁয়ে গেলে, ছোঁয়ায় ছোঁয়ায় ছড়িয়ে পড়ছে দেহ হতে দেহে, ব্যক্তি হতে সমষ্টিতে। বিশ্বের সমস্ত দেশের স্বাস্থ্য নিয়ন্ত্রকেরা এই নির্দেশনা জারি করেছে, “নিজেকে যথাসম্ভব আড়ালে রাখো, অন্যকে আড়ালে থাকতে দাও।”

ফ্রন্ট নাইনার’রা বাইরে, মহা-ভয়ঙ্কর ভাইরাসটির মহাসংক্রমন ঠেকানোর চেষ্টায়। আমাদেরও দিন কাটছে ঘরে, দিন যায় রাত আসে। সবার মতো অধীর অপেক্ষায় কখন সুদিন ফিরবে, ঘরের বন্ধ দুয়ার খুলে সকল মানুষের সাথে। প্রবাসে, যে দেশে আছি, এখানেও লক্ষ লক্ষ স্বদেশী মানুষেরা টিকে থাকার চেষ্টায় জীবন সংগ্রামেরত, সমগ্র পৃথিবী সংক্রমণে। দ্রুততম সময়ে বিজ্ঞানীরা ’ভ্যকসিন’ পেয়ে যাক, সর্বসাধারণের সুরক্ষায়, সহজলভ্য হোক। প্রার্থনা সর্বশক্তিমানের দরবারে। কল্যান হোক ধরীত্রীর।

-প্রণয় কুমার চৌধুরী অংশু
পেশাজীবি ও টেকনিক্যাল ম্যানেজার।
বহুজাতিক ‘তেল ও গ্যাস’ সম্পর্কিত প্রতিষ্ঠানে কর্মরত
কুয়ালালামপুর

মোহাম্মদ দুলাল

মোহাম্মদ দুলাল


মোহাম্মদ দুলাল। আমি একজন ব্যাবসায়ী। দীর্ঘদিন যাবৎ মালয়েশিয়া থাকি। আমার একটা সন্তান এখানে প্রাইমারিতে পড়াশোনা করে। এই লকডাউন ফলে আমরা আজ ঘরে বন্ধী। ব্যবসা বাণিজ্য বন্ধ।বাচ্চার স্কুল বন্ধ। মালয়েশিয়াতে আমরা যে এরিয়াতে থাকি করোনা ভাইরাসের জন্য রেড জোন এলাকা। পাশে কুয়ালালামপুর হাসপাতাল। সব মিলিয়ে খুব দুঃচিন্তায় দিন কাটছে। তবে করোনা প্রতিরোধে মালয়েশিয়া সরকার আপ্রাণ চেষ্টা চালিয়ে যাচ্ছে। মনে হচ্ছে মালয়েশিয়া সরকার করোনা কন্ট্রোলে নিয়ে আসবে। প্রবাসে ফ্যামিলি নিয়ে এখনো পর্যন্ত কোনো সমস্যা হয়নি। চিন্তা একটাই বাংলাদেশকে নিয়ে তারা একটু সচেতন হলে বাংলাদেশে করোনা প্রতিরোধ করতে পারবে।

মালয়েশিয়া মানুষ আইনের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। আইনকে মান্য করে কেউ ঘর থেকে বের হয়না। বের হলে সাথে সাথে ধরে জেল জরিমানা করে। মালয়েশিয়া নতুন সরকার ক্ষমতা আসার পর প্রবাসী ও স্থানীয় লোকজনের অনেক সুযোগ সুবিধা ঘোষণা করেছে। যা সত্যি প্রশংসনীয়। রুম থেকে বের হয়নি। একটি জিনিস উপলব্ধি করেছি ঘরে থাকলেই করোনা কখনো ও আক্রমণ করতে পারবে না। তাই বন্ধু বান্দব সবাইকে বলবো ঘরে থাকুন, সুস্থ থাকুন। নামাজ পড়ে আল্লাহ কাছে ক্ষমা চান এবং দোয়া করেন।

-মোহাম্মদ দুলাল
ব্যাবসায়ী, মালয়েশিয়া

মোসাম্মাৎ ইকরা সুলতানা ইতি

মোসাম্মাৎ ইকরা সুলতানা ইতি


আমি ইতি, একজন গৃহিনী শখের বসত গান করি। আমার স্বামী একজন ইঞ্জিনিয়ার। লকডাউন কারণে আজ আমরা অনেক দিন বাসায় অবস্থান করছি। আমার দুইটা বাচ্ছা। তবে মালায়শিয়া করোনার সংখ্যা দিন দিন বাড়ছে। আলহাদুলিল্লাহ আমাদের কেলাং এখনো পর্যন্ত কোনো করোনা আক্রান্ত ব্যক্তি সনাক্ত হয়নি।

স্বামী ও বাচ্ছাদের নিয়ে আলহামদুলিল্লাহ খুব ভালো আছি। আমার স্বামী কোম্পানি বন্ধ থাকলেও কোম্পানির পক্ষ থেকে বেতন পাচ্ছে। এখনো পর্যন্ত কোন সংকটে পড়িনি। বাসায় অবসর সময়ে দুই জন গান করি। তবে এই লকডাউনে বাংলাদেশে পিতামাতাকে নিয়ে অনেক চিন্তা করি। পুরো পৃথিবী আজ লকডাউন। কবে যে আল্লাহ পাক উত্তরণ করবে একমাত্র আল্লাহ পাক জানে। এই বিষয়গুলি মাথায় আসলে অনেক চিন্তা লাগে। আমরা সবাই এক সাথে বাস করি। যে সমস্ত বাংলাদেশী পাহাড়, কুয়ালালামপুরের  অদূরে নির্জন জায়গা কাজ করে থাকে কথা মনে উঠলে অনেক খারাপ লাগে। দোয়া করি সবাই ভালো থাকুক। বাসায় এক মাত্র নিরাপদ।

-মোসাম্মাৎ ইকরা সুলতানা ইতি
গৃহিনী ও সংগীত শিল্পী, মালয়েশিয়া 

দেশসংবাদ/প্রতিনিধি/এফএইচ/mmh


আরও সংবাদ   বিষয়:  মালয়েশিয়া   লকডাউন   বাংলাদেশিরা  




আপনার মতামত দিন
আরো খবর
করোনা আপডেট
আপনি কি করোনা আক্রান্ত? তাহলে যা করবেন
সর্বশেষ সংবাদ
আরো খবর >>
সর্বাধিক পঠিত
ফেসবুকে আমরা
English Version
More News...
সম্পাদক ও প্রকাশক
এম. হোসাইন
উপদেষ্টা সম্পাদক
ব্রি. জে. (অব.) আবদুস সবুর মিঞা
এনামুল হক ভূঁইয়া
যোগাযোগ
ফোন : ০২ ৪৮৩১১১০১-২
মোবা : ০১৭১৩ ৬০১৭২৯, ০১৮৪২ ৬০১৭২৯
ইমেইল : [email protected]
Developed & Maintenance by i2soft
logo
up