ঢাকা, বাংলাদেশ || বৃহস্পতিবার, ১৩ আগস্ট ২০২০ || ২৯ শ্রাবণ ১৪২৭
Desh Sangbad
শিরোনাম: ■ ভ্যাকসিন কেনার সিদ্ধান্ত আগামী সপ্তাহে ■ আরেক সাহেদ করিম গ্রেফতার ■ দুবাই এখন ‘নতুন বৈরুত’ ■ শ্রীলংকা সফরে ফিরতে পারেন সাকিব ■ স্বর্ণের দাম কমল ■ গ্রামীণ প্রকল্পে শ্রমিকদের দৈনিক ৫০০ টাকা দেয়ার সুপারিশ ■ পরিবেশমন্ত্রী করোনা আক্রান্ত ■ এইচএসসি পরীক্ষা নিয়ে গণমাধ্যমে ‘কল্পিত’ তারিখ ■ পুলিশের সেই ৩ সাক্ষী সিনহা হত্যায় সহযোগিতা করেছিল ■ প্রাথমিক সমাপনীতে অটো পাসের চিন্তা নেই ■ করোনা বুলেটিন বন্ধ না করার আহ্বান ■ করোনার টিকার জন্য আলাদা অর্থ রাখা হয়েছে
নেত্রকোনায় ব্যবহারের চেয়ে তিনগুনের বেশী বিদ্যুৎ বিল
ভজন দাস, নেত্রকোনা
Published : Thursday, 21 May, 2020 at 7:25 PM, Update: 21.05.2020 8:57:51 PM
Zoom In Zoom Out Original Text

নেত্রকোনায় ব্যবহারের চেয়ে তিনগুনের বেশী বিদ্যুৎ বিল

নেত্রকোনায় ব্যবহারের চেয়ে তিনগুনের বেশী বিদ্যুৎ বিল

একেতো ভয়াবহ করোনা,তার ওপর মিটার না দেখেই ব্যাবহারের চেয়ে তিনগুনেরও বেশী বিল করার ্অভিযোগ উঠেছে নেত্রকোনা বিদ্যুৎ বিভাগের উপর। গত মার্চ ও এপ্রিল মাসের বিদ্যুৎ বিল করা হয়েছে তিনগুনেরও বেশী। গ্রাহকদের এ যেন মরার ওপর খারার ঘা। এ নিয়ে গ্রাহকদের মধ্যে চরম হতাশা ও ক্ষোভ বিরাজ করছে।

জানা গেছে, নেত্রকোনা পৌর সভার বিভিন্ন এলাকায় বিদ্যুৎ বিভাগের লোকজন গত মার্চ ও এপ্রিল মাসের বিল বিদ্যুতের মিটার না দেখেই রিডিং বসিয়ে দিয়েছে। যা অন্যান্য মাসের থেকে দুই ও তিনগুনের চেয়েও বেশী। অনেক গ্রাহক বিল পরিশোধ করেছেন। 

অজহর রোডের সুরেন্দ্র নাথ সরকারের নামের মিটারের গত ২০ এপ্রিল পর্যন্ত মিটারে রিডিং দেখানো হয়েছে ৭৯১৮ ইউনিট। অথচ ওই মিটারে গত বুধবার পর্যন্ত ইউনিট রয়েছে ৭ হাজার ৬৫৩.১ ইউনিট। যা তিনশ ইউনিট বেশী। এ ছাড়া গত ফেব্রুয়ারী মাসে ওই মিটারে বিল এসেছিল ৬৭৬ টাকা। মার্চ ও এপ্রিল মাসে ১৩০২ টাকা ও এপ্রিল মাসে বিল এসেছে ২০২৭ টাকা। একই মিটারে গত বছরের এপ্রিল মাসে বিল পরিশোধ করা হয়েছিল ৭১৭ টাকা। এ অবস্থা শুধু এক জায়গায় নয়। অন্যান্য এলাকায়ও একই অবস্থা। মিটার না দেখে অধিক বিল করায় গ্রাহকদের বেশী টাকা বিল পরিশোধ করতে হচ্ছে।

সুরেন্দ্র নাথ সরকারের ছেলে দেবাশীষ সরকার বলেন,একেতো করোনায় আমাদের অবস্থা খারাপ। তার উপর অতিরিক্ত বিদ্যুৎ বিল করা হয়েছে। বিষয়টি বিদ্যুৎ বিভাগকে জানিয়েছি। কিন্তু কোন কাজ হচ্ছে না। তারা বিষয়টি আমলেই নিচ্ছে না। মিটার রিডার আন্দাজের উপর বিল করেছে। আমাদের অধিক বিল পরিশোধ করতে হচ্ছে।

অপরদিকে শহরের মোক্তারপাড়া এলাকার বাসিন্দা রেজাউল হক চৌধুরী টিপু একই অভিযোগ করে বলেন, বিগত দুই মস যাবৎ আমাদের ভৌতিক বিল আসছে।আমার বাসার মিটারে ইউনিট আছে ২৩৪০ আর বিল করা হয় ২৫৪০ ইউনিট ২শ ইউনিট বেশী করাতে রেট যায় বেড়ে টাকা দিতে হয় অনেক বেশী।বার বার বিদুৎ বিভাগে অভিযোগ করেও এর কোন সুরাহা মেলে না।আমাদের গ্রাহকদের বেশী টাকাই জমা দিতে হয়। এ ছাড়া জেলা শহরের আরো অনেকের এ অভিযোগ রয়েছে বিদুৎ বিভাগের উপর।

এ ব্যাপারে নেত্রকোনা বিদ্যুৎ উন্নয়ন বোর্ডের নির্বাহী প্রকৌশলী রুবেল আহমেদ অভিযোগের বিষয়টি স্বীকার করে বলেন, মিটার না দেখে রিডিং করার কারনে বিল কম বেশী হয়ে থাকতে পারে। গ্রাহকদের চিন্তিত হওয়ার কোন কারন নেই। এ ব্যাপারে যথাযথ ব্যবস্থা গ্রহন করা হবে। 

দেশসংবাদ/প্রতিনিধি/আইশি


আরও সংবাদ   বিষয়:  নেত্রকোনা   বিদ্যুৎ   




আপনার মতামত দিন
আরো খবর
করোনা আপডেট
পরিবেশমন্ত্রী করোনা আক্রান্ত
সর্বশেষ সংবাদ
আরো খবর >>
সর্বাধিক পঠিত
ফেসবুকে আমরা
English Version
More News...
সম্পাদক ও প্রকাশক
ফাতেমা হোসাইন
উপদেষ্টা সম্পাদক
ব্রি. জে. (অব.) আবদুস সবুর মিঞা
এনামুল হক ভূঁইয়া
যোগাযোগ
ফোন : ০২ ৪৮৩১১১০১-২
মোবা : ০১৭১৩ ৬০১৭২৯, ০১৮৪২ ৬০১৭২৯
ইমেইল : [email protected]
Developed & Maintenance by i2soft
logo
up