ঢাকা, বাংলাদেশ || মঙ্গলবার, ৭ জুলাই ২০২০ || ২৩ আষাঢ় ১৪২৭
Desh Sangbad
শিরোনাম: ■ পরীক্ষার সঙ্গে কমেছে শনাক্তের সংখ্যাও ■ করোনায় ফেনীর সিভিল সার্জনের মৃত্যু ■ বাংলাদেশের সঙ্গে বিমান চলাচলে নিষেধাজ্ঞা ইতালির ■ শীর্ষে ঢাকা বিভাগ : মোট মৃতের ৭৩ শতাংশ পঞ্চাশোর্ধ ■ রিজেন্ট হাসপাতাল সিলগালা ■ চিকিৎসক নিয়োগে আসছে বিশেষ বিসিএস ■ গরিবের সক্ষমতার মধ্যেই থাকবে করোনা ভ্যাকসিন ■ ২৪ ঘন্টায় যুক্তরাষ্ট্রকে ছাড়িয়ে গেল ভারত ■ প্রাইভেটকার খাদে, একই পরিবারের নিহত ৩ ■ ২৪ ঘণ্টায় আক্রান্ত ৩০২৭, মৃত্যু ৫৫ ■ করোনায় ক্ষতিগ্রস্ত খামারি পাবেন নগদ সহায়তা ■ বাহরাইনে ভিসা নবায়ন ও মালিক পরিবর্তনের সুযোগ
দূর্ভাগ্যের সৌভাগ্যজনক ঈদ আনন্দ!
মোঃ রাসেল আহম্মেদ, পর্তুগাল
Published : Monday, 25 May, 2020 at 4:33 PM
Zoom In Zoom Out Original Text

দূর্ভাগ্যের সৌভাগ্যজনক ঈদ আনন্দ!

দূর্ভাগ্যের সৌভাগ্যজনক ঈদ আনন্দ!

এবারের পবিত্র ঈদুল ফিতরের ঈদ উদযাপন সম্পুর্ন ব্যাতিক্রম যা আট দশটি ঈদের মত নয়। অদেখা ও অজানা এক ভাইরাস সমস্ত পৃথিবী অচল করে দিয়েছে। কেড়ে নিয়েছে কয়েক লক্ষ মানুষের প্রান এবং আক্রান্ত কয়েক মিলিয়ন। এমন বাস্তবতায় সারা পৃথিবী কার্যত অচল। বিশ্বজুড়ে চলছে লক ডাউন ও সামাজিক দূরত্ব নিশ্চিত করনের মত ব্যবস্থা যা ভাইরাসটি সংক্রমণ প্রতিরোধে ভূমিকা রাখছে।

জানুয়ারিতে প্রবাস থেকে দেশে আসি পরিবার পরিজন ও আত্মীয় স্বজনের সাথে কিছু ভাল সময় অতিবাহিত করার জন্য। পরিকল্পনা ছিল মার্চের শেষে বা এপ্রিলের শুরুতে প্রিয় কাজের জায়গায় ফিরে যাব। কিন্তু ততদিনে চীনের সেই ভাইরাস সারা পৃথিবী পরিভ্রমণ করে পেলেছে। ব্যাপক প্রানহানী ও সংক্রমণ ঠেকাতে বন্ধ করে দিয়েছে এক দেশের সাথে অন্য দেশের স্থল, নৌ ও বিমান যোগাযোগ। ফলে এক ধরনের বাধ্য হয়ে অপেক্ষার প্রহর গুনে চলেছি এই অবস্থার পরিবর্তনের জন্য।

তারই মধ্যে চলে আসলো আমাদের সবচেয়ে বড় ধমীয় উৎসব পবিত্র ঈদুল ফিতর। প্রতি বছর হাজারো প্রবাসীর স্বপ্ন থাকে তার পরিবার পরিজনের সাথে থেকে একত্রে ঈদের আনন্দ ভাগাভাগি করে নিতে কিন্তু বিভিন্ন কঠিন বাস্তবতার ফলে তা আর হয়ে উঠে না। এই বার তার ব্যতিক্রম হতে চলেছে অনেকের জন্য। করোনা ভাইরাস, লক ডাউন এবং বিমান যোগাযোগ বন্ধের ফলে দুর্ভাগ্যবশত আমরা যারা পরবাসে ফিরে যেতে পারিনি তাদের জন্য সৌভাগ্যক্রমে একটি পারিবারিক ঈদ উদযাপনের সুযোগ তৈরি হল!

কিন্তু এই যেন বিষন্নতায় ভরা এক ঈদ। কোথাও কোন উৎসব বা আমেজ নেই। নেই কোন কেনাকাটা, খোলা মাটে ঈদের জামাত, কোলাকুলি কিংবা পাড়া-প্রতিবেশি এবং আত্মীয় স্বজনের বাড়িতে বেড়ানো। তেমনি ইতিহাসের নিরানন্দ একটি ঈদের সাক্ষী হয়ে রয়ে যাব আমরা। চারিদিকে এত আতঙ্ক, এত এত আক্রান্ত ও মৃত্যু তার চাইতে বেশী হতাশাগ্রস্ত আগামী দিনের প্রবাসীদের অনিশ্চিত ভবিষ্যতের কথা চিন্তা করে। অনেক প্রবাসী এখনো জানেন না তারা আধো ফিরে যেতে পারবে কিনা তাদের স্বপ্নের শহর, দেশ বা কাজের জায়গায়।

অনেকে ভিসা জটিলতায় পড়তে পারে আবার লক ডাউন প্রত্যাহার বা পরিস্থিতি স্বাভাবিক হলে অর্থনৈতিক মন্দার কবলে পড়তে পারে অনেক দেশ, ফলে বেশীরভাগ কোম্পানি বা প্রতিষ্ঠান কর্মী ছাঁটাই করবে। এতে করে বিপুলসংখ্যক অভিবাসী কর্মী বেকার হওয়ার সম্ভাবনা তৈরি হতে পারে। ইতিমধ্যে বিগত ৩ মাসে শুধুমাত্র মধ্যপ্রাচ্য থেকে প্রায় ৩ লাখ প্রবাসী কর্মী ফেরত এসেছে। বিশেষজ্ঞরা ধারনা করছেন এই সংখ্যা ১০ থেকে ১৫ লাখ পর্যন্ত হতে পারে।

মধ্যপ্রাচ্যের তেল নির্ভর অর্থনীতি ধসে পড়েছে করোনা ভাইরাস মহামারী সংকটে। তেলের দাম শূন্য বা ঋণাত্নক হয়ে পড়েছে তাই সৌদি আরব সহ বিভিন্ন দেশে লক্ষ লক্ষ মানুষ বেকার বা দেশে ফিরে আসতে বাধ্য হতে পারে। দেশের বেকার সংকট প্রকট হওয়ার পাশাপাশি অর্থনীতিতে চাপ তৈরি করবে রেমিট্যান্স প্রবাহ কমে যাওয়ার ফলে। ফলে দীর্ঘ মেয়াদি নানা সংকট তৈরির আশংঙ্কা দেখা দিবে দেশে।

সহজেই অনুমান করা যায় কি ভয়ংকর পরিস্থিতির মধ্যে দিয়ে যাবে আগামী দিনের বাংলাদেশী অভিবাসীদের অবস্থা। তাছাড়া ইউরোপের বিভিন্ন দেশে কথা বলে সহজে অনুমান করা যাচ্ছে, সেখানেও অভিবাসীরা দীর্ঘ মেয়াদি কাজের সংকটে পড়তে যাচ্ছে। বিশেষ করে সে-সকল দেশ সমূহে কাজ কর্ম এবং ব্যবসা বানিজ্য সব সামার ভিত্তিক ফলে সবকিছু স্বভাবিক হতে সামার টাইম শেষ হয়ে যাবে। তাই পূর্বের কাজে যোগদান বা নতুন করে কাজ পাওয়া অসম্ভব হয়ে পড়বে।

তাছাড়া সারা পৃথিবীতে ছড়িয়ে থাকা প্রবাসীদের একটি বড় অংশ পর্যটন খাতে কাজ করছে। বিশেষ করে বিভিন্ন আবাসিক হোটেল-মোটেল, রেস্টুরেন্ট এবং পর্যটন সংশ্লিষ্ট বিভিন্ন স্থানে তাদের জন্য অনিশ্চিত এক ভবিষ্যৎ অপেক্ষা করছে। কারন এই সংকটে সবচেয়ে ক্ষতিগ্রস্ত খাতের মধ্যে অন্যতম পর্যটন শিল্প যা দীর্ঘ মেয়াদি সময় ও পরিকল্পনা প্রয়োজন হবে তা পুনরুদ্ধারের জন্য। তাই এই খাতের বিপুল দক্ষ ও অদক্ষ প্রবাসী কর্মী বেকার হয়ে যাওয়ার সম্ভাবনা দেখা দিয়েছে। 

ইতিমধ্যে বিভিন্ন দেশে প্রবাসীদের দূরাবস্থার করুন চিত্র ফুটে উঠেছে বিভিন্ন গন মাধ্যমে। এই অচলাবস্থা দীর্ঘ মেয়াদি হলে কঠিন সংকটের মধ্যে পড়তে বলে লক্ষ কোটি প্রবাসীকে। সেই সাথে ধস নেমে আসবে রেমিট্যান্স প্রবাহে যা দেশের অর্থনৈতিক উন্নয়নের অন্তরায় হয়ে কাজ করবে। এমনি বাস্তবতা সামনে রেখে কোন ভাবেই স্বতঃস্ফূর্ত ঈদ উদযাপন করা সম্ভব নয়। তারপরও আমাদের পরম সৌভাগ্য দুর্ঘটনাবসত হলেও একটি ঈদ পরিবারের সঙ্গে উদযাপনের সুযোগ তৈরি হয়েছে!

দেশসংবাদ/প্রতিনিধি/আইশি


আরও সংবাদ   বিষয়:  দূর্ভাগ্য   সৌভাগ্যজনক   ঈদ  




আপনার মতামত দিন
আরো খবর
করোনা আপডেট
পরীক্ষার সঙ্গে কমেছে শনাক্তের সংখ্যাও
সর্বশেষ সংবাদ
আরো খবর >>
সর্বাধিক পঠিত
ফেসবুকে আমরা
English Version
More News...
সম্পাদক ও প্রকাশক
এম. হোসাইন
উপদেষ্টা সম্পাদক
ব্রি. জে. (অব.) আবদুস সবুর মিঞা
এনামুল হক ভূঁইয়া
যোগাযোগ
ফোন : ০২ ৪৮৩১১১০১-২
মোবা : ০১৭১৩ ৬০১৭২৯, ০১৮৪২ ৬০১৭২৯
ইমেইল : [email protected]
Developed & Maintenance by i2soft
logo
up