ঢাকা, বাংলাদেশ || শুক্রবার, ১৪ আগস্ট ২০২০ || ২৯ শ্রাবণ ১৪২৭
Desh Sangbad
শিরোনাম: ■ ওসিকে একের পর এক হত্যার হুমকি! ■ সিনহা হত্যার তদন্ত বাধাগ্রস্ত করা হচ্ছে ■ বসুন্ধরায় আবাসিক এলাকায় আগুন ■ যত্রতত্র ইন্ডাস্ট্রি গড়ে তোলা যাবে না ■ কিশোর উন্নয়ন কেন্দ্রে দু’গ্রুপের সংঘর্ষ, নিহত ৩ ■ রিজেন্ট-জেকেজি নিয়ে যা বললেন সাবেক হেলথ ডিজি ■ পিকে হালদারের আত্মসাতের ৩ হাজার কোটি টাকা জব্দ ■ ধানমন্ডি-বনানীর হোটেল-গেস্ট হাউজ বন্ধ ■ স্বাস্থ্য অধিদফতরের নতুন অতিরিক্ত মহাপরিচালক সেব্রিনা ■ ডা. সাবরিনাসহ ৮ জনের জামিন নাকচ ■ ওসি প্রদীপের বিরুদ্ধে করা হত্যা মামলার আবেদন খারিজ ■ চিকিৎসার জন্য দেশের মানুষকে আর বিদেশ যেতে হবে না
সরকারি পাটকল শ্রমিকদের অবসরে পাঠানো হচ্ছে
দেশসংবাদ ডেস্ক
Published : Saturday, 27 June, 2020 at 1:28 PM, Update: 27.06.2020 4:44:18 PM
Zoom In Zoom Out Original Text

সরকারি পাটকল শ্রমিকদের অবসরে পাঠানো হচ্ছে

সরকারি পাটকল শ্রমিকদের অবসরে পাঠানো হচ্ছে

ক্রমাগত লাকসান রোধে বাংলাদেশ পাটকল করপোরেশনের (বিজেএমসি) পাটকলগুলোর ২৫ হাজার স্থায়ী শ্রমিককে স্বেচ্ছায় অবসরে (গোল্ডেন হ্যান্ডশেক) পাঠানো হচ্ছে। পাওনা পরিশোধের পদ্ধতিসহ শ্রমিকদের অবসরের বিষয়টি কিছুদিনের মধ্যে চূড়ান্ত হবে। পরবর্তী সময়ে সরকারি ব্যবস্থাপনায় আর এ পাটকলগুলো পরিচালিত হবে না। বেসরকারি ব্যবস্থাপনার আওতায় এগুলো পরিচালিত হবে।

বস্ত্র ও পাট মন্ত্রণালয় সূত্রে এসব তথ্য জানা গেছে।

তবে শ্রমিকদের অবসরে পাঠানোর সিদ্ধান্তের কারণে অসেন্তোষের আশঙ্কাও রয়েছে। এজন্য আইনশৃঙ্খলা বিষয়ে সংশ্লিষ্টদের সঙ্গে বৈঠকও করেছে বস্ত্র ও পাট মন্ত্রণালয়।

সরকারি পাটকলের শ্রমিকদের গোল্ডেন হ্যান্ডশেকের (অবসর) বিষয়ে ইতোমধ্যে সরকারের সর্বোচ্চ পর্যায়ের অনুমোদন পাওয়া গেছে। এখন মজুরি কমিশন অনুযায়ী শ্রমিকদের সুযোগ-সুবিধার বিষয়টি চূড়ান্ত করে এ বিষয়ে প্রজ্ঞাপন জারি করা হবে।

এ বিষয়ে জানতে চাইলে বস্ত্র ও পাট সচিব লোকমান হোসেন মিয়া বলেন, ‘আগামী ৩০ তারিখের পর আপনারা সব জানতে পারবেন। আমি এখন এ বিষয়ে কিছু বলব না।’

বিজেএমসির চেয়ারম্যান (অতিরিক্ত সচিব) মো. আব্দুর রউফ বলেন, ‘এটার কাজ এখনও চলছে। আমার কাছে (এ বিষয়ে) কোনো নির্দেশনা আসেনি। নির্দেশনা আসলে আমি বিস্তারিত বলতে পারব।’

বর্তমানে বিজেএমসির আওতায় পাটকল রয়েছে ২৬টি। এরমধ্যে একটি (মনোয়ার জুট মিল) বন্ধ রয়েছে। পাটকলগুলোতে বর্তমানে স্থায়ী শ্রমিক আছেন ২৪ হাজার ৮৫৫ জন। এছাড়া তালিকাভুক্ত বদলি ও দৈনিকভিত্তিক শ্রমিকের সংখ্যা প্রায় ২৬ হাজার।

বেসরকারি খাতের পাটকলগুলো লাভ করলেও নানা অব্যবস্থাপনা, অনিয়ম ও দুর্নীতিতে বছরের পর বছর লোকসান গুনছে সরকারি পাটকলগুলো। লোকসান কাটিয়ে মিলগুলো চালু রাখতে প্রতি বছরই জনগণের করের টাকা দিয়ে আসছে সরকার।

লোকসানে থাকা পাটকলগুলোর অর্থায়নের বিষয়ে গত বছরের ১৪ মে সচিবালয়ে সরকারি ক্রয়-সংক্রান্ত মন্ত্রিসভা কমিটির বৈঠক শেষে অর্থমন্ত্রী আ হ ম মুস্তফা কামাল বলেছিলেন, ‘রাষ্ট্রায়ত্ত পাটকলগুলোকে গত ১০ বছরে সাত হাজার কোটি টাকা দেয়া হয়েছে। পাটকলে আর কতদিন অর্থায়ন করব? গত ১০ বছরে তো আমরা সাত হাজার কোটি টাকা দিয়েছি। এটা অনেক বড় টাকা।’

এভাবে বছরের পর বছর জনগণের করের টাকায় পাটকলগুলো টিকিয়ে রাখার বিপক্ষে মত দিয়েছেন অর্থনীতিবিদরা। পাটকলগুলো রাজনৈতিক উদ্দেশ্যে ব্যবহার না করে বেসরকারি খাতে ছেড়ে দেয়ার পরামর্শ তাদের।

সংশ্লিষ্টরা বলছেন, লোকসানের বৃত্তেই ঘুরপাক খাচ্ছে দেশের পাটকলগুলো। অনেক আশা নিয়ে বর্তমান সরকার পাটশিল্পের পুনরুজ্জীবনে নানা পদক্ষেপ নিলেও লোকসানের বৃত্ত থেকে বের হতে পারছে না। অব্যবস্থাপনা, রাজনৈতিক দলাদলি, সময়মতো কাঁচাপাট কিনতে ব্যর্থ হওয়া, পাটের গুণগত মান ভালো না হওয়া, বেশি জনবল, শ্রমিক ও কর্মচারী ইউনিয়নের (সিবিএ) দৌরাত্ম্য, পুরাতন যন্ত্রপাতি, নানা অনিয়ম ও দুর্নীতির কারণেই লাভের মুখ দেখছে না সরকারি পাটকলগুলো।

গত সাত (২০১১-১৮) বছরে পাটকলগুলোর লোকসান দাঁড়িয়েছে চার হাজার কোটি টাকা। ফলে বকেয়া বেতনের দাবিতে মাঝে মাঝেই রাজপথ কাঁপাচ্ছেন শ্রমিকরা। উত্তপ্ত হয়ে উঠছে গোটা দেশ। সারাদেশে চালু ২৫টি পাটকলের ২৫ হাজার স্থায়ী শ্রমিকের বকেয়া বেতন-ভাতায় বছরে গুনতে হচ্ছে কয়েকশ কোটি টাকা।

২০১১-১২ অর্থবছরে বিজেএমসির লোকসান ছিল ৭৮ কোটি ৩৫ লাখ টাকা। এরপর ২০১২-১৩ অর্থবছরে ৩৯৬ কোটি ৯৭ লাখ, ২০১৩-১৪ অর্থবছরে ৫১৩ কোটি ৮ লাখ, পরের অর্থবছরে ৭২৯ কোটি এবং ২০১৫-১৬ অর্থবছরে ৬৬৯ কোটি ২০ লাখ টাকা লোকসান গুনতে হয়েছে।

এছাড়া ২০১৬-১৭ অর্থবছরে ৪৮১ কোটি ৫০ লাখ, ২০১৭-১৮ অর্থবছরে ৪৯৭ কোটি ১৮ লাখ এবং ২০১৮-১৯ অর্থবছরে ৫৭৩ কোটি ৫৮ লাখ টাকা লোকসান হয়।

দেশসংবাদ/জেএন/এনকে


আরও সংবাদ   বিষয়:  বাংলাদেশ পাটকল করপোরেশন   বস্ত্র ও পাট মন্ত্রণালয়  




আপনার মতামত দিন
আরো খবর
করোনা আপডেট
২৪ ঘন্টায় মৃত্যু ৪৪, আক্রান্ত ২৬১৭
সর্বশেষ সংবাদ
আরো খবর >>
সর্বাধিক পঠিত
ফেসবুকে আমরা
English Version
More News...
সম্পাদক ও প্রকাশক
ফাতেমা হোসাইন
উপদেষ্টা সম্পাদক
ব্রি. জে. (অব.) আবদুস সবুর মিঞা
এনামুল হক ভূঁইয়া
যোগাযোগ
ফোন : ০২ ৪৮৩১১১০১-২
মোবা : ০১৭১৩ ৬০১৭২৯, ০১৮৪২ ৬০১৭২৯
ইমেইল : [email protected]
Developed & Maintenance by i2soft
logo
up