ঢাকা, বাংলাদেশ || শনিবার, ২৬ সেপ্টেম্বর ২০২০ || ১১ আশ্বিন ১৪২৭
Desh Sangbad
শিরোনাম: ■ স্কুল ছাত্রী নীলার হত্যাকারী মিজানুর গ্রেফতার ■ নৌকাডুবিতে বিশ্ববিদ্যালয় ছাত্রী ও তার ভাইয়ের খোঁজ মেলেনি ■ বিএনপিকে ষড়যন্ত্রের পথ পরিহার করতে হবে ■ ১ অক্টোবর থেকে সিঙ্গাপুর রুটে ফ্লাইট চালু ■ রোহিঙ্গাদের নিয়ে বাংলাদেশ-সৌদির মধ্যে অস্বস্তি ■ ভূমধ্যসাগরে নৌকাডুবি, বাংলাদেশিসহ অনেক অভিবাসী হতাহত ■ স্কুলছাত্রী নীলা হত্যায় রিমান্ডে মিজানের বাবা-মা ■ হাজার হাজার মসজিদ ধ্বংস করছে চীন! ■ আমরা চাই সবাই আগের মতো কাজ করুক ■ প্রকাশ্য জনমতে বাইডেন, উদ্দীপনায় ট্রাম্প এগিয়ে ■ বিএনপি-জামায়াত জনগণের পাশে দাড়াচ্ছে না ■ বাইডেনকে ৫শ’ নিরাপত্তা বিশেষজ্ঞের সমর্থন
ড্রেনে ভেসে যাচ্ছে টাকা, কুড়াচ্ছে জনতা
দেশসংবাদ ডেস্ক
Published : Saturday, 22 August, 2020 at 9:00 PM
Zoom In Zoom Out Original Text

ড্রেনে ভেসে যাচ্ছে টাকা, কুড়াচ্ছে জনতা

ড্রেনে ভেসে যাচ্ছে টাকা, কুড়াচ্ছে জনতা

রাজশাহী রেলওয়ে অফিসার্স মেস ভবনের সামনে অনেক মানুষ। সবার চোখ ড্রেনের দিকে। ভিড় ঠেলে সামনে গিয়ে দেখা যায়, কিছু মানুষ কি যেন খুব খোঁজাখুঁজি করছেন। কেউ একজন পেয়েও গেলেন প্রত্যাশিত বস্তুটি। তার হাতে ৫০০ টাকার নোট। কি আশ্চর্য, ড্রেনে ভাসছে টাকা!

এ খবর ছড়িয়ে পড়লে আরও লোক সমাগম বেড়ে গেল। যারা এতক্ষণ ড্রেনে টাকার কথা শুনে দাঁড়িয়েছিলেন, তখন নিজেরাও নেমে গেলেন সেই টাকা কুড়াতে। কেউ দু’একটি নোট পেয়েছেন, আবার কেউ চেষ্টা চালিয়ে যাচ্ছেন। ঘটনাটি শনিবার দুপুরের।

টাকাগুলো রাজশাহী সড়ক পরিবহন গ্রুপের। সেগুলো পুরনো কাগজপত্রের ভেতর ছিল। নগরীর শিরোইল এলাকায় সড়ক পরিবহন গ্রুপের কার্যালয়। সেখান থেকেই কাগজের সঙ্গে খেয়াল না করে টাকাগুলোও ফেলে দেয়া হয়েছিল। তবে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম ফেসবুকে খবর ছড়িয়ে পড়ে, এগুলো দুর্নীতি করে জমানো টাকা। ভয়ে ড্রেনে ফেলে দেয়া হয়েছে।

এ খবর শুনে পুলিশ এবং গোয়েন্দা সংস্থার সদস্যরাও ড্রেনের কাছে ছুটে যান। পরে তারা টাকার রহস্য খুঁজে পান।

প্রত্যক্ষদর্শীরা জানান, ড্রেনে এক হাজার, ৫০০, ১০০, ২০, ১০ এবং ৫ টাকার নোট পাওয়া গেছে। টাকা ভাসতে দেখে প্রথমে একজন এবং পরে অনেক মানুষ নেমে পড়েন ড্রেনে।

টুলু নামের এক ভাংড়ি বিক্রেতা তার কুড়ানো টাকাগুলো রেখেছিলেন পকেটেই। তিনি জানান, টাকাগুলো অফিসার্স মেসের পশ্চিম থেকে পূর্ব দিকে চলে যাচ্ছিল। ড্রেনে ভাসতে দেখে তিনি নেমে পড়েন।

আসলাম নামের আরেকজন জানান, তিনি এক হাজার ও ৫০০ টাকার নোট পেয়েছেন।

নগরীর বোয়ালিয়া মডেল থানার ওসি নিবারণ চন্দ্র বর্মন জানান, খবর পেয়ে সেখানে পুলিশ পাঠানো হয়েছে। প্রথমে টাকা কোথা থেকে এলো তা নিয়ে চাঞ্চল্যের সৃষ্টি হয়। পরে এর রহস্য জানা যায়।

রাজশাহী সড়ক পরিবহন গ্রুপের সাধারণ সম্পাদক মতিউল হক টিটো বলেন, আমরা খুবই বিব্রতকর অবস্থায় পড়ে গেছি। ভাবতেই পারিনি পুরনো কাগজের ভেতর টাকা থাকতে পারে।

তিনি বলেন, কাগজগুলো ২০১০ সালের আগের। পচে গেছে। পোড়ানোর উপায় নেই। তাই ড্রেনে ফেলে দেয়া হয়। পরে ড্রেনে টাকা পাওয়ার খবর শুনে আমরাও সেখানে যাই। তারপর ঘটনা দেখি। সব মিলিয়ে দুই-তিন হাজার টাকা থাকতে পারে। কিন্তু খবর ছড়িয়েছে লাখ লাখ টাকা।

দেশসংবাদ/জেআর/এনকে


আরও সংবাদ   বিষয়:  রাজশাহী রেলওয়ে অফিসার্স মেস ভবন   ড্রেন   টাকা  




আপনার মতামত দিন
আরো খবর
করোনা আপডেট
২৪ ঘণ্টায় করোনা শনাক্ত ১৩৮৩, মৃত্যু ২১
সর্বশেষ সংবাদ
আরো খবর >>
সর্বাধিক পঠিত
ফেসবুকে আমরা
English Version
More News...
সম্পাদক ও প্রকাশক
এফ. হোসাইন
উপদেষ্টা সম্পাদক
ব্রি. জে. (অব.) আবদুস সবুর মিঞা
এনামুল হক ভূঁইয়া
ব্যবস্থাপনা সম্পাদক : এম. এ হান্নান
যুগ্ম-সম্পাদক : মোহাম্মদ রুবাইয়াত আনোয়ার
যোগাযোগ
টেলিফোন : ০২ ৪৮৩১১১০১-২
সেলফোন : ০১৭১৩ ৬০১৭২৯
ইমেইল : [email protected]
Developed & Maintenance by i2soft
logo
up