ঢাকা, বাংলাদেশ || শুক্রবার, ৩০ অক্টোবর ২০২০ || ১৫ কার্তিক ১৪২৭
Desh Sangbad
শিরোনাম: ■ বিশ্ব দরবারে উন্নয়নের বার্তা দিবে থার্ড টার্মিনাল ■ চারদিকে ট্রাম্পের পরাজয়ের প্রতিধ্বনি ■ বৈদেশিক মুদ্রার রিজার্ভ ৪১ বিলিয়ন ডলার অতিক্রম ■ মহানবী (সা.)-এর ব্যঙ্গচিত্রের প্রতিবাদে ব্যাপক বিক্ষোভ ■ জেরেমি করবিনকে লেবার পার্টি থেকে বহিষ্কার ■ কাশ্মীরে হামলায় ৩ বিজেপি কর্মী নিহত ■ যুক্তরাষ্ট্রে আগাম ভোটের সর্বোচ্চ রেকর্ড ■ হতাশা নিয়ে লড়াই করা যায় না ■ হত্যার পর আগুনে পোড়ানোর ঘটনায় তদন্ত কমিটি ■ ২৪ ঘণ্টায় আক্রান্ত ৫ লাখ, বিশ্বজুড়ে সর্বোচ্চ রেকর্ড ■ ফ্রান্সে হামলাকারি কে এই যুবক? ■ লাইভে আসছেন সাকিব, থাকবেন ১০ ভাগ্যবান ভক্ত
বারহাট্রা ও পূর্বধলায় হত্যাকান্ডের রহস্য উদঘাটন
ভজন দাস, নেত্রকোনা
Published : Friday, 16 October, 2020 at 3:53 PM
Zoom In Zoom Out Original Text

বারহাট্রা ও পূর্বধলায় হত্যাকান্ডের রহস্য উদঘাটন

বারহাট্রা ও পূর্বধলায় হত্যাকান্ডের রহস্য উদঘাটন

নেত্রকোনার বারহাট্রা ও পূর্বধলায় দুটি হত্যাকান্ডের রহস্য উদঘাটন করেছে পুলিশ। বারহাট্রা উপজেলার বাদেচিরাম গ্রাম থেকে নিখোঁজের তিনদিন পর সোহাগ মিয়া নামে ভাড়ায় মটরসাইকেল চালকের লাশ উদ্ধার এবং হত্যার কারন নিশ্চিত করেছে পুলিশ। অপরদিকে পূর্বধলায় দাদন ব্যবসায়ী রুকুনুজ্জামান খান মিন্টুকে হত্যার ঘটনায় জড়িত দুইজনকে গ্রেপ্তার করে প্রকৃত রহস্য উদঘাটন করা হয়।

পুলিশ সূত্রে জানা যায়, জেলার বারহাট্রা বাদেচিরাম পূর্বপাড়া গ্রামের মৃত আব্দুর রাশিদের ছেলে সোহাগ মিয়া মাছ ধরতে গিয়ে নিখোঁজ হয়। সে ২৯ জুলাই বুধবার রাত ১০টার দিকে বাড়ী থেকে বের হয়ে কাছেই বন্যার পানিতে নিমজ্জিত ডোবায় কুছ নিয়ে মাছ ধরতে যায়। রাত ১টা পর্যন্ত বাসায় না ফেরায় বাড়ীর লোকজন তাকে বিভিন্ন স্থানে খোজাখূজি করে গভীর রাত পর্যন্ত। পরদিন বৃহস্পতিবার এলাকার লোকজন পানিতে নেমে অনেক খোঁজাখূজি করে না পেয়ে ফায়ার সার্ভিসে খবর দেয়। ময়মনসিংহ থেকে ফায়ার সার্ভিসের ডুবরি দল এসে সন্ধ্যা পর্যন্ত তারা তল্লাশি চালায়। মরদেহ খুজে না পেয়ে তারাও ফেরত যায়।

গত ১ আগষ্ট কোরবানী ঈদের দিন সকাল সাড়ে সাতটার দিকে বারহাট্টা থানার বাদেচিরাম এলাকায় জনৈক আঃ বাকী’র বাড়ির সংলগ্ন ব্রীজের দক্ষিণ পাশে স্থানীয় এক ব্যক্তি নৌকা দিয়ে গবাদিপশুর জন্য ডোবায় কচুরিপানা কাটতে গিয়ে একটি ভাসমান মরদেহ দেখতে পায়। বন্যার পানিতে থাকা কচুরিপানার নিচ হইতে  সোহাগ মিয়া (৪৮) এর লাশ উদ্ধার হয়৷বারহাট্রা থানা পুলিশ লাশটি ময়নাতদন্তের জন্য নেত্রকোনা আধুনিক সদর হাসপাতালে প্রেরণ করেন।

উক্ত ঘটনায় অজ্ঞাতনামা ব্যক্তিদের নামে মামলা রুজু হয়৷ মামলা তদন্তে ঘটনার সাথে জড়িত একই এলাকার দ্বীন ইসলামের ছেলে শাখাওয়াত হোসেন (১৯)কে ৫ আগষ্ট গাজীপুর থেকে গ্রেফতার করা হয়৷পরবর্তীতে ঘটনার সাথে জড়িত অন্যতম আসামী বারহাট্রা থানার ছয়হাল গ্রামের আলী আকবর মাষ্টারের ছেলে ইবনে সাকিব শাকিল (২০) কে চট্টগ্রামের সীতাকুণ্ড থেকে গ্রেফতার করা হয়৷শাকিল বিজ্ঞ আদালতে সিআরপিসি ১৬৪ ধারা মোতাবেক স্বীকারোক্তিমূলক জবানবন্দি প্রদান করে৷

অপরদিকে, গত ২২ আগষ্ট জেলার পূর্বধলা উপজেলার আগিয়া ইউনিয়নের বালিয়া গোদারাঘাট এলাকায় দাদন ব্যবসায়ী রুকুনুজ্জামান মিন্টু দৃষ্কৃতিকারীদের হামলায় গুরুতর আহত হয়। আহত মিন্টুকে প্রথমে পূর্বধলা হাসপাতাল ও পরে উন্নত চিকিৎসায় ময়মনসিংহ মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে নেয়া হলে চিকিৎসাধিন অবস্থায় ২৪ আগষ্ট মৃত্যু বরণ করেন। মৃত্যু ঘটনায় অজ্ঞাতনামা ব্যক্তিদের আসামী করে মামলা দায়ের করেন নিহতের বড় ভাই নূরুজ্জামান খান। এ ঘটনায় পুলিশ তথ্য প্রযুক্তি ব্যবহার করে একই এলাকার সন্দেহজনক আসামী আজাহার (২১)কে গ্রেপ্তার করে। তার দেয়া তথ্য অনুযায়ী এলাকার মিজানকে গাজীপুর থেকে গ্রেপ্তার করা হয়।

নেত্রকোনার পুলিশ সুপার আকবর আলী মুন্সীর তত্ত্বাবধান ও নির্দেশনায় মামলা দুইটির ঘটনার তদন্তে জানা যায় যে ভিকটিমের ভাগনীকে বিবাহের ক্ষেত্রে বিরোধীতা ও ভিকটিমের মেয়েকে আর এক আসামীর উত্ত্যক্তের বিষয়ে ভিকটিম কর্তৃক প্রতিবাদ নিয়ে ধৃত ও পলাতক ০৫ জন আসামী পূর্ব পরিকল্পিতভাবে উৎ পেতে থেকে ঘটনার দিন ঘটনাস্থলের ওখানে ব্রিজে বসে থাকে এবং ভিকটিম একা কুচ দিয়ে মাছ ধরতে আসলে পিছন থেকে জাপটে ধরে এলোপাথারি মারধর করে, শার্ট দিয়ে মুখ চেপে ধরে এবং ডোবার পানিতে ডুবিয়ে রেখে মৃত্যু নিশ্চিত করে৷ পরবর্তীতে আসামীরা কচুরিপানা ও ঝাউ গাছ দিয়ে ঢেকে লাশ গুম করার চেষ্টা করে৷ মামলাটির তদন্ত কর্মকর্তা বারহাট্টা থানার ইন্সপেক্টর (তদন্ত) মোঃ সোহেল মিয়া জানান পলাতক আসামীদের ধরতে অভিযান অব্যাহত রয়েছে।

সূত্র জানায়,দাদন ব্যবসায়ী রুকুনুজ্জামান মিন্টু এ পথে টাকা পয়সা নিয়ে যাতায়াত করায় এলাকার মিজান তার পরিচিত গাজীপুরের কোনাবাড়ী থেকে রুবেল, সাগর ও হৃদয়কে পূর্বধলায় নিয়ে এসে দাদন ব্যবসায়ী রুকুনুজ্জামান মিন্টুকে হত্যা করে টাকা পয়সা ছিনিয়ে নেয়ার পরিকল্পনা করে। পরিকল্পনা অনুযায়ী মিন্টু রাত সাড়ে ১২ টার দিকে সাতহাটি বাশঁঝাড় পৌছলে মিজান ও আজারুল বাশঁ দিয়ে পিছন দিক থেকে মাথায় আঘাত করে এবং রুবেল, সাগর ও হৃদয় মিন্টুর উপর উর্পযুপরি ছুড়িকাঘাত করে।তার চিৎকারে আশেপাশের লোকজন এগিয়ে এলে হামলাকারীরা পালিয়ে যায়। গ্রেপ্তারকৃত আসামী মিজান ও আজারুল ঘটনার দায় স্বীকার করে আদালতে জবানবন্দি দেয়।মামলার তদন্ত কর্মকর্তা পূর্বধলা থানার উপ-পরিদর্শক তাপস বণিক বলেন, বাকী আসামীদের গ্রেপ্তারে অভিযান অব্যাহত রয়েছে।

দেশসংবাদ/প্রতিনিধি/এফএইচ/mmh


আরও সংবাদ   বিষয়:  বারহাট্রা   পূর্বধলা  




আপনার মতামত দিন
আরো খবর
করোনা আপডেট
২৪ ঘণ্টায় আক্রান্ত ৫ লাখ, বিশ্বজুড়ে সর্বোচ্চ রেকর্ড
সর্বশেষ সংবাদ
আরো খবর >>
সর্বাধিক পঠিত
ফেসবুকে আমরা
English Version
More News...
সম্পাদক ও প্রকাশক
এফ. হোসাইন
উপদেষ্টা সম্পাদক
ব্রি. জে. (অব.) আবদুস সবুর মিঞা
এনামুল হক ভূঁইয়া
ব্যবস্থাপনা সম্পাদক : এম. এ হান্নান
যুগ্ম-সম্পাদক : মোহাম্মদ রুবাইয়াত আনোয়ার
যোগাযোগ
টেলিফোন : ০২ ৪৮৩১১১০১-২
সেলফোন : ০১৭১৩ ৬০১৭২৯
ইমেইল : [email protected]
Developed & Maintenance by i2soft
logo
up