ঢাকা, বাংলাদেশ || সোমবার, ৩০ নভেম্বর ২০২০ || ১৬ অগ্রহায়ণ ১৪২৭
Desh Sangbad
শিরোনাম: ■ ওভার কনফিডেন্টের কারণে করোনা বাড়ছে ■ গাড়িবোমা হামলায় ৩০ নিরাপত্তা কর্মী নিহত ■ মূর্তি আর ভাস্কর্য আলাদা ■ দেশে করোনায় মোট প্রাণহানি ৬৬০৯ ■ ধান ক্ষেতে ৪৩ কৃষককে জবাই ■ ভাস্কর্য স্থাপন বিতর্কে কঠোর অবস্থানে সরকার ■ ১৩ হাসপাতালে বসছে অক্সিজেন প্লান্ট ■ পৌর নির্বাচনে নৌকার প্রার্থী যারা ■ প্রকাশ্যে অস্ত্রের মহড়া, যুবদল-যুবলীগ কর্মীকে কুপিয়ে জখম ■ ২৪ ঘণ্টায় মৃত্যু ৩৬, আক্রান্ত ১৯০৮ ■ মাদকবিরোধী অভিযানে রাজধানীতে গ্রেফতার ৪৭ ■ নিয়ন্ত্রণ হারিয়ে খালে বাস, নিহত ৩
যে কোন সময় গ্রেফতার হাজী সেলিমের ছেলে এরফান
দেশসংবাদ, ঢাকা
Published : Monday, 26 October, 2020 at 1:53 PM, Update: 26.10.2020 2:38:07 PM
Zoom In Zoom Out Original Text

যে কোন সময় গ্রেফতার হাজী সেলিমের ছেলে এরফান

যে কোন সময় গ্রেফতার হাজী সেলিমের ছেলে এরফান

নৌবাহিনী অফিসারকে মারধর ও হত্যার হুমকির মামলায় ঢাকা দক্ষিণ সিটি করপোরেশনের (ডিএসসিসি) ৩০নং ওয়ার্ডের কাউন্সিলর ও ঢাকা -৭ আসনের এমপি হাজী সেলিমের ছেলে মোহাম্মদ এরফান সেলিমসহ এজাহারভুক্ত আসামিদের খুঁজছে পুলিশ।

সোমবার সকালে মারধরের ঘটনাস্থল কলাবাগানে যান ঢাকা মেট্রোপলিটন পুলিশের (ডিএমপি) রমনা বিভাগের উপ-কমিশনার (ডিসি) সাজ্জাদুর রহমান। ঘটনাস্থল পরিদর্শন শেষে তিনি এ কথা বলেন।


মামলার বিষয়ে জানতে চাইলে রমনার ডিসি সাজ্জাদুর রহমান বলেন, এ ঘটনায় এ পর্যন্ত একজনকে গ্রেফতার করা হয়েছে। এজাহারভুক্ত সব আসামিকে ধরতে অভিযান চলছে। à¦à¦›à¦¾à§œà¦¾à¦“ ঘটনাস্থলের সিসিটিভি ফুটেজ সংগ্রহ করা হচ্ছে বলেও জানান তিনি।

রোববার (২৫ অক্টোবর) রাতে ঢাকা-৭ আসনের এমপি হাজী মোহাম্মদ সেলিমের ‘সংসদ সদস্য’ লেখা সরকারি গাড়ি থেকে নেমে নৌবাহিনীর কর্মকর্তা ওয়াসিফ আহমেদ খানকে মারধর করা হয়। রাতে এ ঘটনায় জিডি হলেও আজ (সোমবার) ভোরে মামলা হিসেবে অন্তর্ভুক্ত হয়।

মামলার এজাহারে বলা হয়েছে, এরফানের গাড়ি ওয়াসিফকে ধাক্কা মারার পর তিনি সড়কের পাশে মোটরসাইকেলটি থামিয়ে গাড়ির সামনে দাঁড়ান এবং নিজের পরিচয় দেন। তখন গাড়ি থেকে আসামিরা একসঙ্গে বলতে থাকেন, ‘তোর নৌবাহিনী/সেনাবাহিনী বের করতেছি, তোর লেফটেন্যান্ট/ক্যাপ্টেন বের করতেছি। তোকে এখনি মেরে ফেলব’ বলে কিল-ঘুষি মারেন এবং আমার স্ত্রীকে অশ্লীল ভাষায় গালিগালাজ করেন।


তারা আমাকে মারধর করে রক্তাক্ত অবস্থায় ফেলে যায়। পরে আমার স্ত্রী, স্থানীয় জনতা এবং পাশে ডিউটিরত ধানমন্ডি থানার ট্রাফিক পুলিশ কর্মকর্তা আমাকে উদ্ধার করে আনোয়ার খান মডেল হাসপাতালে নিয়ে যায়।

মামলায় মোট পাঁচটি ফৌজদারি অপরাধের ধারার কথা উল্লেখ করা হয়েছে। অপরাধগুলো হলো- দণ্ডবিধি ১৪৩ অনুযায়ী বেআইনি সমাবেশের সদস্য হয়ে কোনো ব্যক্তির বিরুদ্ধে অপরাধমূলকভাবে বল প্রয়োগ করা, ৩৪১ অনুযায়ী কোনো ব্যক্তকে অবৈধভাবে নিয়ন্ত্রণ করা, ৩৩২ ধারা অনুযায়ী সরকারি কর্মকর্তার কাজে বাধাদানের উদ্দেশ্যে আহত করা, ৩৫৩ ধারা অনুযায়ী সরকারি কর্মকর্তার ওপর বল প্রয়োগ করা এবং ৫০৬ ধারায় প্রাণনাশের হুমকি দেয়ার।

দেশসংবাদ/জেআর/এসআই


আরও সংবাদ   বিষয়:  à¦¹à¦¾à¦œà§€ সেলিম   এরফান   পুলিশ  




আপনার মতামত দিন
আরো খবর
করোনা
দেশে করোনায় মোট প্রাণহানি ৬৬০৯
সর্বশেষ সংবাদ
আরো খবর >>
সর্বাধিক পঠিত
ফেসবুকে আমরা
English Version
More News...
সম্পাদক ও প্রকাশক
এফ. হোসাইন
উপদেষ্টা সম্পাদক
ব্রি. জে. (অব.) আবদুস সবুর মিঞা
এনামুল হক ভূঁইয়া
ব্যবস্থাপনা সম্পাদক : এম. এ হান্নান
যুগ্ম-সম্পাদক : মোহাম্মদ রুবাইয়াত আনোয়ার
যোগাযোগ
টেলিফোন : ০২ ৪৮৩১১১০১-২
সেলফোন : ০১৭১৩ ৬০১৭২৯
ইমেইল : [email protected]
Developed & Maintenance by i2soft
logo
up