ঢাকা, বাংলাদেশ || বৃহস্পতিবার, ২৬ নভেম্বর ২০২০ || ১২ অগ্রহায়ণ ১৪২৭
Desh Sangbad
শিরোনাম: ■ ভারতে আঘাত হেনেছে শক্তিশালী ঘূর্ণিঝড় নিভার ■ চলে গেলেন ম্যারাডোনা ■ আত্মমর্যাদা নিয়ে তরুণরা মাথা উঁচু করে চলবে ■ বাড়ছে মাস্কের দাম ■ হোয়াইট হাউসে ট্রাম্পের করুণ বিদায়ের ঘন্টা ■ তিন পুলিশ কর্মকর্তা বরখাস্ত ■ সংক্ষিপ্ত সিলেবাসে এসএসসি-এইচএসসি পরীক্ষা ■ পর পর তিন বস্তিতে আগুন নিয়ে নানা রহস্য ■ করোনায় আক্রান্ত পররাষ্ট্রমন্ত্রী ■ বিনামূল্যে করোনার ভ্যাকসিন দেবে সৌদি ■ আবারও হার না মানার ঘোষণা ট্রাম্পের ■ বোমা হামলায় পুলিশসহ নিহত ১৭
কুষ্টিয়ায় সুস্বাদু কলাইয়ের রুটি বিক্রি’র ধুম
ইসমাইল হোসেন বাবু, কুষ্টিয়া
Published : Saturday, 21 November, 2020 at 10:26 PM
Zoom In Zoom Out Original Text

কুষ্টিয়ায় সুস্বাদু কলাইয়ের রুটি বিক্রি’র ধুম

কুষ্টিয়ায় সুস্বাদু কলাইয়ের রুটি বিক্রি’র ধুম

শীত মৌসুমে কুষ্টিয়ার ভেড়ামারা উপজেলায় হাঁটবাজার গুলোতে গ্রাম বাংলার ঐতিহ্যবাহী কলাইয়ের রুটি বিক্রি’র ধুম। খেতে খুবিই সুস্বাদু, তাই কুষ্টিয়া অঞ্চলে এ রুটি খুবই জনপ্রিয়।

সুস্বাদুকর কলাই রুটি মূল ভোক্তা শ্রমজীবী মানুষ, রিক্সাওয়ালা, মুঠে মজুর, ক্ষুদে ব্যবসায়ী এবং তৃতীয় ও চতুর্থ শ্রেণীর কর্মচারী এমন কি ভদ্রলোকরা সখের বসে খেতে দেখা যায়।

কুষ্টিয়া অঞ্চলের জনপ্রিয় কলাইয়ের রুটি বিক্রি করে অনেক মহিলার জীবন জীবিকার জন্য নতুন দিগন্ত সৃষ্টি হয়েছে। তারা প্রতি সন্ধ্যা রাত থেকে গভীর রাত পর্যন্ত রুটি বিক্রি করে।

 মহিলা ব্যবসায়ী আমেনা খাতুন জানান,কলাইয়ের রুটি খেতে সবজি লাগে না, চিনি, গুড়, কিংবা মিষ্টি লাগে না, প্রয়োজন হয়না গোশতেরও। স্রেফ তেল, লবণ ও মরিচ আর পিয়াজ তৈরী ঝাল দিয়ে খেতে হয় কলাইয়ের রুটি। রুটি ব্যবসায়ীর থালা বাসনেরও প্রয়োজন হয় না। ক্রেতারা রুটি হাতের উপর নিয়ে খেতে স্বাচ্ছন্দবোধ করেন। প্রতিদিন রাতে দুই থেকে তিন হাজার টাকা বিক্রি হয়। লাভ ও হয় ছয় সাত শ’ টাকা।

রাস্তার ধারে ফুটপাতে সামান্য চাটাইয়ের ছাউনির নীচে তৈরী পর্দার আড়ালে ইটের উপর কিংবা কাঠের পিড়ির উপর বসে খাওয়ার ব্যবস্থা। কেউ কেউ খোলা আকাশের নীচে বসে রুটি বিক্রি করে চলেছে। সুস্বাদুকর কলাই রুটি মূল ভোক্তা শ্রমজীবী মানুষ, রিক্সাওয়ালা, মুঠে মজুর, ক্ষুদে ব্যবসায়ী এবং তৃতীয় ও চতুর্থ শ্রেণীর কর্মচারী। ভদ্রলোকদেরও কম পছন্দ নয় কলাইয়ের রুটি। তবে তারা তো ফুটপাতে এসে বসতে পারে না। পিয়ন বা গার্ডদের মাধ্যমে কিনে নিয়ে গিয়ে তারা চেয়ার টেবিলে বসে আসর মাতিয়ে খান।

কালাইয়েল রুটি বানানোর কৌশল সম্পর্কে হাসিনা বানু ও রোকশানা বেগমের কাছে জানতে চাওয়া হলে তারা হাঁসতে হাঁসতে  জানান, শুধু কলাইয়ের রুটি খেতে ভাল লাগে না। তিতকুটে ও কষ্টে লাগে। সে জন্য চাল ও গমের আটা মিশাতে হয়। পরিমাণ মত লবণ ও পানি দিয়ে আটা মাখিয়ে তৈরী করা হচ্ছে আসল কাজ। মাখানো কাজটি যত ভালো হবে রুটি হবে তত ভাল ও সুস্বাদু। কলাইয়ের রুটি হয় আয়তনে বড় বড় এবং বেশ পুরো। সে কারণে রুটি সেকার বিষয়টি খুব গুরুত্বপূর্ণ। প্রতিদিন বিকেল থেকে গভীর রাত পর্যন্ত রুটি জমজমাট ভাবে বিক্রি হয়।প্রতি রুটি ২০ টাকা। অঢার দিলে ২৫টাকা পিচ বিক্রি করা হয়। এতে প্রতিদিন আয়ও ভাল । তা দিয়ে দুঃস্থ মহিলাদের স্বচ্ছান্দে সংসার চলে।

দেশসংবাদ/প্রতিনিধি/এফএইচ/এইচএম


আরও সংবাদ   বিষয়:  কুষ্টিয়া   কলাইয়ের রুটি  




আপনার মতামত দিন
আরো খবর
করোনা
করোনায় আক্রান্ত পররাষ্ট্রমন্ত্রী
সর্বশেষ সংবাদ
আরো খবর >>
সর্বাধিক পঠিত
ফেসবুকে আমরা
English Version
More News...
সম্পাদক ও প্রকাশক
এফ. হোসাইন
উপদেষ্টা সম্পাদক
ব্রি. জে. (অব.) আবদুস সবুর মিঞা
এনামুল হক ভূঁইয়া
ব্যবস্থাপনা সম্পাদক : এম. এ হান্নান
যুগ্ম-সম্পাদক : মোহাম্মদ রুবাইয়াত আনোয়ার
যোগাযোগ
টেলিফোন : ০২ ৪৮৩১১১০১-২
সেলফোন : ০১৭১৩ ৬০১৭২৯
ইমেইল : [email protected]
Developed & Maintenance by i2soft
logo
up