শনিবার, ৬ মার্চ ২০২১ || ২১ ফাল্গুন ১৪২৭
Desh Sangbad
শিরোনাম: ■ নোয়াখালী আমি চালাই ■ ছাত্রলীগ নেতাসহ ৯ জনের বিরুদ্ধে চার্জশিট ■ রাজধানীতে বিএনপির মশাল মিছিল ■ মশা নিধন কৌশল ভুল ছিলো ■ মোদিকে দেশে না আনার অনুরোধ ■ সারাদেশের বিদ্যুৎ বন্ধ করে দিল জান্তা সরকার ■ ঢাকায় এসে পৌঁছালো শ্বেতবলাকা ■ আইনমন্ত্রীর উপস্থিতিতে দুই মেয়র প্রার্থীর সংঘর্ষ, আহত ১০ ■ ২৪ ঘণ্টায় করোনায় মৃত্যু ৬, আক্রান্ত ৬৩৫ ■ হেলিকপ্টার বিধ্বস্ত হয়ে ১১ সেনা নিহত ■ আরও ৪ কোটি ডোজ কিনবে বাংলাদেশ ■ বাংলাদেশ আইএসএ পরিষদের সদস্য নির্বাচিত
ধুনটে ফসলি জমির মাটি কেটে ইটভাটায় বিক্রি
রফিকুল আলম, ধুনট (বগুড়া)
Published : Sunday, 24 January, 2021 at 11:10 AM
Zoom In Zoom Out Original Text

ধুনটে ফসলি জমির মাটি কেটে ইটভাটায় বিক্রি

ধুনটে ফসলি জমির মাটি কেটে ইটভাটায় বিক্রি

‘জমির প্রকৃতি পরিবর্তন করা যাবে না’-এমন সরকারি নির্দেশ থাকলেও বগুড়ার ধুনট উপজেলায় তিন ফসলি কৃষি জমিগুলোকে পরিণত করা হচ্ছে গভীর পুকুরে। এতে করে উপজেলায় আশঙ্কাজনক হারে কমছে কৃষি জমির পরিমাণ।

জানা গেছে, এ উপজেলায় তিন ফসলি জমিতে মেশিন দিয়ে ৮-১০ ফুট গভীর করে জমির চারদিকে বাঁধ দিয়ে পুকুর খননের মহোৎসব চলছে। দিনরাত বিরতিহীন পুকুর খনন করে সেই মাটি আবার বিভিন্ন ইটভাটায় সরবারহ করা হচ্ছে। কৃষকরা না বুঝে হারাচ্ছেন তাদের উর্বর ফসলি জমি, অন্যদিকে আঙুল ফুলে কলাগাছ হচ্ছেন এক শ্রেণির প্রভাবশালী পুকুর ব্যবসায়ীরা।

শ্রেণিভেদে উপজেলার প্রায় সকল জমিতেই সারা বছর কোনও না কোনও ধরণের ফসল হয়। কিন্তু কৃষি উপকরণের মূল্য বৃদ্ধি এবং উৎপাদিত ধানের যথাযথ মূল্য না পাওয়ায় প্রতি বিঘা জমি ১২ হাজার টাকার বিনিময়ে ৫ থেকে ১০ বছর মেয়াদের চুক্তি করছে কৃষকরা। চুক্তির আওতায় তাদের ফসলি জমি পুকুরে পরিণত করা হচ্ছে। জমির সেই মাটি প্রতি গাড়ি (ট্রাক্টর) ৭০০ টাকায় বিভিন্ন ইটভাটায় বিক্রয় করছে পুকুর ব্যবসায়ীরা।

সরেজমিন বেলকুচি গ্রামে গিয়ে দেখা যায়, জেকেবি ব্রিকস নামে ইটভাটার মালিক জুয়েল সরকার তিন ফসলি জমি থেকে গর্ত করে মাটি কেটে নিচ্ছেন। ফলে চারপাশের ফসলি জমি চাষাবাদে হুমকির মুখে পাড়ার আশংঙ্কায় আছেন ভুমি মালিকরা। ফসলি জমি থেকে অবৈধ ভাবে মাটি কর্তন বন্ধের জন্য গ্রামবাসি উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তার নিকট প্রায় এক মাস আগে অভিযোগ দিয়ে কোন প্রতিকার পাচ্ছে না।

এ বিষয়ে জেকেবি ব্রিকস নামে ইটভাটার মালিক জুয়েল সরকার জানান, জমি থেকে যে ভাবে মাটি কর্তন করা হচ্ছে তাতে করে চাষাবাদের কোন ক্ষতি হবে না। তারপরও গ্রামের কতিপয় ব্যক্তি মিথ্যা অভিযোগ করেছে।

উপজেলা কৃষি কর্মকর্তা মশিদুল হক বলেন, ‘জমির প্রকৃতি পরিবর্তন করা যাবে না’- ভূমি মন্ত্রণালয়ের এমন নির্দেশনা থাকলেও তা অমান্য করে স্কেবেটার মেশিন দিয়ে মাটি কেটে ফসলি জমিতে পুকুর খনন করা হচ্ছে। আমরা কৃষকদের পরামর্শ দিয়ে আসছি পুকুর খনন থেকে বিরত থাকার জন্য।

ধুনট উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা (ইউএনও) সঞ্জয় কুমার মহন্ত বলেন, বেলকুচি গ্রামে আবাদি জমি থেকে অভৈধভাবে মাটি কর্তনের অভিযোগটি তদন্ত করে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নেওয়া হবে।

দেশসংবাদ/প্রতিনিধি/এফএইচ/mmh


আরও সংবাদ   বিষয়:  ধুনট  




আপনার মতামত দিন
আরো খবর
করোনা
২৪ ঘণ্টায় করোনায় মৃত্যু ৬, আক্রান্ত ৬৩৫
সর্বশেষ সংবাদ
আরো খবর >>
সর্বাধিক পঠিত
ফেসবুকে আমরা
English Version
More News...
সম্পাদক ও প্রকাশক
এম. হোসাইন
উপদেষ্টা সম্পাদক
ব্রি. জে. (অব.) আবদুস সবুর মিঞা
এনামুল হক ভূঁইয়া
ব্যবস্থাপনা সম্পাদক : এম. এ হান্নান
যুগ্ম-সম্পাদক
মোহাম্মদ রুবাইয়াত আনোয়ার
মেবিন হাসান
যোগাযোগ
টেলিফোন : ০২ ৪৮৩১১১০১-২
সেলফোন : ০১৭১৩ ৬০১৭২৯
ইমেইল : [email protected]
Developed & Maintenance by i2soft
logo
up