সোমবার, ১০ মে ২০২১ || ২৭ বৈশাখ ১৪২৮
Desh Sangbad
শিরোনাম: ■ রিমান্ড শেষে কারাগারে হেফাজত নেতা মামুনুল-রফিকুল ■ বাড়ছে সোনার দাম, কার্যকর আজই ■ বিশ্বে করোনায় মৃত্যু ৩৩ লাখ ৬ হাজার ■ শিক্ষার্থীদের জন্ম নিবন্ধন অনলাইনে করার নির্দেশনা ■ এক ফেরিতে ৩ হাজার যাত্রী পার ■ মমতার নতুন মন্ত্রিসভায় ৭ মুসলিম ■ রাশিয়া থেকে আসছে এক কোটি টিকা ■ যুক্তরাষ্ট্রে ৬ জনকে গুলি করে হত্যা ■ হেফাজতের অর্থায়নে যাদের নাম ■ মমতার নতুন মন্ত্রিসভায় যাদের নাম ■ মাওয়ায় স্পীড বোট দুর্ঘটনা মামলার আসামী আটক ■ ভ্যাকসিনের জন্য জোর প্রচেষ্টার সুপারিশ
জরুরী সংবাদ সম্মেলন আহ্বান
ইলিয়াস আলী ইস্যুতে বিপাকে মির্জা আব্বাস
দেশসংবাদ ডেস্ক
Published : Sunday, 18 April, 2021 at 11:34 AM, Update: 18.04.2021 2:41:55 PM
Zoom In Zoom Out Original Text

মির্জা আব্বাস

মির্জা আব্বাস

২০১২ সালে বিএনপি’র সাবেক সাংগঠনিক সম্পাদক এম ইলিয়াস আলীর নিখোঁজ হওয়া নিয়ে বিস্ফোরক বক্তব্য দিয়ে বিপাকে পড়েছেন দলটির স্থায়ী কমিটির প্রভাবশালী সদস্য মির্জা আব্বাস। নিজের বক্তব্যের ব্যাখ্যা দিতে তিনি রোববার (১৮ এপ্রিল) একটি সংবাদ সম্মেলনে ডেকেছেন।

শনিবার (১৭ এপ্রিল) রাতে বিএনপির সাংগঠনিক সম্পাদক এমরান সালেহ প্রিন্স জানান, বিএনপির স্থায়ী কমিটির সদস্য মির্জা আব্বাস রোববার বিকেল ৩টায় তার শাহজাহানপুরের বাসভবনে সংবাদ সম্মেলনে করবেন।

ইলিয়াস আলীকে নিয়ে হঠাৎ কেনো এই ধরনের বক্তব্য, জানতে চাইলে মির্জা আবাস বলেন, আমি বলি নাই যে সরকার ইলিয়াস আলীকে গুম করেনি। আমি বলেছি, সরকার যদি ইলিয়াস আলীকে গুম না করে থাকে, তাহলে কে করেছে তা খুঁজে বের করার দায়িত্ব তাদের (সরকার)। কিন্তু কিছু গণমাধ্যমে আমার বক্তব্য ভিন্নভাবে উপস্থাপন করেছে।

শনিবার এক ভার্চুয়াল আলোচনা সভায় মির্জা আব্বাস বলেন, এম ইলিয়াস আলী ছিলেন একজন স্বাধীনচেতা, দেশপ্রেমিক সাহসী নেতা। আমাদের দলের মহাসচিব আছেন, তাকে বলতে চাই, ইলিয়াস গুমের পেছনে আমাদের দলের যে বদমাইশগুলো রয়েছে তাদেরকেও চিহ্নিত করার ব্যবস্থা করুন প্লিজ। এদেরকে অনেকেই চেনেন। ইলিয়াস গুম হওয়ার আগের রাতে দলীয় অফিসে কোনো এক ব্যক্তির সঙ্গে তার বাকবিতণ্ডা হয়, ইলিয়াস খুব গালিগালাজ করেছিল তাকে। সেই বিষধর সাপগুলো এখনো আমাদের দলে রয়ে গেছে। যদি এদেরকে দল থেকে বিতারিত করতে না পারি সামনে এগুতে পারবেন না কোনো অবস্থাতেই।

মির্জা আব্বাস বলেন, ছাত্র নেতাদের সঙ্গে ৯০’র স্বৈরাচারবিরোধী আন্দোলনের মধ্যদিয়ে আমার সঙ্গে ইলিয়াসের সম্পর্ক, যেটা আজ বিদ্যমান। ভালোবাসার ছাত্র নেতাদের মধ্যে ইলিয়াস আলী ছিল অন্যতম। ইলিয়াস যে রাতে গুম হয় ওই রাত দেড়টা থেকে পৌনে দুইটার দিকে খবর পাই। তাৎক্ষণিকভাবে আমার পরিচিত কর্মকর্তাদের সঙ্গে যোগাযোগ করি তারা আমাকে জানায় তাকে চট্টগ্রাম নিয়ে যাওয়া হচ্ছে। সবচেয়ে মজার বিষয় হচ্ছে যেই পুলিশ কর্মকর্তাদের সামনে থেকে নেওয়া হলো, সেই পুলিশ কর্মকর্তাদের আজ পর্যন্ত পাওয়া যায়নি। এই খবরটা আপনারা (উপস্থিত নেতৃবৃন্দ) জানেন না। সেই গাড়িতে যে কয়জন পুলিশ কর্মকর্তা ছিল তাদের আজও পাওয়া যায়নি। যেহেতু ইলিয়াস আলীর গাড়ি চালককেও পাওয়া যায়নি। তাহলে এই কাজটি করল কে?

তিনি আরও বলেন, আমরা কিন্তু সামনের লক্ষণ ভালো দেখছি না। ইলিয়াসকে গুমের মাধ্যমে বাংলাদেশের স্বাধীনতা সার্বভৌমত্ব লঙ্ঘিত হতে যাচ্ছে। আমি বারবার বলি নেতৃত্ব শূন্যতা। হিসেব করে দেখেন একটা একটা করে রাজনৈতিক দল শেষ করে দেওয়া হচ্ছে। এখন চলছে হেফাজত। বিএনপির ওপর নির্যাতন তো চলছেই। একটা সময় আওয়ামী লীগকেও শেষ করে দেওয়ার চেষ্টা করা হবে। আমি ধরে নিলাম আওয়ামী লীগ সরকার ইলিয়াস আলীকে গুম করেনি; তাহলে গুম করল কে? আমাদের একজন নেতা সালাহউদ্দিনকে পাচার করে নিয়ে গেল, চৌধুরী আলমকে গুম করা হলো, আমাদের দলের বহু নেতাকর্মীকে গুম করা হয়েছে। এটা কিন্তু বাংলাদেশকে ধ্বংস করার পূর্ব আলামত।

বিএনপির এই প্রভাবশালী নেতা বলেন, ধরে নিলাম এই সরকার গুম করেনি; করল কে? যারা করল তাদের জিজ্ঞাসা করা যায় না? যারা এই গুম করেছে তারা এই দেশের স্বাধীনতা চাইনি, তারা দেশের স্বাধীনতা সার্বভৌমত্ব থাকতে দেবে না। বেঁচে থাকি কি না জানি না, দেখবেন সামনে আরও ঘটনা ঘটবে। গণমাধ্যমে খবরে দেখলাম প্রত্যেক থানার সামনে মেশিনগান ফিট করেছে, বালু বস্তা দিয়ে বাঙ্কার করা- এসব কীসের আলামত? কাকে মারার জন্য এসব লাগবে? ব্রিটিশ সরকার একটি লাঠি দেওয়ার আগে চিন্তা করে, সেখানে বাংলাদেশে আধুনিক অস্ত্র দিয়ে সশস্ত্রবাহিনীর আদলে পুলিশ বাহিনী তৈরি করা হচ্ছে। একটু হিসেব করার ব্যাপার বুঝি চলে এসেছে। মুক্তিযুদ্ধের সময় আমাদের একটি প্লাটুনে মাত্র একটি এলএমজি ছিল। আজকে প্রত্যেক থানার সামনে এসব মেশিনগান। এটা নাকি পুলিশকে সুরক্ষা দেওয়ার জন্য। যেখানে পুলিশ জনগণকে সুরক্ষা দেবে, সেখানে পুলিশের সুরক্ষা এটা আমার কাছে আশ্চর্য লাগে। পুলিশকে কে আক্রমণ করতে যাবে। যেখানে পুলিশের অত্যাচারে আমরা পাগল হয়ে গেলাম। এটা পুলিশি রাষ্ট্রে পরিণত হয়েছে। এখন যে অত্যাচার হচ্ছে সেটা ইলিয়াস আলী গুমের সূত্র ধরে।  

এদিকে মির্জা আব্বাসের এমন সব বক্তব্যের প্রসঙ্গে বিএনপি নেতারা বলছেন, তার এই বক্তব্যে দলের নেতাদের মধ্যে আলোচনা শুরু হয়েছে যে কার সঙ্গে ইলিয়াস আলীর ওই বাকবিতণ্ডা হয়েছে। কাকে তিনি গালিগালাজ করেছেন। কিন্তু কারও কাছেই এই প্রশ্নের উত্তর নেই।

নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক বিএনপির এক নেতা বলেন, এমনিতে খালেদা জিয়ার করোনা আক্রান্ত নিয়ে নেতাকর্মীরা উদ্বিগ্ন। এরমধ্যে এমন বক্তব্য দলের নেতাকর্মীদের মধ্যে একটি অবিশ্বাস তৈরি হয়েছে। অনেকে মনে করছেন, সত্যি কি ইলিয়াস আলী গুমের পেছনে দলের কোনো নেতা জড়িত।

উল্লেখ্য, ২০১২ সালের ১৭ এপ্রিল রাতে রাজধানীর বনানী থেকে গাড়িচালক আনসার আলীসহ নিখোঁজ হন এম ইলিয়াস আলী।

দেশসংবাদ/ডিপি/এফবি/এমএম


আরও সংবাদ   বিষয়:  বিএনপি   মির্জা আব্বাস   এম ইলিয়াস আলী  


আপনার মতামত দিন
আরো খবর
করোনা
বিশ্বে করোনায় মৃত্যু ৩৩ লাখ ৬ হাজার
সর্বশেষ সংবাদ
আরো খবর >>
সর্বাধিক পঠিত
ফেসবুকে আমরা
English Version
More News...
সম্পাদক ও প্রকাশক
এম. হোসাইন
উপদেষ্টা সম্পাদক
ব্রি. জে. (অব.) আবদুস সবুর মিঞা
সহযোগি সম্পাদক
এনামুল হক ভূঁইয়া
ব্যবস্থাপনা সম্পাদক
এম. এ হান্নান
সহকারি সম্পাদক
মোহাম্মদ রুবাইয়াত আনোয়ার
মেবিন হাসান
যোগাযোগ
টেলিফোন
০২ ৪৮৩১১১০১-২
মোবাইল ফোন
০১৭১৩ ৬০১৭২৯
ইমেইল
[email protected]
ফেসবুক
facebook.com/deshsangbad10

Developed & Maintenance by i2soft
logo
up