বুধবার, ২৩ জুন ২০২১ || ৯ আষাঢ় ১৪২৮
Desh Sangbad
শিরোনাম: ■ ঢাকা-১৪ আসনে আ.লীগের প্রার্থী জয়ী ■ প্রয়োজনে লকডাউন এলাকা বাড়ানো হবে ■ কমিশন চায় এনআইডি আমাদের কাছে থাকুক ■ ৪২তম বিসিএস’র মৌখিক পরীক্ষা স্থগিত ■ করোনার নতুন হটস্পট খুলনা ■ করোনায় আরও ৮ হাজার ২২৪ জনের মৃত্যু ■ বুয়েটের ভর্তি পরীক্ষা স্থগিত ■ আওয়ামী লীগের ৭২তম প্রতিষ্ঠাবার্ষিকী আজ ■ রাজধানীর খালে নিখোঁজ যুবকের মরদেহ ■ রাজশাহী মেডিকেলে আরও ১৬ জনের মৃত্যু ■ এবার স্কুল শিক্ষকদেরও ডোপ টেস্ট ■ ভ্যাকসিনকে বিশ্বব্যাপী পাবলিক পণ্য ঘোষণার আহ্বান
ধুনটে স্বামীকে কিডনি দিলেন স্ত্রী
রফিকুল আলম, ধুনট (বগুড়া)
Published : Tuesday, 27 April, 2021 at 10:37 AM
Zoom In Zoom Out Original Text

সঞ্জয় কুমার ও সুবর্ণা রানী

সঞ্জয় কুমার ও সুবর্ণা রানী

একটি দৃঢ় মজবুত ভালোবাসার বন্ধন সবকিছুর ঊর্ধ্বে। যা মনুষ্যত্বকে বাঁচিয়ে রাখতে সাহায্য করে। ভালবাসা অমর! সত্যিকারের ভালবাসা যে এখনো রয়েছে তারই প্রমাণ দিয়েছেন সুবর্ণা রানী নামে এক নববধূ। বাঁচলে একসাঙ্গে বাঁচব, মরলে একসঙ্গে মরবো এমন প্রত্যয়ে স্বামী সঞ্জয় কুমারের জীবন বাঁচাতে স্বেচ্ছায় তিনি নিজের কিডনি দান করেছেন। এ ঘটনাটি বগুড়ার ধুনট উপজেলায় মথুরাপুর ইউনিয়নের চরজোলাগাঁতী গ্রামে।

মঙ্গলবার মুঠোফোনে সঞ্জয় কুমারের সাথে কথা হয়। তিনি ভালবাসার সংসারের দুঃখ-কষ্ট-যন্ত্রণা-উদ্বেগের কথা বলতে গিয়ে গোড়ায় বিষাদগ্রস্থ হয়ে পড়েন। কিন্তু, স্ত্রীর কথা উঠতেই সঞ্জয় কুমার যেন অন্য উদ্দীপনার জগতে চলে যান। তিনি বলেন, জীবনে এর চেয়ে বড় কোনও প্রাপ্তি কী হয়!

উপজেলার চরজোলাগাঁতী গ্রামের অজিত হাওয়ালদারের ছেলে সঞ্জয় কুমারের (২৬) সাথে প্রতিবেশী গজেন হাওয়ালদারের কলেজ পড়ুয়া মেয়ে সুবর্ণা রানীর (১৯) প্রেমের সম্পর্ক গড়ে উঠে। পরে পারিবারিক সম্মতিতে ২০২০ সালের ২ফেব্রুয়ারী তাদের বিয়ে হয়। কিন্ত বিয়ের দুই মাস পরই ভালোবাসার সংসারে বিভীষিকা নেমে আসে। ২০২০ সালের ৪ এপ্রিল সঞ্জয় অসুস্থ হয়ে পড়েন। পরে সঞ্জয়ের শারিরীক পরীক্ষার পর জানতে পারেন তার দুটো কিডনিই অকেজো হয়ে গেছে। তাই দ্রুত কিডনি প্রতিস্থাপন করতে হবে। এদিকে, কিডনি কিনে তা প্রতিস্থাপন করতে প্রয়োজন লাখ লাখ টাকা। যা কখনই সঞ্জয়ের পরিবারের পক্ষে সম্ভব নয়। ফলে হতাশায় পড়েন সঞ্জয় কুমার।

এ অবস্থায় সঞ্জয়ের মা ইতি রানী ছেলেকে একটি কিডনি দান করার সিন্ধান্ত নেন। কিন্তু ভাগ্যের কি নির্মম পরিহাস! চিকিৎসক ইতি রানীর শারীরিক পরীক্ষা করে দেখেন তার একটি কিডনি অকেজো হয়ে গেছে। তাই মায়ের পক্ষে ছেলেকে কিডনি দান করা সম্ভব হলো না। ভাগ্যক্রমে সঞ্জয়ের সাথে তার স্ত্রী সুবর্ণা রানীর কিডনি মিলে যায়। তাই স্ত্রী চাইলে তার দুটি কিডনির মধ্যে একটি তার স্বামী কে দিতে পারবেন। বিষয়টি জানতে পেরে স্বেচ্ছায় কিডনি দিতে রাজি হয়ে যান সুবর্ণা রানী।

এরপর দীর্ঘদিন চিকিৎসার পর ১১মার্চ ঢাকা শ্যমলী সিকেডি এন্ড ইউরোলজী হসপাতালে দুই জনেরই একসাথে অপারেশন হয়। অপারেশন করে স্বামীর অকেজো দুইটি কিডনি ফেলে দিয়ে পতিব্রতা স্ত্রীর দেওয়া একটি কিডনি প্রতিস্থাপন করা হয়। আপাতত দুজনে হাসপাতালের কাছেই একটি ঘর ভাড়া করে রয়েছেন। অন্তত তিন মাস হাসপাতালের কাছাপিঠে থেকে প্রতিস্থাপন পরবর্তী প্রতিক্রিয়া সামাল দিতেই এই ব্যবস্থা। বর্তমানে সিকেডি এন্ড ইউরোলজী হাসপাতালে অধ্যাপক ডাঃ কামরুল ইসলামের নিবিড় পর্যবেক্ষণে স্বামী-স্ত্রী দুজনই সুস্থ আছেন।

দেশসংবাদ/প্রতিনিধি/এফবি/এমএম


আরও সংবাদ   বিষয়:  ধুনট   সঞ্জয় কুমার   সুবর্ণা রানী  


আপনার মতামত দিন
আরো খবর
করোনা
প্রয়োজনে লকডাউন এলাকা বাড়ানো হবে
সর্বশেষ সংবাদ
আরো খবর >>
সর্বাধিক পঠিত
ফেসবুকে আমরা
English Version
More News...
সম্পাদক ও প্রকাশক
এম. হোসাইন
উপদেষ্টা সম্পাদক
ব্রি. জে. (অব.) আবদুস সবুর মিঞা
সহযোগি সম্পাদক
এনামুল হক ভূঁইয়া
ব্যবস্থাপনা সম্পাদক
এম. এ হান্নান
সহকারি সম্পাদক
মোহাম্মদ রুবাইয়াত আনোয়ার
মেবিন হাসান
যোগাযোগ
টেলিফোন
০২ ৪৮৩১১১০১-২
মোবাইল ফোন
০১৭১৩ ৬০১৭২৯
ইমেইল
[email protected]
ফেসবুক
facebook.com/deshsangbad10

Developed & Maintenance by i2soft
logo
up