বুধবার, ২৩ জুন ২০২১ || ৮ আষাঢ় ১৪২৮
Desh Sangbad
শিরোনাম: ■ এবার স্কুল শিক্ষকদেরও ডোপ টেস্ট ■ ভ্যাকসিনকে বিশ্বব্যাপী পাবলিক পণ্য ঘোষণার আহ্বান ■ ঢাকা থেকে সব ট্রেন চলাচল বন্ধ ■ করোনায় আরও ৭৬ জনের মৃত্যু, আক্রান্ত ৪৮৪৬ ■ একনেকে ৪১৬৬ কোটি টাকা ব্যয়ে ১০ প্রকল্প অনুমোদন ■ ইজিবাইক ও ব্যাটারিচালিত রিকশা বন্ধ করার কঠোর আহ্বান ■ খালেদা জিয়াকে দ্রুত বিদেশে পাঠাতে হবে ■ নির্বাচনের ফলাফল নিয়ে হামলায় পুলিশসহ আহত ১৫ ■ খুলনায় করোনায় আরও ১১ জনের মৃত্যু ■ আরও ৩ দিন বৃষ্টির আভাস ■ শিশু সাঈদ হত্যায় তিন আসামির মৃত্যুদণ্ড বহাল ■ হঠাৎ বন্ধ দূরপাল্লার বাস, দূর্ভোগে যাত্রীরা
ট্রাক ড্রাইভারদের যত্রতত্র ঘোরাঘুরি
ভারতীয় ভ্যারিয়েন্ট ঝুঁকিতে বেনাপোলবাসী
আহম্মদ আলী শাহিন, বেনাপোল
Published : Saturday, 8 May, 2021 at 5:03 PM
Zoom In Zoom Out Original Text

ভারতীয় ভ্যারিয়েন্ট ঝুঁকিতে বেনাপোলবাসী

ভারতীয় ভ্যারিয়েন্ট ঝুঁকিতে বেনাপোলবাসী

ভারত থেকে আমদানি পণ্য নিয়ে আসা ট্রাক চালকদের মধ্যে স্বাস্থ্য সচেতনতা না থাকায় করোনার নতুন  (ভ্যারিয়েন্ট) সংক্রমণের ঝুঁকির মধ্যে রয়েছে বেনাপোল স্থলবন্দরে বাণিজ্যের সঙ্গে জড়িত প্রায় ২০ হাজার মানুষ। ভারতীয় পণ্যবোঝাই ট্রাক  বাংলাদেশে প্রবেশের সময়  ট্রাকে জীবাণুনাশক স্প্রে ও ট্রাকচালকদের স্বাস্থ্য পরীক্ষা কার্যক্রম চালু করা হলেও  স্বাস্থ্যকর্মীদের বাদ রেখে অনভিজ্ঞ আনসার সদস্য দিয়ে চলছে এসব ট্রাক চালকদের স্বাস্থ্য পরীক্ষার কাজ।

এদিকে  যথাযথ কর্তৃপক্ষের তদারকি না থাকায় সমাজিক দূরত্বের বালাই নেই বন্দর অভ্যন্তরে। স্থানীয়রা বলছেন, ভারত থেকে যেসব ট্রাক চালকেরা বন্দরে আসছেন তারা ঠিকমতো স্বাস্থ্যবিধি মেনে চলছেন না। বন্দর কর্তৃপক্ষের তদারকি না থাকায় অবাধে মাস্ক-পিপি ছাড়া যত্রতত্র চলাফেরা করছে চালক ও খালাসিরা।অনেকের কাছে মাস্ক বা পিপি থাকলেও তা ঠিকমতো ব্যবহার করছেন না। কারো মুখে মাস্ক থাকলেও তা ঝুলছে থুতনিতে।

বেনাপোল বন্দর সূত্র জানায়, ভারতে করোনার নতুন সংক্রমণে মৃত্যুহার বেড়ে যাওয়ায় প্রতিরোধ ব্যবস্থা হিসেবে সরকার বেনাপোল চেকপোস্ট দিয়ে পাসপোর্টধারী যাত্রীদের যাতায়াত বন্ধ করে দিলেও দেশের শিল্প-কলকারখানাগুলোতে উৎপাদন ও সরবরাহ ব্যবস্থা সচল রাখতে বেনাপোল বন্দর লকডাউনের আওতামুক্ত রেখে স্বাস্থ্যবিধি মেনে আমদানি-রফতানি কার্যক্রম চালু রাখে।

এতে স্বাভাবিকভাবে রেল ও স্থলপথে বেনাপোল-পেট্রাপোল দুই দেশের মধ্যে চলছে আমদানি-রফতানি কার্যক্রম। বন্দরে বাণিজ্য সম্পাদনায় কাজ করছেন বিভিন্ন সরকারি-বেসরকারি প্রতিষ্ঠানের কর্মকর্তা-কর্মচারী ও শ্রমিকসহ প্রায় ২০ হাজার কর্মজীবী মানুষ। তবে বন্দরটিতে স্বাস্থ্যবিধির বিষয়ে বন্দর কর্তৃপক্ষের তদারকি না থাকায় করোনা সংক্রমণ ঝুঁকি বেড়ে চলেছে। বন্দরে আনসার সদস্যদের যোগসাজশে কিংবা চোঁখ ফাঁকি দিয়ে তারা উদোম শরীরে রাস্তা ঘাটে যথেচ্ছা ঘুরে বেড়াচ্ছে। এমনকি বাজার ঘাটে কেনাকাটার কাজে বের হচ্ছে।

বেনাপোল সিঅ্যান্ডএফ এজেন্ট অ্যাসোসিয়েশনের সহ-সভাপতি মোঃ খায়রুজ্জামান মধু বলেন, ভারতের বিভিন্ন প্রদেশ থেকে ট্রাক চালকেরা বেনাপোল বন্দরে আসছেন। বন্দর এবং কাষ্টমসকে  বলা হয়েছে যাতে ভারতীয় চালক ও হেলপাররা বন্দরের বাইরে বের হতে না পারে। এদেরকে সামাজিকভাবে বাঁধা না দিলে বেনাপোলে করোনা পরিস্থিতির অবনতি ঘটতে পারে।

দেশসংবাদ/প্রতিনিধি/এফএইচ/বি


আরও সংবাদ   বিষয়:  বেনাপোল   ভারতীয় ভ্যারিয়েন্ট  


আপনার মতামত দিন
আরো খবর
করোনা
৫ কোটি ডোজ টিকা দিচ্ছে যুক্তরাষ্ট্র
সর্বশেষ সংবাদ
আরো খবর >>
সর্বাধিক পঠিত
ফেসবুকে আমরা
English Version
More News...
সম্পাদক ও প্রকাশক
এম. হোসাইন
উপদেষ্টা সম্পাদক
ব্রি. জে. (অব.) আবদুস সবুর মিঞা
সহযোগি সম্পাদক
এনামুল হক ভূঁইয়া
ব্যবস্থাপনা সম্পাদক
এম. এ হান্নান
সহকারি সম্পাদক
মোহাম্মদ রুবাইয়াত আনোয়ার
মেবিন হাসান
যোগাযোগ
টেলিফোন
০২ ৪৮৩১১১০১-২
মোবাইল ফোন
০১৭১৩ ৬০১৭২৯
ইমেইল
[email protected]
ফেসবুক
facebook.com/deshsangbad10

Developed & Maintenance by i2soft
logo
up