বুধবার, ২৩ জুন ২০২১ || ৮ আষাঢ় ১৪২৮
Desh Sangbad
শিরোনাম: ■ এবার স্কুল শিক্ষকদেরও ডোপ টেস্ট ■ ভ্যাকসিনকে বিশ্বব্যাপী পাবলিক পণ্য ঘোষণার আহ্বান ■ ঢাকা থেকে সব ট্রেন চলাচল বন্ধ ■ করোনায় আরও ৭৬ জনের মৃত্যু, আক্রান্ত ৪৮৪৬ ■ একনেকে ৪১৬৬ কোটি টাকা ব্যয়ে ১০ প্রকল্প অনুমোদন ■ ইজিবাইক ও ব্যাটারিচালিত রিকশা বন্ধ করার কঠোর আহ্বান ■ খালেদা জিয়াকে দ্রুত বিদেশে পাঠাতে হবে ■ নির্বাচনের ফলাফল নিয়ে হামলায় পুলিশসহ আহত ১৫ ■ খুলনায় করোনায় আরও ১১ জনের মৃত্যু ■ আরও ৩ দিন বৃষ্টির আভাস ■ শিশু সাঈদ হত্যায় তিন আসামির মৃত্যুদণ্ড বহাল ■ হঠাৎ বন্ধ দূরপাল্লার বাস, দূর্ভোগে যাত্রীরা
ধুনটে করোনায় কর্মহীন খাঁচি তৈরীর কারিগররা
রফিকুল আলম, ধুনট (বগুড়া)
Published : Sunday, 9 May, 2021 at 3:19 PM
Zoom In Zoom Out Original Text

ধুনটে করোনায় কর্মহীন খাঁচি তৈরীর কারিগররা

ধুনটে করোনায় কর্মহীন খাঁচি তৈরীর কারিগররা

বগুড়ার ধুনট উপজেলায় করোনার প্রভাবে স্থবির হয়ে পড়েছে বাঁশ শিল্প। সারা বছরের চেয়ে রমজানে বাঁশ দিয়ে তৈরী লাচ্চা-সেমাই রাখার খাঁচির চাহিদা বেশী। প্রতিবছর এ সময়ের অপেক্ষায় থাকেন খাঁচি তৈরীর কারিগররা। এখানকার খাঁচি স্থানীয় চাহিদা মিটিয়ে অন্য এলাকায় বিক্রি হয়। এতে দামও মিলে আশানুরুপ। কিন্ত করোনার থাবায় এবারই তার ব্যতিক্রম। এবার খাঁচি তৈরীর ৯০ শতাংশ কারিগর বেকার বসে আছেন।

স্থানীয় সূত্রে জানা যায়, উপজেলার প্রতিটি দোকানে লাচ্ছা সেমাই রাখার জন্য ব্যবহার হয় বাঁশের তৈরী খাঁচি। বিগত বছরে কারিগররা সকাল থেকে রাত পর্যন্ত বাঁশের তৈরি খাঁচি বানাতে ব্যস্ত সময় পার করেছেন। খাঁচির কারিগররা ঈদের বাজার ধরার টার্গেটকে মাথায় রেখে কাজ করতেন। পুরুষের পাশাপাশি নারীরাও গৃহস্থালির কাজ সম্পন্ন করে এ কাজে সহায়তা করেছেন।

জীবনের শরু থেকেই বাঁশের সঙ্গে নিবিড় সম্পর্ক তাদের। যুগ যুগ ধরে বাঁশের তৈরি বিভিন্ন সামগ্রী বানাতে পারদর্শী তারা। এ শিল্পের তারা নিপুন কারিগর। এটিই তাদের পেশা ও নেশা। বিভিন্ন আকার ও শৈলীতে কাটা সোনালী বাঁশের এ শিল্পের সঙ্গে জড়িয়ে থেকে জীবিকা নির্বাহ করছেন কারিগররা। উপজেলার পাকুড়িহাটা, নলডাঙ্গা, কান্দুনিয়া, দাঁড়াকাটা, চালাপাড়া, বেলকুচি ও বাঁশহাটাসহ ২০ গ্রামের মানুষের জীবিকার পথ বাঁশের সামগ্রী তৈরি করা। এ কাজের সাথে জড়িত প্রায় ৫ হাজার কারিগর।

বাঁশ শিল্পের কারিগররা জানান, সারা বছর বিভিন্ন ধরনের সামগ্রী তৈরী করলেও ঈদের সামনে খাঁচি তৈরীর কাজ বেশী করা হয়। লাচ্ছা সেমাই কারখানার মালিকেরা ঈদের আগে খাঁচির চাহিদা দেন। তাদের চাহিদা অনুযায়ী খাঁচি তৈরী করে দেওয়া হয়। এই খাঁচি বিক্রির জন্য হাট বাজারে যেতে হয় না। কারখানার মালিকেরা গ্রামে এসে খাঁচি কিনে নিয়ে যান। কিন্ত করোনা দূর্যোগে লাচ্চা সেমাই তৈরীর বেশীর ভাগ কারখানা বন্ধ থাকায় এবার খাঁচির চাহিদা নেই।  

দাড়াকাটা গ্রামের খাঁচি তৈরীর কারিগর শফিকুল ইসলাম বলেন, প্রায় ২০ বছর ধরে ঈদকে ঘিরে খাঁচি তৈরী করে জীবিকা নির্বাহ করেছি। কিন্ত এবার খাঁচির কাজের অগ্রীম অর্ডার পাইনি। তবে এখানকার কয়েকটি গ্রামের কারিগররা সামান্য কিছু খাঁচির অর্ডার পেয়ে কাজ করছেন। ভাল মানের একটি বাঁশ দিয়ে তিন চারটি খাঁচি তৈরী করা যায়। এক জন দক্ষ কারিগর দৈনিক চার পাঁচটি করে খাঁচি তৈরী করেন। প্রতিটি খাঁচির পাইকারী মূল্য ৪০ থেকে ৪৫টাকা।

দেশসংবাদ/প্রতিনিধি/এফএইচিএমএম


আরও সংবাদ   বিষয়:  ধুনট  


আপনার মতামত দিন
আরো খবর
করোনা
৫ কোটি ডোজ টিকা দিচ্ছে যুক্তরাষ্ট্র
সর্বশেষ সংবাদ
আরো খবর >>
সর্বাধিক পঠিত
ফেসবুকে আমরা
English Version
More News...
সম্পাদক ও প্রকাশক
এম. হোসাইন
উপদেষ্টা সম্পাদক
ব্রি. জে. (অব.) আবদুস সবুর মিঞা
সহযোগি সম্পাদক
এনামুল হক ভূঁইয়া
ব্যবস্থাপনা সম্পাদক
এম. এ হান্নান
সহকারি সম্পাদক
মোহাম্মদ রুবাইয়াত আনোয়ার
মেবিন হাসান
যোগাযোগ
টেলিফোন
০২ ৪৮৩১১১০১-২
মোবাইল ফোন
০১৭১৩ ৬০১৭২৯
ইমেইল
[email protected]
ফেসবুক
facebook.com/deshsangbad10

Developed & Maintenance by i2soft
logo
up