মঙ্গলবার, ১৯ জানুয়ারী ২০২১ || ৫ মাঘ ১৪২৭
Desh Sangbad
শিরোনাম: ■ জাসদ নেতা মিন্টু গ্রেফতার ■ নতুন মন্ত্রীদের শপথ গ্রহণ রোববার ■ বিদেশিদের বিএনপির ভরাডুবির কারণ জানালেন শেখ হাসিনা ■ বিশ্ব গণমাধ্যমে বাংলাদেশের নির্বাচন ■ সংবিধান লঙ্ঘনে ইসির বিচার দাবি খোকনের ■ শপথ গ্রহণে যাচ্ছে না ঐক্যফ্রন্টের সংসদ সদস্যরা! ■ আ’ লীগের দুই গ্রুপের কোন্দলে যুবলীগ নেতা নিহত ■ বিদেশি পর্যবেক্ষক ছিল একেবারেই আইওয়াশ ■ নির্বাচন প্রশ্নবিদ্ধ হওয়ায় গভীর উদ্বেগ টিআইবি’র ■  আ’লীগের জয়জয়কার, মুছে গেল বিরোধীরা ■ যেভাবে গঠন হচ্ছে নতুন মন্ত্রিসভা ■ ফিলিপাইনে ঝড়ে মৃতের সংখ্যা ৬৮
লস্কর-ই-তৈয়বা জঙ্গিকে মত্যুদণ্ডের নির্দেশ
দীপক দেবণাথ: কলকাতা :
Published : Sunday, 16 December, 2018 at 12:45 AM
Zoom In Zoom Out Original Text

লস্কর-ই-তৈয়বা জঙ্গিকে মত্যুদণ্ডের নির্দেশ 
রাষ্ট্রের বিরুদ্ধে যুদ্ধ ঘোষণা করাসহ একাধিক অপরাধে পাক মদদপুষ্ট জঙ্গি সংগঠন লস্কর-তৈয়বার সদস্য শেখ আবদুল নঈম ওরফে সমীরকে মৃত্যুদণ্ডের নির্দেশ দিল ভারতের একটি আদালত। 

শনিবার পশ্চিমবঙ্গের উত্তর চব্বিশ পরগনা জেলার বনগাঁ মহুকুমা আদালতের অতিরিক্ত জেলা ও দায়রা আদালত (ফাস্ট ট্র্যাক-১)-এর বিচারক বিনয় কুমার পাঠক নঈমকে সর্বোচ্চ শাস্তির নির্দেশ দেন। সেই সাথে ৫০ হাজার রুপি জরিমানাও ধার্য করা হয়। গত মঙ্গলবারই আদালত তাকে দোষী সাব্যস্ত করে। 

২০১৪ সালের ৪ এপ্রিল ভারতের পেট্রাপোল সীমান্ত থেকে আবদুল নঈমকে গ্রেফতার করা হয়। তার সাথেই গ্রেফতার হয় মুজাফফর আহমেদ রাঠের, শেখ আবদুল্লা, মহম্মদ ইউনুস-এই তিন জঙ্গি। তাদের জেরা করেই গোয়েন্দারা জানতে পারে যে পাকিস্তানে জঙ্গি ও অস্ত্র প্রশিক্ষণ নেয়। এরপর পাকিস্থানের রাওয়ালপিন্ডি থেকে ঢাকায় এসে বাংলাদেশের বেনাপোল হয়ে পেট্রাপোল সীমান্ত দিয়ে ভারতে প্রবেশের পরই ওই চার জনকে আটক করা হয়। 

এদের মূল চক্রী ছিল এই ভারতের মহারাষ্ট্রের ঔরঙ্গাবাদের বাসিন্দা আবদুল নঈম। দিল্লিতে ভারতের প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদিকে হত্যার ছক, হায়দরাবাদ বিস্ফোরণ, ২০০৬ সালে মুম্বাই বিস্ফোরণ সহ একাধিক অভিযোগে, জম্মু-কাশ্মীরে সেনাবাহিনীর ছাউনিতে হামলাসহ একাধিক অপরাধে মামলা করা হয় নঈমসহ অন্যদের বিরুদ্ধে। 

এরই মধ্যে মুম্বাই বিস্ফোরণের সাথে জড়িত থাকার অভিযোগে গত ২০১৪ সালের ডিসেম্বর মাসে পশ্চিমবঙ্গ থেকে মুম্বাই নিয়ে যাওয়ার পথে ছত্তিশগড়ে ট্রেন থেকে ঝাঁপ দিয়ে পালিয়ে যায়। এই অবস্থায় বাকি তিন জঙ্গির বিরুদ্ধে নানা সাক্ষ্য ও তথ্য সংগ্রহ করে আদালতে পেশ করে রাজ্যটির তদন্তকারী সংস্থা সিআইডি। তারই ভিত্তিতে ২০১৭ সালের জানুয়ারী ওই তিনজনকে মৃত্যুদন্ডের নির্দেশ দেয় আদালত। 

এদিকে ২০১৭ সালের নভেম্বরে দিল্লি থেকে আবদুল নঈম-কে গ্রেফতার করে ভারতের কেন্দ্রীয় তদন্তকারী সংস্থা এনআইএ। প্রথমে তার পরিচয় জানা না গেলেও পরে জানা যায় সেই-ই পলাতক জঙ্গি নঈম। এরপর তাকে সিআইডি এর হাতে তুলে দেওয়া হয়। 

গত অক্টোবর মাসে তাকে বনগাঁ আদালতে পেশ করা হয়। তার বিরুদ্ধে ভারতীয় দন্ডবিধির মোট ১৫ টি ধারায় মামলা করা হয়। গত দুই মাস শুনানির পর তাকে দোষী সাব্যস্ত করা হয়। এদিন কঠোর নিরাপত্তার মধ্যে এই জঙ্গি নেতাকে আদালতে নিয়ে আসা হয়েছিল। যদিও এদিন আদালত থেকে বেরোনোর সময় আবদুল নঈম জানান ‘রাষ্ট্র পক্ষের আইনজীবী বলেছে যে আমি অনেকগুলি বিস্ফোরণ মামলায় দোষী। কিন্তু এটা সম্পূর্ণ মিথ্যা। আমি সম্পূর্ণ নির্দোষ।’ 
    
দেশসংবাদ/এসএম


আরও সংবাদ   বিষয়:  লস্কর-ই-তৈয়বা জঙ্গিকে মত্যুদণ্ডের নির্দেশ   




আপনার মতামত দিন
আরো খবর
সর্বশেষ সংবাদ
আরো খবর >>
সর্বাধিক পঠিত
ফেসবুকে আমরা
English Version
More News...
সম্পাদক ও প্রকাশক
এম. হোসাইন
উপদেষ্টা সম্পাদক
ব্রি. জে. (অব.) আবদুস সবুর মিঞা
এনামুল হক ভূঁইয়া
ব্যবস্থাপনা সম্পাদক : এম. এ হান্নান
যুগ্ম-সম্পাদক
মোহাম্মদ রুবাইয়াত আনোয়ার
মেবিন হাসান
যোগাযোগ
টেলিফোন : ০২ ৪৮৩১১১০১-২
সেলফোন : ০১৭১৩ ৬০১৭২৯
ইমেইল : [email protected]
Developed & Maintenance by i2soft
logo
up