ঢাকা, বাংলাদেশ || শনিবার, ১১ এপ্রিল ২০২০ || ২৭ চৈত্র ১৪২৬
শিরোনাম: ■ ৫৯১১ কোটি টাকা জরুরি সহায়তা চায় বাংলাদেশ ■ ব্রিটেনজুড়ে লাশের মিছিল, ২৪ ঘন্টায় ৯৫৩ জন ■ বিশ্বব্যাপী ১ লাখ ছাড়ালো মৃতের সংখ্যা ■ লকডাউন নোয়াখালী ■ প্রস্তুত ১০ জল্লাদ ■ মাজেদের সঙ্গে সাক্ষাৎ করতে কারাগারে পরিবার ■ ১৪ ভাগ নিম্নআয়ের মানুষের ঘরে কোন খাবার নেই ■  ২৫ এপ্রিল পর্যন্ত বন্ধ থাকবে মার্কেট ■ ২৫ এপ্রিল পর্যন্ত পোশাক কারখানা বন্ধ ■ কুমিল্লা লকডাউন ঘোষণা ■ পণ্যবাহী ট্রাক-অ্যাম্বুলেন্সের সঙ্গে পারাপার হচ্ছে যাত্রী ■ সন্ধ্যা ৬টার পর ঘরের বাইরে যাওয়ার ওপর নিষেধাজ্ঞা
আবরারের বইপত্র-জামাকাপড় পরিবারকে বুঝিয়ে দিল বুয়েট
দেশসংবাদ ডেস্ক
Published : Wednesday, 30 October, 2019 at 9:15 PM

আবরার ফাহাদ

আবরার ফাহাদ

ছাত্রলীগ নেতা-কর্মিদের হাতে খুন হওয়া বাংলাদেশ প্রকৌশল বিশ্ববিদ্যালয়ের (বুয়েট) মেধাবী শিক্ষার্থী আবরার ফাহাদের বইপত্র-জামাকাপড় পরিবারকে বুঝিয়ে দিয়েছে বুয়েট কর্তৃপক্ষ।

বুধবার বেলা সাড়ে ১১টায় বুয়েট কর্তৃপক্ষের কাছ থেকে এসব জিনিসপত্র বুঝে নেন আবরারের বাবা বরকতউল্লাহ ও তার ছোট ভাই আবরার ফাইয়াজ।

২০১৮ সালের ৩১শে মার্চ আবরার ফাহাদ বুয়েট ক্যাম্পাসের শেরেবাংলা হলের ১০১১ নম্বার রুমে উঠেছিল। এ সময় আবরারের বাবার সঙ্গে ছিলেন ভাই ফাইয়াজ, চাচা মকলেছুর রহমান, মামা মোফাজ্জেল হোসেন ও আব্দুল কাদের, মামাতো ভাই জহরুল ইসলাম এবং ফুপাতো বোন আফরিদা পারভীন লিজা।

আবরারের মামতো ভাই জহরুল ইসলাম জানান, বুয়েট কর্তৃপক্ষের সিদ্ধান্তে সকাল ১০টায় তারা ক্যাম্পাসে প্রবেশ করেন। বেলা সাড়ে ১১টার দিকে বুয়েট কর্তৃপক্ষ শেরেবাংলা হলের আবরারের ১০১১ নম্বর রুমের তালা খুলে তার ব্যবহৃত সব মালামাল আমাদেরকে বুঝিয়ে দেন।

তিনি জানান, আবরারের সমস্ত মালামাল প্লাস্টিকের বস্তায় ভরে ভ্যানযোগে কুরিয়ার সার্ভিসে নিয়ে যাওয়া হয়। সেখান থেকে আবরারের কুষ্টিয়ার বাড়ির ঠিকানায় মালামাল বুকিং করে দেয়া হয়েছে।

আবরারের বাবা বরকতউল্লাহ বলেন, কয়েকদিন আগেই বুয়েট থেকে আমাকে মোবাইল ফোনে আবরারের জিনিসপত্র নিয়ে যেতে বলেছিলেন। তাদের কথায় আমারা এসে সব জিনিসপত্র বুঝে নিয়েছি। তিনি বলেন, আবরারের শেষ স্মৃতি হিসেবে তার ব্যবহৃত এই জিনিসগুলো আমরা রেখে দেব।

আবরারের মামা আব্দুল কাদের বলেন, বুকভরা স্বপ্ন নিয়ে বুয়েটে এসেছিল আবরার। আজ শূন্য হাতে ফিরে আসতে হল তার পরিবারকে। একজন বাবাকে তার সন্তানের সব স্মৃতি, বুক ভরা স্বপ্ন এভাবে মাথায় বইতে হচ্ছে। এ পৃথিবীতে বাবার কাঁধে সব থেকে ভারী জিনিস হচ্ছে সন্তানের লাশ। স্বপ্নের পরিবর্তে আবরারের বাবাকে সন্তানের লাশ আর তার জিনিসপত্র বইতে হচ্ছে। যেখানে ছেলের অর্জিত ডিগ্রি সাথে করে মাথা উঁচু করে ফেরার কথা সেখানে সন্তনের লাশের পরে তার ব্যাবহৃত জিনিসপত্র নিয়ে ফিরতে হল। একজন বাবার কাছে এর থেকে কষ্টের আর কিছু থাকে না।

আবরারের ফুপাতো বোন আফরিদা পারভীন লিজা বলেন, ছোট ভাই ফাইয়াজের জন্য একটি শার্ট কিনেছিল আবরার। শার্টটি তার রুমেই ছিল। ফাইয়াজ শার্টটি দেখেই কান্নায় ভেঙ্গে পড়েন। বার বার শার্টটি ধরে দেখছিল আর তখন ফায়াজের মুখটা বেদনায় ভরে যাচ্ছিল।

লিজা বলেন, একজন বড় ভাই শুধু ভাই না, সে বাবা মা বন্ধু সব কিছু। ভাগ্যের নির্মম পরিহাস সেই ছোট ভাইকে তার বড় ভাইয়ের ব্যবহৃত জিনিসপত্র বইতে হচ্ছে।

গত ৬ অক্টোবর রাতে ছাত্রলীগের নির্মম নির্যাতনে নিহত হন বাংলাদেশ প্রকৌশল বিশ্ববিদ্যালয়ের (বুয়েট) শিক্ষার্থী আবরার ফাহাদ। ভারতের সঙ্গে সম্পাদিত চুক্তি নিয়ে ৫ অক্টোবর সামাজিক যোগাযোগমাধ্যম ফেসবুকে একটি স্ট্যাটাস দেন ফাহাদ।

পরদিন ৬ অক্টোবর রাতে শেরেবাংলা হলের নিজের ১০১১ নম্বর কক্ষ থেকে তাকে ডেকে নিয়ে ২০১১ নম্বর কক্ষে বেধড়ক মারপিট করে ছাত্রলীগ নেতাকর্মীরা। এতে ঘটনাস্থলেই তার মৃত্যু হয়। পিটুনির সময় নিহত আবরারকে ‘শিবিরকর্মী’ হিসেবে চিহ্নিত করার চেষ্টা চালায় খুনিরা।

দেশসংবাদ/এসকে


আরও সংবাদ   বিষয়:  আবরারের বইপত্র-জামাকাপড় পরিবারকে বুঝিয়ে দিল বুয়েট  



মতামত দিতে ক্লিক করুন
আরো খবর
সর্বশেষ সংবাদ
আরো খবর >>
সর্বাধিক পঠিত
ফেসবুকে আমরা
English Version
More News...
সম্পাদক ও প্রকাশক
এম. হোসাইন
উপদেষ্টা সম্পাদক
ব্রি. জে. (অব.) আবদুস সবুর মিঞা
এনামুল হক ভূঁইয়া
যোগাযোগ
ফোন : ০২ ৪৮৩১১১০১-২
মোবা : ০১৭১৩ ৬০১৭২৯, ০১৮৪২ ৬০১৭২৯
ইমেইল : [email protected]
Developed & Maintenance by i2soft