ঢাকা, বাংলাদেশ || মঙ্গলবার, ৭ জুলাই ২০২০ || ২৩ আষাঢ় ১৪২৭
Desh Sangbad
শিরোনাম: ■ সিটি নির্বাচনে লেভেল প্লেয়িং ফিল্ড প্রস্তুত করার নির্দেশ ■ ফখরুলকে যে প্রশ্ন করলেন হানিফ ■ বাগদাদে মার্কিন দূতাবাসে হামলা ■ তওবা করে নতুন বছর শুরু করি ■ নববর্ষে দেশবাসীকে রাষ্ট্রপতি-প্রধানমন্ত্রীর শুভেচ্ছা ■ অবৈধদের ফেরত না পাঠানোর লিখিত আশ্বাস চায় বাংলাদেশ ■ ২০১৯ সালে কর্মক্ষেত্রে নিহত ৯৪৫ জন শ্রমিক ■ হাইকোর্টে আইনজীবী হতে এবার এমসিকিউ পরীক্ষা ■ আন্তর্জাতিক কলরেট ৬৫ শতাংশ কমাতে যাচ্ছে বিটিআরসি ■ ভারতের নয়া সেনাপ্রধান মনোজ মুকুন্দ নারাভানে ■ পররাষ্ট্র সচিব হলেন মাসুদ বিন মোমেন ■ বঙ্গবন্ধুর জন্মশতবার্ষিকীতে ঢাকায় আসছেন ম্যারাডোনা
বদরগঞ্জে ২শ’ বছরের ঐতিহাসিক পশু মেলা শুরু
আফরোজা বেগম, রংপুর
Published : Sunday, 29 December, 2019 at 10:25 PM, Update: 29.12.2019 11:56:19 PM
Zoom In Zoom Out Original Text

বদরগঞ্জে ২শ’ বছরের ঐতিহাসিক পশু মেলা শুরু

বদরগঞ্জে ২শ’ বছরের ঐতিহাসিক পশু মেলা শুরু

রংপুরের বদরগঞ্জে ২'শ বছরের ঐতিহাসিক পশু মেলা শুরু হয়েছে। গত শুক্রবার (২৭ ডিসেম্বর) সন্ধায় ওই পশু মেলা শুভ উদ্বোধন করা হয়েছে। এই মেলার বৈশিষ্ট্য হল বাংলা সনের ১৩ পোষ শুরু হয় এবং ১৩ মাঘ শেষ হয়। মেলা কখন শুরু হয়েছিল সে সম্পর্কে স্পষ্ট কোন ধারণা পাওয়া না গেলেও অনেকেই বলেন এটি ২০০ বছরের পুরনো এই পশু মেলা।

মেলাটি বদরগঞ্জ যমুনেশ্বরী নদীর চরে বসে থাকে। জনশ্রুতি রয়েছে জমিদারি আমলে এ মেলা  একদিন দেখতে আসেন বাতাসন পরগনার জমিদার জগত পদ সিং দুগর।

এ সময় জমিদার জগত পদ সিং দুগর মেলার সৌন্দর্য দেখে তিনি, এতটাই অভিভুত হয়েছিলেন, যে তাৎক্ষনিক ভাবে তিনি মেলাকে চিরস্থায়ী রূপ দিতে তিনি ২১ একর সম্পত্তি পশু মেলার নামকরণে দান করেন। এছাড়া পানীয় জলের সুবিধার্থে মেলা প্রাঙ্গনে ৮ টি কূপ খননের ব্যবস্থাও করেন।

এ অঞ্চলের মানুষের যতদুর জানা, বাংলাদেশের একমাত্র বদরগঞ্জ মেলারই নিজস্ব সম্পত্তি রয়েছে। এক সময় মেলায় বাণিজ্য করতে আসতেন ভারত, পাকিস্তান, নেপাল, ভুটান, ইরান, তুরস্ক, আফগানিস্তান এর ব্যবসায়ীরা। এই মেলায় সে সময় হাতি, ঘোড়া, গরু, মহিষ, উট, ছাগল, ভেড়া সবই পাওয়া যেত। এখন ছাগল, ভেরা, গরু, মহিষ মেলায় পাওয়া গেলেও উট পাওয়া যায়না। তাই এই মেলার নাম পশু মেলা।   

এছাড়া এক সময় কবি গান- পালটি গানের আসর বসলেও এখন স্থান দখল করেছে যাত্রাগানের নামে অশ্লীলতা। শুধু তাই নয়, কখনো কখনো অসামাজিক কাজের অভিযোগ উঠে মেলা পরিচালনা কমিটির সদস্যদের বিরুদ্ধে।  তবে মেলায় জুয়া বা হউজির আসর বন্ধ হয়েছে।  এলাকার লোকজনের প্রতিবাদের মুখে। মেলায় এক সময় গ্রামীণ ঐতিহ্যের অনেক কিছু পাওয়া গেলেও এখন সে গুলো শুধুই  স্মৃতি হয়ে রয়ে গেছে। তাছাড়া বোয়াল মাছের ভুরকা ভাত এখনো ভুলতে পারেননা শত বর্ষীরা। এছাড়াও মেলার জায়গা স্থানীয় ভুমি দস্যুরা দখল করে নেয়ায় মেলার সৌন্দর্য অনেক খানি ম্লান হয়েছে।

একটি  কথা বলতেই হয়। বদরগঞ্জ ঐতিহাসিক পশু মেলাকে এক এ অঞ্চলের মানুষের যে এক প্রান। বাংলা সনের ১৩ পৌষ এলেই যেনো এউপজেলার মানুষের মনে ঈদ এসে যায়। গ্রাম বাংলার প্রতিটি ঘড়ে ঘড়ে আত্মীয় স্বজনরা এসে উপস্থিত হয়। দেখার মত সেই দৃশ্য। সকলের ঘড়ে মিষ্টি পোলাউ ও পৌষ পিঠার গন্ধ ভেষে আসে। এসবেই নিয়ে এঅঞ্চলের মানুষের আয়োজন। বদরগঞ্জ ঐতিহাসিক এক মাস ব্যাপী পশু মেলা মেলার ধারাবাহিক প্রতিবেদন প্রকাশ করা হবে।

দেশসংবাদ/প্রতিনিধি/এফএইচ/বি


আরও সংবাদ   বিষয়:  বদরগঞ্জ   ঐতিহাসিক   পশু মেলা  




আপনার মতামত দিন
আরো খবর
করোনা আপডেট
সর্বশেষ সংবাদ
আরো খবর >>
সর্বাধিক পঠিত
ফেসবুকে আমরা
English Version
More News...
সম্পাদক ও প্রকাশক
এম. হোসাইন
উপদেষ্টা সম্পাদক
ব্রি. জে. (অব.) আবদুস সবুর মিঞা
এনামুল হক ভূঁইয়া
যোগাযোগ
ফোন : ০২ ৪৮৩১১১০১-২
মোবা : ০১৭১৩ ৬০১৭২৯, ০১৮৪২ ৬০১৭২৯
ইমেইল : [email protected]
Developed & Maintenance by i2soft
logo
up