ঢাকা, বাংলাদেশ || শনিবার, ২৮ নভেম্বর ২০২০ || ১৪ অগ্রহায়ণ ১৪২৭
Desh Sangbad
শিরোনাম: ■ সিটি নির্বাচনে লেভেল প্লেয়িং ফিল্ড প্রস্তুত করার নির্দেশ ■ ফখরুলকে যে প্রশ্ন করলেন হানিফ ■ বাগদাদে মার্কিন দূতাবাসে হামলা ■ তওবা করে নতুন বছর শুরু করি ■ নববর্ষে দেশবাসীকে রাষ্ট্রপতি-প্রধানমন্ত্রীর শুভেচ্ছা ■ অবৈধদের ফেরত না পাঠানোর লিখিত আশ্বাস চায় বাংলাদেশ ■ ২০১৯ সালে কর্মক্ষেত্রে নিহত ৯৪৫ জন শ্রমিক ■ হাইকোর্টে আইনজীবী হতে এবার এমসিকিউ পরীক্ষা ■ আন্তর্জাতিক কলরেট ৬৫ শতাংশ কমাতে যাচ্ছে বিটিআরসি ■ ভারতের নয়া সেনাপ্রধান মনোজ মুকুন্দ নারাভানে ■ পররাষ্ট্র সচিব হলেন মাসুদ বিন মোমেন ■ বঙ্গবন্ধুর জন্মশতবার্ষিকীতে ঢাকায় আসছেন ম্যারাডোনা
পাবনায় বিয়ের প্রলোভনে অন্তঃসত্ত্বা হয়ে বিচারের আশায় দ্বারে দ্বারে ঘুরছে
কামাল সিদ্দিকী, পাবনা
Published : Tuesday, 31 December, 2019 at 8:34 PM
Zoom In Zoom Out Original Text

পাবনায় বিয়ের প্রলোভনে অন্তঃসত্ত্বা হয়ে বিচারের আশায় দ্বারে দ্বারে ঘুরছে

পাবনায় বিয়ের প্রলোভনে অন্তঃসত্ত্বা হয়ে বিচারের আশায় দ্বারে দ্বারে ঘুরছে

পাবনার ঈশ্বরদীর দাশুড়িয়া ইউনিয়নের আব্দুল মান্নানের মেয়ে ৬ মাসের অন্তঃসত্ত্বা মুক্তি খাতুন বিচারের আশায় দ্বারে দ্বারে ঘুরছে। বিয়ের প্রলোভন দেখিয়ে শারীরিক সম্পর্ক গড়ে তুলে অন্তঃসত্ত্বা মুক্তি গ্রাম্য রাজনীতির শিকার হয়ে সমাজপতিদের কাছে সুবিচার পাচ্ছে না। ভয়-ভীতি দেখিয়ে পাতানো এক শালিসে ১লাখ ২০ হাজার টাকা ইজ্জতের দাম ধরা হয়েছে। তবে মুক্তির হতদরিদ্র বাবা এই শালিস মেনে না নেওয়ায় প্রতিনিয়ত হুমকি-ধামকী দিচ্ছে।

ঘটনার বিবরণে জানা যায়, ২০০৭ সালে বেদবুনিয়া গ্রামের গেদা লেংরার ছেলে জালাল উদ্দিনের সাথে মুক্তির শরীয়া মোতাবেক বিয়ে হয়। তাদের সংসারে ১ ছেলে ও ১ মেয়ে থাকাবস্থায় ২০১৬ সালে স্বামী মারা যায়। স্বামী মারা যাওয়ার পর ২ সন্তানের জননী মুক্তি একই গ্রামের কিরনের পুত্র জনির কুনজরে পড়ে। এক পর্যায়ে বিয়ের প্রলোভন দেখিয়ে মুক্তির সাথে শারীরিক গড়ে তোলে। এতে অন্তঃসত্ত্বা হওয়ায় বিয়ের প্রস্তাব দিলে জনি কৌশলে সটকে পড়ে।

ঘটনা এলাকায় জানাজানি হলে গত ১৩ ডিসেম্বর মুক্তির বাবা গ্রাম্য প্রধানদের কাছে বিচারের দাবী জানায়। এক পর্যায়ে এলাকার ইউপি মেম্বার ওবায়দুল আপোষ মিমাংশার জন্য শালিসের আয়োজন করে। কিন্তু জনি শালিসে হাজির না হয়ে স্থানীয় প্রভাবশালী সন্ত্রাসীদের সহযোগীতায় মুক্তি ও তার বাবাকে বিভিন্নভাবে হুমকি ও সু-বিচারে প্রতিবন্ধকতার সৃষ্টি করে। হতদরিদ্র পরিবারের সম্ভ্রমহানির ঘটনা ধামাচাপা দিতে এলাকার প্রভাবশালীরাও মরিয়া হয়ে উঠেছে বলে জানা গেছে।  

এদিকে গত ২৭ ডিসেম্বর দাশুড়িয়া ইউপির চেয়ারম্যান বকুল সরদারের অফিসে মুলাডুলি ইউপি’র চেয়ারম্যান সেলিম মালিথার উপস্থিতিতে আপোষ মিমাংসার নামে মুক্তির কাছ থেকে সাদা কাগজে স্বাক্ষর করিয়ে নেয়। জানাযায়, এই শালিসে ২ লাখ ২০ হাজার টাকায় রফা করা হয়। এর ১ লাখ টাকা রাখা হয় সাংবাদিক ও থানা পুলিশের জন্য। বাকী ১ লাখ ২০ হাজার টাকা ধর্ষিতা মুক্তির জন্য বরাদ্দ করে রাখা হলেও অন্তঃসত্তার পরিবার এই টাকা গ্রহন করেননি।

এ ব্যাপারে দাশুড়িয়া ইউপি’র চেয়ারম্যান বকুল সরদার মোবাইলে শালিসের ঘটনা স্বীকার করে বলেন, ১ লাখ ১৫ হাজার টাকা তারই পরিষদের একজনের কাছে জমা আছে। মুক্তি বা তার বাবা টাকা গ্রহন করেনি বলে তিনি জানিয়েছেন। ঈশ্বরদী থানার অফিসার ইনচার্জ বাহাউদ্দিন ফারুকী বলেন, থানায় এ ঘটনার কোন অভিযোগ দায়ের হয়নি। অভিযোগ দায়ের হলে আইনগত ব্যবস্থা নেওয়া হবে।

দেশসংবাদ/প্রতিনিধি/এফএইচ/বি


আরও সংবাদ   বিষয়:  পাবনা   অন্তঃসত্ত্বা   বিচার  




আপনার মতামত দিন
আরো খবর
সর্বশেষ সংবাদ
আরো খবর >>
সর্বাধিক পঠিত
ফেসবুকে আমরা
English Version
More News...
সম্পাদক ও প্রকাশক
এফ. হোসাইন
উপদেষ্টা সম্পাদক
ব্রি. জে. (অব.) আবদুস সবুর মিঞা
এনামুল হক ভূঁইয়া
ব্যবস্থাপনা সম্পাদক : এম. এ হান্নান
যুগ্ম-সম্পাদক : মোহাম্মদ রুবাইয়াত আনোয়ার
যোগাযোগ
টেলিফোন : ০২ ৪৮৩১১১০১-২
সেলফোন : ০১৭১৩ ৬০১৭২৯
ইমেইল : [email protected]
Developed & Maintenance by i2soft
logo
up