ঢাকা, বাংলাদেশ || বৃহস্পতিবার, ৬ আগস্ট ২০২০ || ২২ শ্রাবণ ১৪২৭
Desh Sangbad
শিরোনাম: ■ যুক্তরাষ্ট্রে প্রাথমিক ট্রায়ালে সফল নোভাভক্সের ভ্যাকসিন ■ দেশে করোনায় মৃত্যু হার কমছে না ■ ভারতে করোনা হাসপাতালে আগুন, নিহত ৮ ■ বিস্ফোরণে নিহতের সংখ্যা বেড়ে ১৩৫, জরুরি অবস্থা জারি ■ এমপি রমেশ চন্দ্র সেন করোনায় আক্রান্ত ■ লেবাননে ৪ বাংলাদেশি নিহত ■ প্রতি ১৫ সেকেন্ডে একজনের মৃত্যু ■ ক্ষতি কাটিয়ে ফের ঘুরে দাঁড়াচ্ছে পোশাক খাত ■ স্বাস্থ্য অধিদফতরের কর্মকর্তাদের গণমাধ্যমে কথা বলা নিষেধ ■ টেকনাফ থানার ওসি ক্লোজড ■ ফের লন্ডন-সিলেট ফ্লাইট চালুর সিদ্ধান্ত ■ বৈরুত বিস্ফোরণে ইসরায়েল জড়িত থাকতে পারে
রংপুর নগরীকে ধূমপানমুক্ত করা হবে
আফরোজা বেগম, রংপুর
Published : Monday, 13 January, 2020 at 9:56 PM
Zoom In Zoom Out Original Text

রংপুর নগরীকে ধূমপানমুক্ত করা হবে

রংপুর নগরীকে ধূমপানমুক্ত করা হবে

প্রাথমিক অবস্থায় রংপুর মহানগরীর কিছু জোনকে ধূমপানমুক্ত অঞ্চল হিসেবে গড়ে তোলার উদ্যোগ নিতে হবে। তারপর আস্তে আস্তে পুরো নগরীকে ধূমপানমুক্ত করা হবে। আমরা আশা প্রকাশ করছি, ২০২০ সালের মধ্যেই সকলের সম্মিলিত প্রচেষ্টায় রংপুর সিটি কর্পোরেশনকে ধূমপানমুক্ত স্বাস্থ্যসম্মত নগরী হিসেবে গড়ে তোলা হবে।  

সোমবার (১৩ জানুয়ারি ২০২০) বিকালে রংপুর সিটি কর্পোরেশনের নগর সভাকক্ষে ‘তামাকজাত পণ্যের বিজ্ঞাপন, প্রচার, প্রণোদনা ও পৃষ্ঠপোষকতা’ শীর্ষক জরিপের প্রতিবেদন উপস্থাপন উপলক্ষে অনুষ্ঠিত মতবিনিময় সভায় বক্তারা এসব কথা বলেন।

রংপুর মহানগরীর ৩৩টি ওয়ার্ডে ৪৮৪৫টি তামাকপণ্যের ৯০% দোকানে তামাকের বহুজাতিক কোম্পানিগুলোর আইন বহির্ভুত অবৈধ বিজ্ঞাপন, প্রণোদনা ও পণ্য প্রদর্শিত হওয়ার বিষয়টি জরিপ প্রতিবেদনে উঠে আসে। দাতা সংস্থা ‘ক্যাম্পেইন ফর টোব্যাকো ফ্রি কিড্স-সিটিএফকে’ এর সহযোগিতায় রাজশাহীর উন্নয়ন ও মানবাধিকার সংস্থা ‘এ্যাসোসিয়েশন ফর কম্যুনিটি ডেভেলপমেন্ট-এসিডি’ রংপুর মহানগরীতে এ জরিপ পরিচালনা করে।

‘এসিডি’র আয়োজনে ও ‘সিটিএফকে’র সহযোগিতায় অনুষ্ঠিত মতবিনিময় সভায় জরিপের ফল সিটি কর্পোরেশন কর্তৃপক্ষের হাতে আনুষ্ঠানিকভাবে হস্তান্তর করা হয়। গত বছরের জানুয়ারি মাসে মহানগরীর ৪৮৪৫টি তামাকপণ্যের বিক্রয়কেন্দ্রের মধ্যে দ্বৈবচয়নের ভিত্তিতে ৩৯২টিতে পরিচালিত জরিপের মাধ্যমে এ প্রতিবেদন উঠে আসে।  

রংপুর সিটি কর্পোরেশনের প্রধান নির্বাহী কর্মকর্তা রুহুল আমিন মিঞার সভাপতিত্বে মতবিনিময় সভায় প্রধান অতিথি ছিলেন সিটি কর্পোরেশনের প্যানেল মেয়র-২ মাহমুদুর রহমান টিটু। ‘এসিডি’র মিডিয়া ম্যানেজার আমজাদ হোসেন শিমুলে উপস্থাপনায় সভায় শুভেচ্ছা বক্তব্য দেন- সংস্থার ডিরেক্টর (প্রোগ্রাম) শারমিন সুবরীনা। এসময় বিশেষ অতিথি ছিলেন- রংপুরের সিভিল সার্জন ডা. হিরম্ব কুমার রায় ও সিটি কর্পোরেশনের সচিব মো. রাশিদুল হক, রংপুর কারমাইকেল কলেজের বাংলা বিভাগের সাবেক চেয়ারম্যান প্রফেসর শাহ্ আলম। সভায় অন্যদের মধ্যে ‘ক্যাম্পেইন ফর টোব্যাকো ফ্রি কিড্স-সিটিএফকে’র গ্র্যান্ট্স ম্যানেজার আব্দুস সালাম মিয়া, রংপুর মহানগর পুলিশের সিনিয়র সহকারি কমিশনার (পরশুরাম জোন) শেখ মো. জিন্নাহ আল মামুন, সহকারি পুলিশ কমিশনার (কোতয়ালি জোন) মো. জমির উদ্দিন, সহকারি পুলিশ কমিশনার (মাহিগঞ্জ জোন) ফারুক আহমেদ, জেলা স্যানেটারী ইন্সপেক্টর মো. মাহবুবুর রহমান, সিভিল সার্জন অফিসের সিনিয়র স্বাস্থ্য কর্মকর্তা গীতা রাণী রায়, রংপুর চেম্বার অব কমার্সের পরিচালক পার্থ বোস, বিভিন্ন পর্যায়ের অতিথিবৃন্দ, বিভিন্ন গণমাধ্যমের সাংবাদিকবৃন্দ উপস্থিত ছিলেন।

সভায় ‘তামাকজাত পণ্যের বিজ্ঞাপন, প্রচার, প্রণোদনা’ শীর্ষক জরিপের প্রতিবেদন পাওয়ার পয়েন্টে উপস্থাপন করেন ‘এসিডি’র এডভোকেসি অফিসার মো. শরিফুল ইসলাম শামীম।

সভায় প্রধান অতিথির বক্তব্যে প্যানেল মেয়র-২ মাহমুদুর রহমান টিটু বলেন, ‘রংপুর সিটি কর্পোরেশনকে ধূমপানমুক্ত একটি শহর গড়তে হলে অবশ্যই সকলের সহযোগিতা প্রয়োজন। এক্ষেত্রে জেলা প্রশাসন ও পুলিশ প্রশাসনের সহযোগিতা খুব বেশি প্রয়োজন। তাই আমরা সকলের সম্মিলিত প্রচেষ্টায় ২০২০ সালের মধ্যেই রংপুর সিটিকে ধূমপানমুক্ত একটি শহর হিসেবে গড়ে তুলতে চাই।’

সভাপতির বক্তব্যে সিটি কর্পোরেশনের প্রধান নির্বাহী কর্মকর্তা রুহুল আমিন মিঞা বলেন, ‘তামাকের বহুজাতিক কোম্পানিগুলো তামাক নিয়ন্ত্রণ আইন লঙ্ঘন করে মহানগরীতে যে প্রচারণা চালাচ্ছে তা বন্ধে প্রশাসনের সহযোগিতায় প্রয়োজনীয় পদক্ষেপ নেয়া হবে।’
জরিপ প্রতিবেদনে দেখানো হয়, সামগ্রিকভাবে মহানগরীতে তামাকের বিক্রয়কেন্দ্রে আইন লঙ্ঘনের চিত্র দেখা গেছে- আইন বহির্ভুত তামাকের অবৈধ বিজ্ঞাপন/প্রণোদনা এবং প্রদর্শণ ৫৭%; শুধু পণ্য প্রদর্শণ ৭০% দোকানে; বিজ্ঞাপন/প্রণোদনা ৭৭% দোকানে এবং ৯০% দোকানে বিজ্ঞাপন, প্রণোদনা, পণ্য প্রদর্শন করতে দেখা গেছে।        

উল্লেখ্য, ধূমপান ও তামাকজাত দ্রব্য ব্যবহার (নিয়ন্ত্রণ) আইন, ২০০৫ (সংশোধিত ২০১৩)-এর ধারা ৫ মতে, কোনো ব্যক্তি বা প্রতিষ্ঠান প্রিন্ট বা ইলেকট্রনিক মিডিয়া, বই, লিফলেট, পোস্টার, ছাপানো কাগজে তামাকজাত দ্রব্যের বিজ্ঞাপন, প্রচারণা ও পৃষ্ঠপোষকতা করতে পারবেন না। এই ধারার উপধারা (ছ) তে বলা হয়েছে- তামাকজাত দ্রব্যের বিক্রয়স্থলে (ঢ়ড়রহঃ ড়ভ ংধষবং) যে কোন উপায়ে তামাকজাত দ্রব্যের বিজ্ঞাপন প্রচার করিবেন না বা করাইবেন না। কোনো ব্যক্তি বা প্রতিষ্ঠান এ ধারা লঙ্ঘন করলে অনূর্ধ্ব তিন মাস কারাদণ্ড বা অনধিক ১ লাখ টাকা অর্থদণ্ড বা উভয় দণ্ডে দণ্ডিত হইবেন। উক্ত ব্যক্তি বা প্রতিষ্ঠান দ্বিতীয়বার বা পুনঃপুনঃ একই ধরনের অপরাধ সংঘটন করিলে তিনি পর্যায়ক্রমিকভাবে উক্ত দণ্ডের দ্বিগুণ হারে দন্ডনীয় হইবেন।

দেশসংবাদ/জেআর/আইশি


আরও সংবাদ   বিষয়:  রংপুর   নগরী   ধূমপানমুক্ত   করা  




আপনার মতামত দিন
আরো খবর
করোনা আপডেট
দেশে করোনায় মৃত্যু হার কমছে না
সর্বশেষ সংবাদ
আরো খবর >>
সর্বাধিক পঠিত
ফেসবুকে আমরা
English Version
More News...
সম্পাদক ও প্রকাশক
ফাতেমা হোসাইন
উপদেষ্টা সম্পাদক
ব্রি. জে. (অব.) আবদুস সবুর মিঞা
এনামুল হক ভূঁইয়া
যোগাযোগ
ফোন : ০২ ৪৮৩১১১০১-২
মোবা : ০১৭১৩ ৬০১৭২৯, ০১৮৪২ ৬০১৭২৯
ইমেইল : [email protected]
Developed & Maintenance by i2soft
logo
up