ঢাকা, বাংলাদেশ || শুক্রবার, ৩ এপ্রিল ২০২০ || ২০ চৈত্র ১৪২৬
শিরোনাম: ■ হাসপাতাল-ক্লিনিক-চেম্বার বন্ধ থাকলে ব্যবস্থা ■ করোনা নিয়ে উদ্বিগ্ন খালেদা জিয়া ■ পর্যাপ্ত প্রস্তুতি না থাকায় আমেরিকায় নার্সদের বিক্ষোভ ■ করোনায় পোল্ট্রি-ডেইরি শিল্পে ক্ষতি ২ হাজার কোটি টাকা ■ আসছে প্রধানমন্ত্রীর বিশেষ প্রণোদনা প্যাকেজ ■ উন্নয়নশীল দেশগুলোকে বিশ্বব্যাংকের ১৯০ কোটি ডলার ■ সিঙ্গাপুরের মোস্তাফা সেন্টার বন্ধ ঘোষণা ■ রাস্তায় টাকা ছিটিয়ে ডিএসসিসি কর্মকর্তার তামাশা! ■ প্রতি উপজেলার দু’জনের নমুনা পরীক্ষার নির্দেশ প্রধানমন্ত্রী দেননি! ■ এপ্রিলের শেষে করোনা নিয়ন্ত্রণে আসবে ■ করোনার ধাক্কায় ১৫ মাসে সর্বনিম্ন রেমিট্যান্স ■ খাগড়াছড়িতে গাড়ি উল্টে ১৭ পুলিশ আহত
মিয়ানমারকে গণহত্যার আলামত নষ্ট না করার নির্দেশ
দেশসংবাদ ডেস্ক
Published : Thursday, 23 January, 2020 at 6:41 PM

মিয়ানমারকে গণহত্যার আলামত নষ্ট না করার নির্দেশ

মিয়ানমারকে গণহত্যার আলামত নষ্ট না করার নির্দেশ

সংখ্যালঘু রোহিঙ্গা মুসলমানদের গণহত্যার আলামত নষ্ট না করার নির্দেশ দিয়েছেন জাতিসংঘের আন্তর্জাতিক বিচার আদালত (আইসিজে)।

বৃহস্পতিবার দ্য হেগ শহরে আদালতের প্রেসিডেন্ট বিচারপতি আবদুলকাভি আহমেদ ইউসুফ এ আদেশ দেন।

রোহিঙ্গা গণহত্যার দায়ে গাম্বিয়ার করা মামলায় স্থানীয় সময় সকাল ১০টায় (বাংলাদেশ সময় বিকাল ৩টায়) তিনি আনুষ্ঠানিকভাবে আদালতের এ আদেশ ঘোষণা শুরু করেন।

১৯৪৮ সালের গণহত্যা কনভেনশন অনুসারে মুসলিম সংখ্যাগরিষ্ঠ দেশ গাম্বিয়ার অনুরোধসাপেক্ষে বেশ কয়েকটি জরুরি পদক্ষেপ মঞ্জুর করেন আদালত।

রোহিঙ্গাদের ওপর যে নিপীড়ন চালানো হয়েছে, তার প্রমাণ সংরক্ষণ করতেও বৌদ্ধ সংখ্যাগরিষ্ঠ দেশটিকে নির্দেশ দেয়া হয়েছে।

গণহত্যা বন্ধ করে রোহিঙ্গাদের সুরক্ষায় মিয়ানমারের বিরুদ্ধে অন্তর্বর্তীকালীন জরুরি পদক্ষেপ নেয়ার যে আবেদন গাম্বিয়া করেছে, তা যৌক্তিক বলে মনে করছে আন্তর্জাতিক বিচার আদালত (আইসিজে)।

আদালত বলেছে, মিয়ানমারের বিরুদ্ধে অন্তর্বর্তীকালীন কোনো পদক্ষেপ নেয়া হবে কি না— সেই বিচারের এখতিয়ার জাতিসংঘের এই আদালতের রয়েছে। সেই সঙ্গে আন্তর্জাতিক গণহত্যা কনভেনশনের ভিত্তিতে এই মামলা করার মতো প্রাথমিক অধিকারও গাম্বিয়ার আছে।

আদালত বলেছেন, গাম্বিয়া স্বনামে এ আবেদন করেছে। এরপর তারা ইসলামিক সহযোগিতা সংস্থাসহ (ওআইসি) যে কোনো সংস্থা ও দেশের সহযোগিতা চাইতে পারে। তাতে তাদের মামলা করার অধিকার ক্ষুণ্ণ হবে না বলেও তিনি মনে করেন।

এ বিষয়ে বিচার করার এখতিয়ার আদালতের নেই বলে মিয়ানমার যে দাবি তুলেছে, তা প্রত্যাখ্যান করেছেন এই বিচারপতি।

আদালত মনে করেন, গণহত্যা সনদের ধারা ২-এর আলোকে রোহিঙ্গা জনগোষ্ঠী একটি বিশেষ সুরক্ষার অধিকারী (প্রোটেক্টেড) গোষ্ঠী হিসেবে বিবেচ্য।

নেদারল্যান্ডসের দ্য হেগের পিস প্যালেসে গত ১০ থেকে ১২ ডিসেম্বর ওই মামলার ওপর শুনানি হয়। তাতে গাম্বিয়ার পক্ষে নেতৃত্ব দেন দেশটির বিচারবিষয়ক মন্ত্রী আবুবকর তামবাদু। অন্যদিকে মিয়ানমারের নোবেলজয়ী নেত্রী অং সান সুচি।

আবুবকর তামবাদু শুনানিতে মিয়ানমারে রোহিঙ্গাদের ওপর বর্বরতার চিত্র তুলে ধরেন। এ সময় গণহত্যা বন্ধের আহ্বান জানান তিনি।

নৃশংসতার জন্য দায়ী সেনা সদস্যদের বিচার ও সহিংসতা বন্ধে দ্রুত পদক্ষেপ নেয়ার ক্ষেত্রে মিয়ানমারের ওপর আস্থা রাখা যায় না বলে মন্তব্য করে মামলার পূর্ণাঙ্গ শুনানির আগ পর্যন্ত অন্তর্বর্তীকালীন নির্দেশনা চান গাম্বিয়ার প্রধান কৌঁসুলি পল রিখলার।

অন্যদিকে গণহত্যার অভিযোগ অস্বীকার করে সুচি দাবি করেন, রাখাইনের পরিস্থিতি সম্পর্কে গাম্বিয়া যে চিত্র আদালতে উপস্থাপন করেছে তা অসম্পূর্ণ ও বিভ্রান্তিকর।

২০১৭ সালে রাখাইন রাজ্যে মিয়ানমার সেনাবাহিনীর সামরিক অভিযানে হত্যা, ধর্ষণ ও নিপীড়ন থেকে বাঁচতে নতুন করে ৭ লাখ ৪০ হাজার রোহিঙ্গা পালিয়ে প্রতিবেশী বাংলাদেশে আশ্রয় নেন।

সব মিলিয়ে বর্তমানে সাড়ে ১২ লাখেরও বেশি রোহিঙ্গা শরণার্থী বাংলাদেশে অবস্থান করছে।
 
দেশসংবাদ/জেআর/এসকে


আরও সংবাদ   বিষয়:  মিয়ানমার   গণহত্যা   আলামত   রোহিঙ্গা   মুসলমান  



মতামত দিতে ক্লিক করুন
আরো খবর
সর্বশেষ সংবাদ
আরো খবর >>
সর্বাধিক পঠিত
ফেসবুকে আমরা
English Version
More News...
সম্পাদক ও প্রকাশক
এম. হোসাইন
উপদেষ্টা সম্পাদক
ব্রি. জে. (অব.) আবদুস সবুর মিঞা
এনামুল হক ভূঁইয়া
যোগাযোগ
ফোন : ০২ ৪৮৩১১১০১-২
মোবা : ০১৭১৩ ৬০১৭২৯, ০১৮৪২ ৬০১৭২৯
ইমেইল : [email protected]
Developed & Maintenance by i2soft