ঢাকা, বাংলাদেশ || শুক্রবার, ৩ এপ্রিল ২০২০ || ২০ চৈত্র ১৪২৬
শিরোনাম: ■ পর্যাপ্ত প্রস্তুতি না থাকায় আমেরিকায় নার্সদের বিক্ষোভ ■ করোনায় পোল্ট্রি-ডেইরি শিল্পে ক্ষতি ২ হাজার কোটি টাকা ■ আসছে প্রধানমন্ত্রীর বিশেষ প্রণোদনা প্যাকেজ ■ উন্নয়নশীল দেশগুলোকে ১৯০ কোটি ডলার দিচ্ছে বিশ্বব্যাংক ■ সিঙ্গাপুরের মোস্তাফা সেন্টার বন্ধ ঘোষণা ■ রাস্তায় টাকা ছিটিয়ে ডিএসসিসি কর্মকর্তার তামাশা! ■ প্রতি উপজেলার দু’জনের নমুনা পরীক্ষার নির্দেশ প্রধানমন্ত্রী দেননি! ■ এপ্রিলের শেষে করোনা নিয়ন্ত্রণে আসবে ■ করোনার ধাক্কায় ১৫ মাসে সর্বনিম্ন রেমিট্যান্স ■ খাগড়াছড়িতে গাড়ি উল্টে ১৭ পুলিশ আহত ■ দেশে আরও ৫ জনের দেহে করোনা শনাক্ত ■ বাংলাদেশ ছেড়ে যাবে না চীনা কূটনীতিকরা
খালেদা জিয়ার স্বাস্থ্যগত প্রতিবেদন চেয়েছেন হাইকোর্ট
দিদারুল আলম, ঢাকা
Published : Sunday, 23 February, 2020 at 4:34 PM

খালেদা জিয়া

খালেদা জিয়া

বিএনপি চেয়ারপার্সন বেগম খালেদা জিয়ার স্বাস্থ্যগত প্রতিবেদন চেয়ে আদেশ দিয়েছেন হাইকোর্ট। বিচারপতি ওবায়দুল হাসান ও বিচারপতি একেএম জহিরুল হক জামিন আবেদনের শুনানিকালে আজ এ আদেশ দেন।

আদেশে আদালত আগামী বুধবার বিকাল ৫ টার মধ্যে বিএসএমএমইউ'র ভিসিকে এ প্রতিবেদন দিতে বলেছেন। একই সঙ্গে আগামী বৃহস্পতিবার বিষয়টি নিয়ে পরবর্তী দিন ধার্য রেখেছেন।
খালেদা জিয়ার পক্ষে আইনজীবী জয়নুল আবেদীন এ কথা জানান।

তিনি জানান, অ্যাডভান্স (উন্নত) ট্রিটমেন্টের জন্য বেগম খালেদা জিয়া সম্মতি দিয়েছেন কিনা, সম্মতি দিলে চিকিৎসা শুরু হয়েছে কিনা এবং শুরু হলে কী অবস্থা তা জানাতে বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব মেডিক্যাল বিশ্ববিদ্যালয় হাসপাতালের (বিএসএমএমইউ) আদেশ দেন আদালত।

আজ আদালতে রাষ্ট্রপক্ষে ছিলেন এটর্নি জেনারেল মাহবুবে আলম। এর আগে গত ১৯ ফেব্রুয়ারি জামিন আবেদনটি উপস্থাপনের পর আদালত আজ ২৩ ফেব্রুয়ারি শুনানির  দিন ধার্য করেছিলেন।

গত ১৮ ফেব্রুয়ারি এই আবেদনটি হাইকোর্টের সংশ্লিষ্ট শাখায় দায়ের করেন খালেদা জিয়ার আইনজীবী সগীর হোসেন লিয়ন।

জিয়া চ্যারিটেবল ট্রাস্টের নামে অবৈধভাবে ৩ কোটি ১৫ লাখ টাকা লেনদেনের অভিযোগে বেগম খালেদা জিয়াসহ ৪ জনের বিরুদ্ধে ২০১০ সালের ৮ আগস্ট তেজগাঁও থানায় মামলা করে দুর্নীতি দমন কমিশন (দুদক)।

এ মামলায় ঢাকার পঞ্চম বিশেষ জজ আদালত ২০১৮ সালের ২৯ অক্টোবর খালেদা জিয়াকে এ মামলায় ৭ বছরের সশ্রম কারাদণ্ড ও ১০ লাখ টাকা জরিমানা করেন রায় ঘোষণা করেছে। মামলার অন্য আসামিদেরও একই সাজা দেয়া হয় এবং ট্রাস্টের সম্পত্তি বাজেয়াপ্তের ঘোষণা করা হয়েছে রায়ে।

মামলার অন্য আসামিরা হলেন: বেগম খালেদা জিয়ার সাবেক রাজনৈতিক সচিব হারিছ চৌধুরী, হারিছ চৌধুরীর সাবেক এপিএস জিয়াউল ইসলাম মুন্না এবং ঢাকার সাবেক মেয়র সাদেক হোসেন খোকার এপিএস মনিরুল ইসলাম।

এই মামলায় জামিন চেয়ে আবেদন করলে খালেদা জিয়ার জামিন আবেদন খারিজ করে দেন হাইকোর্ট। এরপর সে খারিজ আদেশের বিরুদ্ধে আপিল বিভাগে আবেদন করে জামিন চান খালেদা জিয়া। তবে গত ১২ ডিসেম্বর জিয়া চ্যারিটেবল ট্রাস্ট দুর্নীতি মামলায় দণ্ডিত খালেদা জিয়ার জামিন নামঞ্জুর করে আদেশ দেন আপিল বিভাগ। তবে তার চিকিৎসা বিষয়ে পর্যবেক্ষণ দেয়া হয়।
    
উল্লেখ্য-২০১৮ সালের ৮ ফেব্রুয়ারি জিয়া অরফানেজ ট্রাস্ট দুর্নীতি মামলায় সাজার রায় ঘোষণার পর বেগম খালেদা জিয়াকে কারাগারে নেয়া হয়। বর্তমানে তিনি কারা হেফাজতে চিকিৎসার জন্য বিএসএমএমইউ হাসপাতালে রয়েছেন।

দেশসংবাদ/প্রতিনিধি/এনকে


আরও সংবাদ   বিষয়:  খালেদা জিয়া   হাইকোর্ট   



মতামত দিতে ক্লিক করুন
আরো খবর
সর্বশেষ সংবাদ
আরো খবর >>
সর্বাধিক পঠিত
ফেসবুকে আমরা
English Version
More News...
সম্পাদক ও প্রকাশক
এম. হোসাইন
উপদেষ্টা সম্পাদক
ব্রি. জে. (অব.) আবদুস সবুর মিঞা
এনামুল হক ভূঁইয়া
যোগাযোগ
ফোন : ০২ ৪৮৩১১১০১-২
মোবা : ০১৭১৩ ৬০১৭২৯, ০১৮৪২ ৬০১৭২৯
ইমেইল : [email protected]
Developed & Maintenance by i2soft